Apple Watch Series 7: আরও বড় ও উজ্জ্বল ডিসপ্লে সহ এল নতুন অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭

Apple Watch Series 7-এ পাওয়া যাবে ব্লাড অক্সিজেন স্যাচুরেশন ট্র্যাকিং, হার্ট রেট মনিটরিং, স্পোর্টস মোড, দুটি 'ইউনিক' ওয়াচ ফেস এবং কোয়ার্টি কীপ্যাড

apple-watch-series-7-launched-with-qwerty-keypad-eec-support-price-in-india-specifications

গতকাল “ক্যালিফোর্নিয়া স্ট্রিমিং” ইভেন্টে iphone 13 সিরিজের সাথেই Apple Watch Series 7 স্মার্টওয়াচ লঞ্চ করা হয়েছে। ৮তম প্রজন্মের এই লেটেস্ট ওয়্যারেবলটি Watch Series 6 এর উত্তরসূরি। একদম নয়া ডিজাইন ও আপগ্রেডেড ফিচারের সাথে এসেছে এই স্মার্টওয়াচ। Apple Watch Series 7-এ পাওয়া যাবে ব্লাড অক্সিজেন স্যাচুরেশন ট্র্যাকিং, হার্ট রেট মনিটরিং, স্পোর্টস মোড, দুটি ‘ইউনিক’ ওয়াচ ফেস এবং কোয়ার্টি কীপ্যাড। এতে পূর্বসূরির তুলনায় ২০% এবং এন্ট্রি-লেভেল Series 3 মডেলের তুলনায় ৫০% বড়ো ও উজ্জ্বল ডিসপ্লে দেখা যাবে। শুধু তাই নয়, এই ওয়াচ স্বল্প সময়ের মধ্যেই ECG রিপোর্টের রেজাল্ট দেখিয়ে দিতে পারবে। সর্বোপরি, এই ডিভাইস ১৮ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাটারি লাইফ অফার করবে বলে দাবি করেছে অ্যাপেল।

Apple Watch Series 7 দাম

অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭ জিপিএস মডেলের দাম ৩৯৯ ডলার (প্রায় ২৯,৪০০ টাকা) রাখা হয়েছে। অন্যদিকে, ওয়াচ সিরিজ ৭ জিপিএস + সেলুলার অপশনের দাম শুরু হচ্ছে ৪৯৯ ডলার (প্রায় ৩৮,৮০০ টাকা) থেকে। এগুলিকে মিডনাইট, স্টারলাইট, গ্রিন, ব্লু এবং রেড কালারে পাওয়া যাবে।

নবাগত স্মার্টওয়াচ সিরিজ কবে ভারতে উপলব্ধ হবে সেই সম্পর্কিত এখনো কোনো ঘোষণা করা হয়নি। তবে সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে জানানো হয়েছে, আগামী বছর ভারতে আসবে এই ওয়াচ।

Apple Watch Series 7 স্পেসিফিকেশন

পূর্বসূরি মডেলের তুলনায় ২০% বড়ো ডিসপ্লে রয়েছে অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭ -এ। ওয়্যারেবলটি ৪১মিমি এবং ৪৫মিমি কেস অপশন সহ এসেছে। অ্যাপল তাদের এই নয়া ওয়াচ সিরিজেও অলওয়েজ-অন রেটিনা ডিসপ্লে ফিচার অন্তর্ভুক্ত করেছে। এই ডিসপ্লে ওয়াচ সিরিজ ৬ এর তুলনায় ইনডোরের ক্ষেত্রে ৭০% বেশি ব্রাইটনেস অফার করবে। এতে ১.৭মিমি পুরু পাতলা বর্ডার আছে, যা ডিসপ্লে এরিয়া বাড়িয়েছে।

নবাগত অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭, ওয়াচওএস ৮ অপারেটিং সিস্টেমে চালিত। এতে একটি আপগ্রেডেড ব্রিথ অ্যাপ প্রি-লোডেড করা আছে, যা ইউজারের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যকে আরো উন্নত করতে সাহায্য করবে। এই ওয়্যারেবলে বেশ কয়েকটি হেলথ ফিচার পাওয়া যাবে। যেমন, ব্লাড অক্সিজেন স্যাচুরেশন (SpO2) ট্র্যাক করার জন্য এতে রয়েছে একটি বিল্ট-ইন ব্লাড অক্সিজেন সেন্সর। হার্ট রেট ট্র্যাক করার জন্য ওয়াচে একটি ইলেকট্রিকাল হার্ট রেট সেন্সর পাওয়া যাবে। স্মার্টওয়াচটি অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন (AFib) ডিটেক্ট করতে এবং ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম (ECG) রিপোর্ট দিতে পারে। এছাড়া, এতে স্লিপিং রেস্পিরেশন ও স্লীপ ট্রেন্ডস সহ স্লিপ ট্র্যাকিং ফিচারও আছে।

নয়া অ্যাপল ওয়াচে, কনট্যুর এবং মডুলার ডুও -এই দুটি ‘ইউনিক’ ওয়াচ ফেস আছে। এছাড়া, অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭, বড়ো ফ্রন্ট সাইজ ও নতুন কোয়ার্টি (QWERTY) কী-বোর্ড অফার করবে। অ্যাপল দাবি করেছে যে, তাদের এই লেটেস্ট স্মার্টওয়াচ একক চার্জে ১৮ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাটারি লাইফ অফার করবে। এটি পূর্বসূরিদের তুলনায় ৩৩% অধিক ফাস্ট চার্জ হবে। আর ডিভাইসটিকে চার্জ করার জন্য এর রিটেল বক্সে একটি ম্যাগনেটিক ফাস্ট চার্জার ইউএসবি-সি কেবল সামিল থাকছে। এই স্মার্টওয়াচ IP6X রেটিং প্রাপ্ত, ফলে এটি ধুলো রোধী। আবার, জল প্রতিরোধের জন্য অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৭ WR50 সার্টিফিকেশন সহ এসেছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।