বিমানে যাত্রার সময় আগুন ধরে গেল Apple iPhone XR-এ

apple-iphone-xr-gets-crushed-catches-fire-in-uk-plane

ফোনে হঠাৎ করে আগুন ধরে যাবার ঘটনা আমাদের কাছে নতুন কিছু নয়। প্রায়শই এই জাতীয় খবর আমাদের কানে এসে পৌঁছায়। কিন্তু এবার একটি অত্যন্ত চাঞ্চল্যকর তথা বিরল দুর্ঘটনার কথা আমাদের সামনে উঠে এসেছে। উড়ন্ত অবস্থায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের বোয়িং ৭৮৭-৯-এ একটি Apple iPhone XR বিমানের আসনের নীচে পিষ্ট হয়ে যাওয়ার তাতে আগুন ধরে যায়! হ্যাঁ, আপনি ঠিকই শুনছেন। অবিশ্বাস্য হলেও এমনই একটি ঘটনা ব্রিটেনের এয়ার অ্যাক্সিডেন্টস ইনভেস্টিগেশন ব্রাঞ্চের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে। দুর্ঘটনাটি ঘটেছিল ২০২০ সালের ১ অক্টোবর।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিয়ামি থেকে হিথরোগামী এক মহিলা যাত্রী প্রথমে ফোনটিকে তার সিটের পাশে নামিয়ে দিয়েছিলেন। পরে ঘটনাটি সম্পর্কে সম্পূর্ণ অজ্ঞাত অবস্থায়, এক কেবিন ক্রু-এর ঘোষণা শুনে বিমানটি অবতরণের ৪০ মিনিট আগে তিনি যখন তাঁর সিটটি লাই-ফ্ল্যাট বেড থেকে প্রচলিত পজিশনে নিয়ে আসেন, তখনই ফোনটি পিষ্ট হয়ে যায় বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়া ওই মহিলার অতিরিক্ত ওজনও এর কারণ হতে পারে।

উপরে উল্লিখিত ঘোষণাটি শুনে ওই মহিলা জেগে উঠে সিট পরিবর্তন করে যখন ওয়াশরুমে যাচ্ছিলেন, তখন তাকে এক কেবিন ক্রু জিজ্ঞেস করে যে তিনি তাঁর সিটটি ‘স্টো’ করতে পারবেন কি না। যখন তিনি তা করতে যান, তখন একটি তীব্র “সালফার” জাতীয় গন্ধ অনুভব করেন এবং লক্ষ্য করেন যে, একটি চার্জিং কেবিল তার সিটের সংলগ্ন সকেটে লাগানো আছে, এবং অপর প্রান্তটি তার সিটের পাশে আটকে রয়েছে যেখানে তার ফোনটি ছিল। চিন্তিত হয়ে যখন তিনি বিষয়টি এক কেবিন ক্রু সদস্যকে বলেন, তখন তারা একটি “হিসিং” শব্দ শুনতে পান এবং “টর্নেডো” গতিতে সিটের পাশ থেকে কমলা আভামিশ্রিত ধূসর ধোঁয়ার কুণ্ডলী নির্গত হতে দেখেন।

এরপর ক্রু সদস্যরা খেয়াল করেন যে, সিট মেকানিজমের ভিতরে একটি লাল মোবাইল ফোন আটকা পড়ে আছে। ক্রুরা ডিভাইসটি সরানোর চেষ্টা করলেও সেটি জ্যাম হয়ে গিয়েছিল এবং ওই অবস্থায় ডিভাইসটি খুব সামান্য গরম ছিল। তারা তৎক্ষণাৎ ডিভাইসটিকে আনপ্লাগ করে এবং পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণে আনতে অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র ব্যবহার করে। ধোঁয়ার উৎস স্পষ্টভাবে শনাক্ত করার পরে যখন দেখা যায় যে ধোঁয়ার কোনও গৌণ উৎস নেই, তখন পাইলট গন্তব্যস্থল হিথরো বিমানবন্দরেই বিমানটির অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন।

ঘটনাটি খুব দুর্ভাগ্যজনক হলেও খুশির খবর এটাই যে এর ফলে বিমানটির কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি এবং কোন যাত্রী চোট পাননি। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, বিমানটিতে ৫৩ জন যাত্রী এবং ১০ জন ক্রু সদস্য ছিলেন।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন