দেশ উন্নত না হলে রাতারাতি চীনা স্মার্টফোন বর্জন সম্ভব নয়, বুঝিয়ে দিল ওয়ানপ্লাস ও শাওমি

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত এবং চীনের মধ্যে সংঘর্ষের কারণে আরো একবার চীন বিরোধী মনোভাব মানুষের মধ্যে এসেছে। ভারতের বহু মানুষ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে #boycottchinaproducts স্লোগান নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন। তবে তা ভারতে নতুন চীনা দ্রব্যের বিক্রিতে কোন রকম প্রভাব ফেলতে পারেনি। আপাতত ওয়ানপ্লাস ও শাওমির নতুন প্রোডাক্টের সেল দেখে তো তাই বলা চলে।

তবে প্রশ্ন হল কেন মানুষ সোশ্যাল মিডিয়ায় চীনা প্রোডাক্ট বর্জনের দাবি করেও, সেই প্রোডাক্ট আবার কিনছে। মার্কেটে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, রাতারাতি এভাবে চীনা প্রোডাক্ট বর্জন সম্ভব নয়। কারণ ভারত হার্ডওয়্যারের ক্ষেত্রে এখনও অনেকটা পিছিয়ে। তাই এইমুহূর্তে চীনা সফটওয়্যার বর্জন করা গেলেও স্মার্টফোন সহ বেশকিছু গ্যাজেট বয়কট করা বোকামি। কারণ ভারতীয় স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো ও চীন থেকে থেকে কাঁচামাল এনে নিজেদের লেভেল লাগিয়ে বেশি দামে এখানে বিক্রি করে এবং তাদের কোয়ালিটি ও ভালো হয়না। সেই কারণেই মানুষ বাধ্য হয়ে সস্তায় চীনা প্রোডাক্ট কিনতে উৎসাহ দেখাচ্ছে।

• ওয়ানপ্লাস ৮ সিরিজের স্মার্টফোন মুহূর্তে বিক্রি হয়ে গেছে –

চীনের স্মার্টফোন কোম্পানি ওয়ানপ্লাস তাদের নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন OnePlus 8 এবং OnePlus 8 Pro লঞ্চ করেছিল গত ১৫ই জুন। এবং এই দুটি ফোনের সেল অনুষ্ঠিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই কিছু মিনিটের মধ্যে এই স্মার্টফোনের স্টক সম্পূর্ণরূপে শেষ হয়ে যায়।

এই ব্র্যান্ড তাদের স্মার্টফোন সিরিজ ওয়ান প্লাস ৮-র প্রথম ব্যাচ বিক্রি করে ১৫ জুন তারিখে এবং তারপরেই ১৮ই জুন এই স্মার্টফোনের দ্বিতীয় সেল শুরু হয়। এই দ্বিতীয় সেলেও মানুষ ওয়ানপ্লাস ৮ সিরিজের প্রচুর স্মার্টফোন কেনে।

ওয়ানপ্লাস সিরিজের স্মার্টফোন কম দামের মধ্যে ভালো ফিচার ব্যবহারকারীদের দিয়ে থাকে। একটু কম দামের মধ্যে ফ্ল্যাগশিপ ফিচার যুক্ত স্মার্টফোন নিয়ে আসার কারণে ওয়ানপ্লাস ব্যবহারকারীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়।

• শাওমির নতুন লঞ্চ করা ল্যাপটপগুলিও বিক্রি হচ্ছে দেদার –

শাওমি হল ভারতের এক নম্বর স্মার্টফোন কোম্পানি। তবে কিছুদিন আগে কোম্পানি ভারতে তাদের প্রথম ল্যাপটপ লঞ্চ করে, যার সেল ছিল ১৭ই জুন। এই সেলে ল্যাপটপটি খুব ভালো বিক্রি হয়েছে। কোম্পানি তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে গ্রাহকরা শাওমির প্রথম ল্যাপটপকে বেশ পছন্দ করেছেন। খুবই কম সময়ের মধ্যে শাওমির অফিশিয়াল ওয়েবসাইট mi.com-এ এই ল্যাপটপের প্রথম ব্যাচ বিক্রি হয়ে গেছে। খুবই তাড়াতাড়ি এই ল্যাপটপের দ্বিতীয় ব্যাচের সেল শুরু হতে চলেছে। কোম্পানির বিশ্বাস যে দ্বিতীয় সেলেও শাওমি ল্যাপটপ জনপ্রিয়তা লাভ করবে।

কিন্তু কেন মানুষ সোশ্যাল মিডিয়ায় চীনা প্রোডাক্ট বর্জনের