ফের রিচার্জ প্ল্যানের দাম বাড়াতে চলেছে Airtel থেকে Vodafone Idea

আরো একবার টেলিকম অপারেটর গুলি রিচার্জ ট্যারিফের দাম বাড়াতে পারে! ICICI ব্যাঙ্কের সহযোগী আইসিআইসিআই সিকিউরিটি সম্প্রতি এই আশঙ্কার কথা শুনিয়েছে। স্মরণ করিয়ে দিই, গত বছর ডিসেম্বরেও টেলিকম অপারেটররা প্রায় ২৫-৪০ শতাংশ হারে ট্যারিফ মূল্য বৃদ্ধি করেছিল। ফলে এক বছর যেতে না যেতেই ট্যারিফ মূল্যে আরো একবার পরিবর্তন সাধারণ মানুষের পক্ষে একটু বেশি মহার্ঘ হবে বলেই মনে করা হচ্ছে! যদিও এই সুযোগে টেলিকম অপারেটরগুলির মুনাফা যে অনেকটাই বাড়বে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

আইসিআইসিআই সিকিউরিটি জানিয়েছে, সামনের বছর টেলিকম ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কিছু সংস্কার করা হতে পারে। এর ফলে টেলিকম অপারেটরদের আয় আগের থেকে আরো বৃদ্ধি পাবে। একইসাথে ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম ওয়্যারলেস অপারেটর ভোডাফোন আইডিয়া লিমিটেডের জন্যেও ২০২১ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে বলে আইসিআইসিআই সিকিউরিটির দাবী।

কোভিড-উত্তরকালে রিচার্জ ট্যারিফের মূল্যবৃদ্ধি সাধারণ মানুষকে যথেষ্ট বেগ দেবে সে বিষয় নিশ্চিত। তবু ভারতের সব টেলিকম অপারেটরই এই মূল্যবৃদ্ধির ব্যাপারে তৎপর। এইজন্য অনেকদিন ধরেই তারা টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া বা TRAI এর কাছে দরবার করে চলেছে। অতিমারিতে অর্থনৈতিকভাবে বিপন্ন মানুষ এবং অনির্দিষ্ট ফ্লোর প্রাইস রেটের কারণেই তারা এতদিন রিচার্জ ট্যারিফের দাম বাড়াতে পারেনি। কিন্তু আগামী দিনে এই যুক্তি দিয়ে আর কোনভাবেই টেলিকম অপারেটরদের নিরস্ত করা যাবেনা বলেই আইসিআইসিআই এর সহায়ক ফার্মটি জানিয়েছে। সুতরাং রিচার্জ ট্যারিফের মূল্যবৃদ্ধি এখন আর কিছু সময়ের অপেক্ষা।

ট্যারিফের দাম বাড়ানোর ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম এগিয়ে আসতে পারে ভোডাফোন-আইডিয়া লিমিটেড। ফ্লোর প্রাইসের নিশ্চয়তা এবং TRAI এর তরফ থেকে সবুজ সংকেত পেলেই Vi ট্যারিফ মূল্য বাড়াতে পারে। সেক্ষেত্রে ২০২১ সালের মার্চ মাস নাগাদ বর্ধিত ট্যারিফ মূল্য কার্যকর হবে। ট্যারিফ মূল্য বাড়লে Airtel এবং Vodafone Idea Limited এর বার্ষিক মুনাফা প্রায় কুড়ি শতাংশ বৃদ্ধি পাবে বলে আইসিআইসিআই সিকিউরিটি দাবী করেছে।

তাছাড়া তারা জানিয়েছে 4G পরিষেবা বিস্তারের ক্ষেত্রেও ২০২১ সাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। একটি হিসেবে তারা দেখিয়েছে যে চলতি বছরে ৪জি ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৭ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে বর্তমানে এর প্রায় ৬৪৬ মিলিয়ন ইউজার বেস রয়েছে। এক্ষেত্রে রিলায়েন্স জিও’র কৃতিত্ব সবথেকে বেশি। মার্চ, ২০২০ এর মধ্যে তারা এককভাবে ১০০ মিলিয়ন মানুষকে ৪জি পরিষেবার আওতায় এনেছে। আগামী বছরেও জিও ৪জি ব্যবহারকারীরা সংখ্যা আরো বাড়াবে বলেই আইসিআইসিআই সিকিউরিটি জানিয়েছে। সেক্ষেত্রে এয়ারটেল ও ভোডাফোন-আইডিয়া লিমিটেডের মতো সংস্থা Reliance Jio -র সাথে কতটা পাল্লা দিতে পারে সেটাই দেখার।

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই রিলায়েন্স জিও সস্তা ৪জি স্মার্টফোন তৈরীর ব্যাপারে চীনা সংস্থা রিয়েলমি এর সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে। ৪জি ব্যবহারকারীর সংখ্যা আরো বৃদ্ধি পেলে বাকি টেলিকম অপারেটরেরাও ৪জি স্মার্টফোন ব্যবসার গতি বাড়াতে বিশেষ ভর্তুকি ঘোষণা করতে পারে বলে মনে হয়।

One of the newest members of the Techgup Family. Soumo grew his liking for gadgets almost a decade back while searching for his first smartphone, and started writing about tech recently in 2020