ছোট্ট ভুলে হতে পারে বড়ো ক্ষতি, অনলাইন শপিংয়ের সময় মেনে চলুন এই নিয়ম

আজ থেকে পাঁচ বছর আগে কেউ ভাবতেও পারতো না ভারতে অনলাইন বাজার এতো দ্রুত বৃদ্ধি পাবে এবং এইসময় গোবরও অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে। সময়ের সাথে সাথে মানুষ অনলাইন শপিংয়ের প্রতি আস্থা দেখিয়েছে। অনলাইন শপিংয়ের সুবিধা হলো একটি প্রোডাক্ট বিভিন্ন কোম্পানির পাওয়া যাবে। এখানে আপনি আপনার পছন্দ অনুসারে বিভিন্ন প্রোডাক্ট কিনতে পারে। অনলাইন শপিং এর বিভিন্ন সুবিধা থাকলেও এর অনেক খারাপ দিকও আছে। এখানে আপনার একটি ছোট্ট ভুল বড়ো ক্ষতির মুখে দাঁড় করাতে পারে। তো আসুন জেনে নেই অনলাইন শপিং করার সময় কোন কোন বিষয়ে আমাদের নজর রাখা উচিত।

সঠিক ওয়েবসাইট:

অনলাইন শপিং করার সময় আমাদেরকে নজর রাখা উচিত আমরা কোন ওয়েবসাইট থেকে জিনিস পত্র কিনছি। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাজন, ফ্লিপকার্টের নামে জাল ওয়েবসাইটের পরিমান কম নয়। এইসব ওয়েবসাইটে 10,000 টাকার জিনিস 200 বা 100 টাকায় বিক্রির বিজ্ঞাপন দেখানো হয়। এই বিজ্ঞাপনের প্রলোভনে পা দিলেই আপনি সর্বস্ব হারাতে পারেন।

সঠিক ওয়েবসাইট বুঝবেন কিভাবে:

সবার প্রথমে দেখুন ওয়েবসাইটটি সিকিউর কিনা। কারণ সিকিউর ওয়েবসাইট ছাড়া কোনো পেমেন্ট করা উচিত নয়। যদি কোনো ওয়েবসাইটের ইউআরএল এর আগে একটি লক সাইন বা https নেই সেইসব সাইটে কোনো লেনদেন মোটেও সুরক্ষিত নয়। এইসব সাইট আপনার ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের তথ্য চুরি করতে পারে।

সোশ্যাল মিডিয়ার বিজ্ঞাপন ভালোভাবে দেখুন:

অনেকসময় আপনার কোনো বন্ধু হোয়াটসঅ্যাপ বা মেসেঞ্জারে অনেক স্মার্টফোন কেনার লিংক সেন্ড করে যেখানে 10,000 টাকার ফোন 150 টাকায় কেনার সুযোগ থাকে। এইসব লিংকে আমাজন বা ফ্লিপকার্টের সাথে কিছুটা মিল রাখা হয়। যদি আপনি এই লিংক খুব ভালো ভাবে দেখেন তবে দেখবেন এর ইউআরএল অন্যকোনো ওয়েবসাইটের।

কিভাবে বুঝবেন প্রোডাক্ট আসল নাকি নকল:

নামীদামী ওয়েবসাইট গুলিতে অনেক সেলার থাকে যারা জাল প্রোডাক্ট সেল করে। আপনি কম দাম দেখে এই প্রোডাক্টগুলো কিনতে আগ্রহী হোন। কিন্তু এই প্রোডাক্টগুলো পুরোপুরি জাল। এরজন্য আপনাকে ওয়েবসাইটের লেবেল দেখা জরুরি। উদাহরণ স্বরূপ ফ্লিপকার্ট তাদের সাইটে flipkart assured লেবেল ও আবার আমাজন amazon fulfilled লেবেল ব্যবহার করে।

অনলাইনে পেমেন্টে কার্ডের তথ্য সেভ করবেন না:

অনলাইন পেমেন্ট করার সময় আমরা দ্রুততার জন্য ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ডের তথ্য সেভ করে রাখি। কিন্তু এটা কখনোই করা উচিত নয়। এইভাবে সেভ করে রাখার ফলে যদি ওই ওয়েবসাইট কখনো হ্যাক হয় তবে আপনার তথ্য হ্যাকারদের কাছে চলে যায়।

পড়ুন : অনলাইনে কেনাকাটা করে প্রতারিত হাজার হাজার মানুষ, শুরু হয়েছে নতুন স্ক্যাম

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

টেক ভিডিও দেখার জন্য আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন – এখানে ক্লিক করুন

সমস্ত খবরের আপডেট পেতে এখানে লাইক দিন!