বাজেট ও মিড রেঞ্জে নতুন চারটি স্মার্টফোন আনছে Asus

asus-working-on-four-budget-and-mid-range-smartphones

আবার বাজারে বাজেট ফোন নিয়ে হাজির হবে Asus। আসলে ২০১৮ সালে কোম্পানির Jerry Shen পদত্যাগ করলে, আসুস আর বাজেট ফোন তৈরির কথা ভাবেনি। যদিও কোম্পানির স্টক অ্যান্ড্রয়েডের বাজেট সিরিজ, Max Pro যথেষ্ট জনপ্রিয় ছিল। কিন্তু এখন Asus ফ্ল্যাগশিপ ও গেমিং ফোনের ওপর কাজ করছে। কয়েক সপ্তাহ আগেই কোম্পানি দুর্দান্ত স্পেসিফিকেশন সহ তাদের এবছরের গেমিং ফোন Asus ROG Phone 3 লঞ্চ করেছিল। এছাড়াও এই সপ্তাহে কোম্পানি ফ্ল্যাগশিপ ফোন হিসাবে Asus ZenFone 7 এবং ZenFone 7 Pro লঞ্চ করেছে।

তবে টিপ্সটার অভিষেক যাদব জানিয়েছেন, Asus চারটি বাজেট ও মিড রেঞ্জ ফোন লঞ্চ করতে পারে। অভিষেক তার টুইটে লেখেন, আসুস চারটি প্রসেসর নিয়ে কাজ করছে। যাদের কোডনেম – Lito, Lagoon, Bengal এবং Scuba। বাস্তবে Lito কোডনেম দ্বারা আমরা স্ন্যাপড্রাগন ৭৬৫জি প্রসেসরকে জানি। আবার Lagoon, Bengal এবং Scuba যথাক্রমে স্ন্যাপড্রাগন ৬৯০ ৫জি, স্ন্যাপড্রাগন ৬৬২/৪৬০ ও স্ন্যাপড্রাগন ২০০ সিরিজের কোডনেম।

এই টুইটে অভিষেক আসুসের এই ফোনগুলির নামও জানিয়েছেন। টুইট থেকে পরিষ্কার কোম্পানি Asus Max M3 সিরিজের ওপর কাজ করছে। কারণ টুইটে যে তিনটি ফোনের নাম বলা হয়েছে, সেগুলি হল ASUS Max M3, Max Pro M3, এবং Max M3 Lite। যদিও এই ফোনগুলির স্পেসিফিকেশন ও লঞ্চ ডেট নিয়ে কোনো তথ্য অভিষেক দেয়নি।

Asus Zenfone Max Pro M2:

এই বাজেট ফোনকে আসুস ৬.২৬ ইঞ্চির একটি আইপিএস এলসিডি স্ক্রিন সহ লঞ্চ করেছিল। যার আসপেক্ট রেশিও ছিল ১৯:৯ এবং স্ক্রিন রেজুলেশন ১০৮০×২২৮০ পিক্সেল। এই স্ক্রিনে গোরিলা গ্লাস ৬ ব্যবহার করা হয়েছিল। এই স্মার্টফোনটি তিনটি স্টোরেজ বিকল্পের সাথে লঞ্চ হয়েছিল- ৩ জিবি র‌্যাম + ৩২ জিবি স্টোরেজ, ৪ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজ এবং ৬ জিবি র‌্যাম + ৬৪ জিবি স্টোরেজ। প্রসেসরের কথা বললে এই ফোনে অক্টা কোর স্ন্যাপড্রাগন ৬৬০ প্রসেসর দেওয়া হয়েছিল, যার ক্লক স্পিড ছিল ১.৯৫ গিগাহার্ত্জ।

ফটোগ্রাফির জন্য এই স্মার্টফোনে ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা ছিল যার প্রধান টি ১২ মেগাপিক্সেল ও অপরটি EXMOR-RS CMO সেন্সরের সাথে ৫ মেগাপিক্সেল। এই ক্যামেরায় অটোফোকাস, ফেস ডিটেকশান, HDR মোড দেওয়া হয়েছিল। পিছনের ক্যামেরায় LED ফ্ল্যাশ ও উপলব্ধ ছিল। আবার সামনে ১৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছিল। আসুস জেনফোন ম্যাক্স প্রো এম২ ফোনে কোয়ালকম কুইক চার্জের সাথে ৫০০০ এমএএইচ এর ব্যাটারি ছিল, যেটি আপনাকে ৪০ ঘন্টার 3G কলিং টকটাইম দেবে। চার্জিংয়ের জন্য এখানে ছিল মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট।