বিজ্ঞানের নতুন আবিষ্কার, মঙ্গল গ্রহে সভ্যতা তৈরিতে লাগবে ন্যূনতম ১১০ জন মানুষ

মঙ্গলে যদি কোন সভ্যতা তৈরি করতে হয় তাহলে ন্যূনতম ১১০ মানুষকে পৃথিবী থেকে মঙ্গলে পাঠাতে হবে। এমনই একটি তথ্য উঠে এসেছে একটি রিসার্চে। রিসার্চটি করা হয়েছিল যাতে জানতে পারা যায় যে, কতজন মানুষের প্রয়োজন হবে পৃথিবী থেকে বাইরে ব্রহ্মান্ডের অন্য জায়গায় সভ্যতা তৈরি করতে।

বোর্ডিক্স ইনস্টিটিউট ন্যাশনাল পলিটেকনিকের জীণ মার্ক সালোতি, গণিতের হিসেব কষে এই বিষয়টি খুঁজে বের করেছেন। তিনি শুধুমাত্র এটা বের করেননি যে কতজন প্রয়োজন মঙ্গলে সভ্যতা তৈরি করতে, বরং কিভাবে তারা মঙ্গলে জীবন যাপন করতে পারবেন তাও বের করেছেন। তবে তাদের জীবন অন্য গ্রহে গেলে সম্পূর্ণরূপে স্বনির্ভর হতে হবে।

তিনি জানিয়েছেন যে ন্যূনতম ১১০ জন মানুষকে মঙ্গলে পৌঁছতেই হবে যদি কোন সভ্যতা তৈরি করতে হয়। এছাড়া যদি আরও বেশি মানুষ মঙ্গলে যান তাহলে সমীকরণ আলাদা হবে।

এছাড়াও তিনি জানিয়েছেন যে, এই মানুষদের সফলতা নির্ভর করবে যে কিরম ভাবে তারা কাজ করবেন। যদি তারা একসাথে মিলে সময় এবং স্ফূর্তি দিয়ে কাজ না করেন তাহলে হয়তো সভ্যতা তৈরি করা এতটা সহজ হবে না। প্রফেসর সালোতি বলেছেন, এই বিষয়টি এখন সঠিকভাবে পর্যালোচনা করা হয়নি। তবে মানব সভ্যতার উপর এই বিষয়ে প্রভাব ভবিষ্যতে পড়বে।

পৃথিবীতে জীবনযাপন কোন এক সময় কোন এক কারণের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এবং সেই সময় মানব সভ্যতার কাছে বেঁচে থাকার একমাত্র উপায় হবে যদি মানুষ সেই সময় মঙ্গল অথবা অন্যান্য গ্রহে গিয়ে বসবাস করতে শুরু করে। ইতিমধ্যেই, এলন মাস্কের কোম্পানি স্পেসএক্স মঙ্গলে মহাকাশযান পাঠিয়ে মঙ্গলকে মানুষের বসবাসযোগ্য করার প্রচেষ্টায় রয়েছে।

তারা জানিয়েছে যে, এই মহাকাশযানে করে মানুষকে মঙ্গলে নিয়ে যাওয়া সম্ভব। তবে শুধুমাত্র মঙ্গলে নিয়ে গেলেই হবে না। যদি মানব সভ্যতা গড়ে তুলতে হয়, তাহলে অধ্যাপক সালোতির গবেষণা অনুযায়ী ন্যূনতম ১১০ জন মানুষ অবশ্য প্রয়োজন।