Thursday, November 14, 2019

বিপদ বাড়ছে হোয়াটসঅ্যাপে! লক্ষ লক্ষ মানুষ ইনস্টল করছে এই সুরক্ষিত অ্যাপ

সন্দেহ নেই যে Whatsapp বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ। তবে ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা নিয়ে প্রায়শই এর উপর প্রশ্ন ওঠে। সম্প্রতি পেগাসাস স্পাইওয়্যার অ্যাটাকের পর হোয়াটসঅ্যাপে ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা এবং গোপনীয়তা নিয়ে অনেকেই সন্দেহ প্রকাশ করেছে। যার পর থেকেই অনেক ভারতীয় এখন হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প সন্ধান করতে ব্যস্ত। সদ্য প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতীয়রা Telegram কে হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প হিসাবে বেছে নিয়েছে, যার পর থেকে এর ব্যবহারকারীর সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে।

দ্রুত বাড়ছে ব্যবহারকারীর সংখ্যা :

ভারতে হোয়াটসঅ্যাপের মাসিক ব্যবহারকারীর সংখ্যা বর্তমানে ৪০ কোটি, তবে টেলিগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপের যোগ্য প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে উঠে আসছে । গত ৯ মাসে ভারতে টেলিগ্রামের মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীদের সংখ্যা ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

সেপ্টেম্বরে ৯০ লাখের বেশি ডাউনলোড :

২০১৭ সালের জুন মাসে টেলিগ্রামের বিশ্বব্যাপী ব্যবহারকারীদের মধ্যে ভারতীয়দের সংখ্যা ছিল ২ শতাংশ, যা ২০১৯ এর সেপ্টেম্বরে ১২ শতাংশে গিয়ে দাঁড়িয়েছে । শুধু তাই নয়, এই অ্যাপটি অন্য বছরের তুলনায় এবছরে তিনগুন দ্রুত ইনস্টল হচ্ছে । অ্যাপ ইন্টেলিজেন্স ফার্ম সিমিলার ওয়েব অনুসারে, সেপ্টেম্বরে ৯১ লাখ ব্যবহারকারী টেলিগ্রাম ইনস্টল করেছে। জানুয়ারিতে এই সংখ্যা ছিল ৩৬ লাখ ।

অনেক বেশি সুরক্ষিত টেলিগ্রাম :

Telegram অ্যাপটিতে আপনারা সাধারণ চ্যাটের জন্য ক্লায়েন্ট সার্ভার এনক্রিপশন পাবেন। অর্থাৎ আপনারা দুজন ছাড়া আর কেউ কখনোই সেই চ্যাট করতে পারবেনা। এছাড়াও টেলিগ্রাম অ্যাপে একটি বিশেষ ফিচার রয়েছে যেটি হল সেল্ফ ডিস্ট্রাকশন মেসেজ। এই মেসেজ সার্ভিসে আপনারা একটি টাইমার লাগিয়ে কোন মেসেজ পাঠাতে পারেন। এবং তারপর সেট করা টাইমারের সময়সীমা অতিক্রান্ত হয়ে গেলে মেসেজটি আপনা-আপনি ডিলিট হয়ে যাবে।

সাইবার সুরক্ষা সংস্থা লুসিডিয়াসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা রাহুল তায়াগি বলেছেন, “টেলিগ্রামের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হল অ্যাপটিতে যা কিছু ঘটে, তা অ্যাপের অভ্যন্তরেই থাকে।” হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রে এটি হয় না কারণ ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার নিয়ে এটি সবসময় প্রশ্নের মুখে ছিল। আর এর বড়ো কারণ ফেসবুকের সাথে সংযোগ।’

- Advertisment -