আরও দ্রুত হবে ফাইল শেয়ার, ১৭ বছরের ছেলে আনলো SHAREit এর বিকল্প দেশীয় অ্যাপ ডোডো ড্রপ

17-year-old-kashmiri-boy-made-indian-shareit-alternative-app-dodo-drop

গত জুন মাসের শেষে ভারত সরকার দেশের সুরক্ষা ও অখণ্ডতা বজায় রাখতে টিকটক সহ ৫৮ টি চাইনিজ অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছিল, এ কথা আপনারা সবাই জানেন। টিকটক ছাড়াও এই তালিকায় CamScanner, SHAREit, Xender বা Clean Master-এর মত জনপ্রিয় অ্যাপের নাম ছিল। অ্যাপগুলি আবার ভারতীয় বাজারে ফিরবে কিনা তা নিয়ে বেশ জল্পনা কল্পনা চলছে।

এদিকে SHAREit, Xender-এর মত ফাইল শেয়ারিং অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার পর, আমরা বেশ মুশকিলে পড়েছি। একাংশ স্মার্টফোন ইউজার এই অ্যাপ্লিকেশনগুলির বিকল্প খোঁজ করছেন। আপনিও যদি সেইসব মানুষের মধ্যে থাকেন যারা SHAREit, Xender-এর বিকল্প খোঁজ করছেন, তাহলে আর চিন্তা নেই, এবার এসে গেছে সম্পূর্ণ ভারতীয় ফাইল শেয়ারিং অ্যাপ – ডোডো ড্রপ (Dodo Drop)। এই অ্যাপ্লিকেশনটির সাহায্যে ইউজাররা ইন্টারনেট অ্যাক্সেস ছাড়াই দুটি ডিভাইসের মধ্যে সহজেই অডিও, ভিডিও, ছবি এবং টেক্সট শেয়ার করতে পারবেন।

এই অ্যাপটি ডেভেলপ করেছেন জম্মু ও কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার আশফাক মাহমুদ চৌধুরী, যার বয়েস মাত্র ১৭ বছর। এই বিষয়ে আশফাক বলেছে, ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞার জন্য ফাইল শেয়ারিং অ্যাপগুলি ব্যবহার করা যায়না, যার ফলে ভারতের স্মার্টফোন ইউজাররা সমস্যার মুখে পড়ছে। তাই সে Dodo Drop ফাইলটি শেয়ারিং অ্যাপটি তৈরি করেছে।

ডোডো ড্রপ অ্যাপের সাহায্যে ৪৮০ এমবিপিএস স্পিডে ফাইল ট্রান্সফার করা যাবে, যা SHAREit-এর ট্রান্সফারিং স্পিডের চেয়ে অনেকটাই বেশি। এই অ্যাপে ইউজারের তথ্য সম্পূর্ণ সুরক্ষিত থাকবে, কারণ ট্রান্সফার করা ফাইল এনক্রিপ্ট করা থাকে।

Dodo Drop অ্যাপটি তৈরি করতে আশফাকের সময় লেগেছে প্রায় এক মাস। গত ১লা আগস্ট থেকে অ্যাপটি ব্যবহারের জন্য উপলব্ধ হয়েছে।
আশফাক জানিয়েছে, সে ভবিষ্যতে বিশ্বের স্ট্যান্ডার্ড অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপ করতে চায়।