ফোন হ্যাকের সম্ভবনা থাকলেও ব্যান উঠলো VLC Media Player -র উপর থেকে

নিষেধাজ্ঞা উঠতেই কয়েক কোটি গ্রাহক ইতিমধ্যেই ডাউনলোড করে ফেলেছেন VLC Media Player

VLC Media Player ban lifted up in India

বিশ্বের সবথেকে জনপ্রিয় মিডিয়া প্লেয়ারগুলির মধ্যে অন্যতম একটি হল VLC Media Player। বিনামূল্যে উপলব্ধ এই অ্যাপটি ডেস্কটপ, মোবাইল কিংবা আইপ্যাড সহ যে-কোনো ডিভাইসে খুবই কম পরিমাণ স্টোরেজ স্পেস দখল করে থাকে। এর ফলে বেশিরভাগ ডিভাইসেই অডিও এবং ভিডিও প্লে করার জন্য ইউজাররা প্যারিসভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ভিডিওল্যান (VideoLAN) কর্তৃক নির্মিত এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করেন। তবে ২০১১ সালে প্রথম মার্কেটে লঞ্চ হওয়া এই অ্যাপটি একদশকেরও বেশি সময় ধরে ইউজারদের পছন্দের তালিকায় থাকলেও, কয়েক মাস আগেই ভারতে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল VLC Media Player। এর ফলে এদেশে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারছিলেন না ব্যবহারকারীরা। তবে এখন ভারতে এই অ্যাপের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। ফলে এদেশে ফের ডাউনলোড করা যাচ্ছে এই মাল্টিমিডিয়া প্লেয়ার।

নিষেধাজ্ঞা উঠতেই কয়েক কোটি গ্রাহক ইতিমধ্যেই ডাউনলোড করে ফেলেছেন VLC Media Player

ইন্টারনেট ফ্রিডম ফাউন্ডেশন বা আইএফএফ (IFF) জানিয়েছে যে, বর্তমানে এই অ্যাপটির ওপর জারি করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে। আইএফএফ-এর দাবি অনুযায়ী, ভারতে নিষেধাজ্ঞার পর তারা ওই সংস্থাকে আইনি সাহায্য করেছে। ফলে এখন ব্যবহারকারীরা ভিডিওল্যানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ারের লেটেস্ট ভার্সনটি ডাউনলোড করতে পারবেন। জানা গিয়েছে যে, প্রায় ৭.৩ কোটি গ্রাহক কোম্পানির ওয়েবসাইট থেকে এই সফ্টওয়্যার ইতিমধ্যেই ডাউনলোড করেছেন।

উল্লেখ্য যে, সরকার কর্তৃক আরোপিত নিষেধাজ্ঞার পরে ব্যবহারকারীরা ভিডিওল্যানের ওয়েবসাইট থেকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে পারছিলেন না। এতদিন পর্যন্ত ওয়েবসাইটটি ওপেন করলেই ইউজারদের চোখে পড়ছিল একটি নোটিশ, যাতে লেখা ছিল, “আইটি আইন, ২০২০-এর অধীনে ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় ওয়েবসাইটটিকে ব্লক করেছে।” যদিও কেন ভারতে ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার নিষিদ্ধ করা হয়েছিল, তার কোনো সঠিক কারণ সরকারের তরফে জানানো হয়নি। তবে এখন এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় অ্যাপটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আর কোনো বাধা রইল না।

নিষেধাজ্ঞার সঠিক কারণ জানতে চেয়ে সংস্থাটি মন্ত্রণালয়কে একটি আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিল

এই প্রসঙ্গে বলে রাখি, ভারতে কেন তাদের সার্ভিস নিষিদ্ধ করা হয়েছে, তার সঠিক কারণ জানতে চেয়ে চলতি বছরের অক্টোবরে কেন্দ্রকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিল ভিএলসি-র নির্মাতা সংস্থা ভিডিওল্যান। নোটিশে বলা হয় যে, সরকার যদি এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের যথাযথ কারণ না জানায়, তাহলে এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সংস্থাটি অভিযোগ করেছিল যে, সরকার কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়াই এই মিডিয়া প্লেয়ারকে ভারতে নিষিদ্ধ করেছে। 

উল্লেখ্য যে, যদিও এই নিষেধাজ্ঞার সঠিক কারণ সম্পর্কে সরকার বিশদে কিছু জানায়নি, তবে এ ব্যাপারে বেশ কয়েকটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল যে, কুখ্যাত চীনা হ্যাকিং গ্রুপ সিকাডা (Cicada) সাইবার আক্রমণের জন্য এই প্ল্যাটফর্মটিকে ব্যবহার করছে। নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা জানতে পেরেছিলেন যে, সুদূরপ্রসারী সাইবার হানাদারি অভিযানের অঙ্গ হিসেবে VLC Media Player-কে ব্যবহার করে মারাত্মক ম্যালওয়্যার ছড়িয়ে দিচ্ছে সিকাডা। অর্থাৎ, এই অ্যাপটি মোবাইল কিংবা কম্পিউটারে ডাউনলোড করলেই ইউজারদের ডিভাইসে ঢুকে পড়বে ক্ষতিকারক ম্যালওয়্যার, আর সেই কারণেই ভারতে এই অ্যাপটিকে ব্যান করা হয়েছে বলে ধরে নেওয়া হয়েছিল। তবে সম্প্রতি এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় শেষমেশ সব তর্কবিতর্কের নিষ্পত্তি হল।