Cryptocurrency: ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগের নামে অর্থ চুরি, ফোন থেকে এক্ষুনি ডিলিট করুন এই আটটি অ্যাপ

8-fake-cryptocurrency-android-apps-that-scammed-users-remove-from-google-play-store

এই মুহুর্তে গোটা বিশ্বে ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে উন্মাদনা তুঙ্গে। অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ডিজিটাল মুদ্রার প্রভাব ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। ক্রিপ্টোকারেন্সির মূল্যবৃদ্ধি কেবল বিনিয়োগকারীদের মধ্যেই নয়, সাধারণ মানুষকেও এটির প্রতি চরমভাবে আকৃষ্ট করেছে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি দেশ ক্রিপ্টোকে বৈধ বলে ঘোষণা করেছে, আবার অন্যদিকে আর্থিক স্থিতিশীলতা ও বৃহত্তর অর্থনীতির ওপর ক্রিপ্টোর নেতিবাচক প্রভাব বিস্তার নিয়েও রীতিমতো উদ্বিগ্ন কিছু দেশ।

কিন্তু সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয়টি হল, ক্রিপ্টোকারেন্সির এই তুমুল জনপ্রিয়তাকে প্রত্যক্ষ করে সাইবার জালিয়াতি কিন্তু ব্যাপকভাবে মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। স্কুইড কয়েন, ডোজকয়েন থেকে শুরু করে শিবা ইনুর মতো নিত্যনতুন ক্রিপ্টোকয়েনের মার্কেটে প্রচলন ও তাদের আকাশছোঁয়া বাজার মূল্য একদিকে যেমন লগ্নিকারীদের প্রলুব্ধ করছে, সেইসাথে বাড়িয়ে তুলেছে কারচুপি, জালিয়াতির মতো ঝুঁকিও। বিষয়টি সম্পর্কে বিশদে তদন্ত করে বিশেষজ্ঞরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন, যে কোনো গোষ্ঠীই বর্তমানে একটি অ্যাপ তৈরি করতে এবং তা থেকে মার্কেটে নতুন কয়েন চালু করতে সক্ষম। ফলে সাইবার জালিয়াতির শিকার হয়ে মানুষের কষ্টার্জিত অর্থ খোয়ানোর সম্ভাবনা যে উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেকথা নিঃসন্দেহে বলাই বাহুল্য।

উল্লেখ্য যে, ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (FBI) বিটকয়েন এবং ক্রিপ্টোকারেন্সি ক্রেতা, এক্সচেঞ্জ এবং পেমেন্ট প্ল্যাটফর্মগুলিকে বিটকয়েন এবং ক্রিপ্টো-সম্পদ চুরি করতে চাওয়া অপরাধীদের ক্রমবর্ধমান আধিপত্য তথা প্রভাব বিস্তার সম্পর্কে ইতিমধ্যেই সতর্ক করেছে। আবার সম্প্রতি Google-ও ৮টি ভুয়ো ক্রিপ্টোকারেন্সি Android অ্যাপ তাদের অ্যাপ স্টোর থেকে সরিয়ে নিয়েছে, যেগুলির মাধ্যমে একাধিক ব্যবহারকারী সাইবার জালিয়াতির শিকার হয়েছেন। এই অ্যাপগুলি ক্রিপ্টোকারেন্সি ক্লাউড মাইনিং অ্যাপ্লিকেশনের ছদ্মবেশ ধারণ করে, ইউজারদের একাধিক বিজ্ঞাপন দেখিয়ে বিভিন্ন সাবস্ক্রিপশন সার্ভিসে অর্থ প্রদান করতে প্রলুব্ধ করে। নীচে এই ৮ টি অ্যাপের কথা উল্লেখ করা হল। আপনার ফোনে যদি এই অ্যাপগুলি থেকে থাকে, তাহলে সেগুলিকে অবিলম্বে ডিলিট করুন।

BitFunds

এটি একটি ক্রিপ্টো ক্লাউড মাইনিং অ্যাপ্লিকেশন হতে পারে বলে অনুমান করা হয়।

Bitcoin Miner

বিটকয়েন মাইনার একটি ক্লাউড মাইনিং অ্যাপ্লিকেশন বলে দাবি করে।

Bitcoin (BTC)

এটিকে একটি পুল মাইনিং ক্লাউড ওয়ালেট অ্যাপ্লিকেশন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

Crypto Holic

এটি একটি পেইড অ্যাপ। ক্রিপ্টো হোলিক-কে একটি বিটকয়েন ক্লাউড মাইনিং অ্যাপ্লিকেশন হিসেবে ধরে নেওয়া হয়।

Daily Biton Rewards 

ডেইলি বিটকয়েন রিওয়ার্ডস-কে একটি ক্লাউড ভিত্তিক মাইনিং সিস্টেম অ্যাপ্লিকেশন হিসেবে অনুমান করা হয়।

Bitcoin 2021

এই ক্রিপ্টোকারেন্সি অ্যাপটিও ব্যবহারকারীদের একাধিক বিজ্ঞাপনে ক্লিক করতে প্ররোচিত করে, যাতে আপাতদৃষ্টিতে মনে হয় যে, ব্যবহারকারীরা নিজেরাই যেহেতু ক্লিক করেছেন তাই কোনোভাবেই তাদের এই কাজের জন্য প্রলুব্ধ করা হয়নি।

MineBit Pro

এই অ্যাপটিকে একটি ক্রিপ্টো ক্লাউড মাইনিং এবং বিটিসি মাইনার হিসেবে অনুমান করা হয়।

Ethereum

এই অ্যাপটি একটি পুল মাইনিং ক্লাউড অ্যাপ্লিকেশন হতে পারে বলে মনে করা হয়।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।