বাজারে এল Bajaj Pulsar 220F এর ২০২১ সংস্করণ, জেনে নিন দাম

2021-bajaj-pulsar-220f-launched-price-in-india-1-25-lakh

Pulsar 220 মডেলটি Bajaj ভারতে প্রথম লঞ্চ করেছিল ২০০৭ সালে। তখন বাইকটি নাম ছিল ২২০ ডিটিএস-এফআই। দীর্ঘ সফর অতিক্রম করেও পালসার রেঞ্জের এই মডেলটি বাজারে তার জৌলুস ধরে রেখেছে। তবে ২২০ ডিটিএস-এফআই এর পরিবর্তে এটি অবশ্য এখন Pulsar 220F নামে পরিচিত। সম্প্রতি পালসার ২২০এফ সহ পালসার লাইন-আপের প্রত্যেকটি মডেলের দাম বাড়ানোর পথে বাজাজকে হাঁটতে দেখেছিলাম। এবার বাজাজ দাম বৃদ্ধির সাথে সামঞ্জস্য বজায় রেখে Pulsar 220F মডেলে বেশ কিছু নতুন ফিচারও যোগ করলো। ফলে আপনি একে Pulsar 220F এর ২০২১ সংস্করণ বলতে পারেন। আসুন পূর্ববর্তী মডেলের তুলনায় এটি কি কি পরিবর্তনের সাথে এসেছে দেখে নেওয়া যাক।

2021 Bajaj Pulsar 220F এর ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার

পালসার ২২০ এফ-এর নতুন সংস্করণে ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার আপডেট করা হয়েছে। বাইকে পূর্বের ন্যায় অ্যানালগ ট্যাকোমিটার সহ সেমি-ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট কনসোল রয়েছে। তবে এটি এখন বেশ কয়েকটি নতুন এবং অতিরিক্ত তথ্য সরবরাহ করবে। যার মধ্যে আছে, ফুয়েল এফিসিয়েন্সি, রিয়েল-টাইম মাইলেজ। তবে ক্লক ও গিয়ার পজিশন ইন্ডিকেটর না থাকাটা হতাশাজনক। সামগ্রিকভাবে স্টাইলে একটু স্পোর্টি টাচ দেওয়ার জন্য ড্যাশবোর্ডের ওপরে কার্বন ফাইভারের প্যাটার্ন দেওয়া হয়েছে। এর আগের মডেলে স্পিডোমিটারের তার সামনের চাকার সাথে সংযুক্ত ছিল। তবে নতুন মডেলে এটি এখন পিছনের চাকার সাথে কানেক্টেড। এছাড়া পালসার ২২০ এফ মোটরবাইকে অন্য কিছু পরিবর্তন করা হয় নি।

বাজাজ পালসার ২২০ এফ-তে পাবেন ২২০ সিসি, ডিটিএস-এফআই প্রযুক্তির, এয়ার কুলড ইঞ্জিন৷ যা ৮৫০০ rpm গতিতে সর্বোচ্চ ২০.৪ bhp শক্তি ও ৭০০০ rpm-এ ১৮.৫৫ Nm টর্ক উৎপন্ন করতে সক্ষম। মোটরটি ফাইভ স্পিড গিয়ারবক্সের সাথে এসেছে। বাইকের সাসপেনশন সিস্টেমে সামনে টেলিস্কোপিক ফোর্কস এবং পিছনের অংশে ডুয়াল নাইট্রোক্স শক-অ্যাবজর্ভার রয়েছে।

বাইকটির উভয় প্রান্তে আছে ১৭ ইঞ্চি চাকা। ব্রেকিং হ্যান্ডেল করার জন্য রয়েছে ডিস্ক ব্রেক (সামনে ২৮০ মিমি ও পিছনে ২৩০ মিমি)। পালসার ২২০ এফ-এর ফুয়েল ট্যাঙ্কের ক্যাপাসিটি ১৫ লিটার এবং কার্ব ওয়েট ১৬০ কেজি। ২০২১ বাজাজ পালসার ২২০এফ কিনতে গেলে এখন খরচ করতে হবে ১.২৫ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম দিল্লি)। ব্ল্যাক রেড ও ব্ল্যাক ব্লু কালার অপশনে এটি উপলব্ধ হবে।