চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দেওয়া যাচ্ছে না, এই গাড়ি ডেলিভারি পেতে 30 সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হচ্ছে

সম্প্রতি ভারতের বাজারে নয়া নির্গমন বিধি মেনে আনুষ্ঠানিকভাবে লঞ্চ হয়েছে Hyundai Creta-র নতুন প্রজন্মের (২০২৩) মডেল। যার দাম ১০.৮৪ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম) থেকে শুরু। আবার গাড়িটির টপ-স্পেক মডেলটির মূল্য ১৯.১৩ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম)। আরডিই বিধি সহায়ক ক্রেটা-র নতুন মডেলটি ৬টি এয়ারব্যাগ সহ হাজির হয়েছে।

আবার নতুন Creta-র ফিচারে আপডেট দেওয়া হয়েছে। এখন বিষয় হচ্ছে, অন্যতম বেস্ট-সেলিং গাড়ির নয়া মডেলটির ওয়েটিং পিরিয়ড ৩০ সপ্তাহ, অর্থাৎ বুকিং করার পর গাড়ির চাবি হাতে পেতে প্রায় সাড়ে সাত মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে ক্রেতাদের। আসুন Hyundai Creta-র সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিই।

Hyundai Creta ডিজেল ভ্যারিয়েন্টের ওয়েটিং পিরিয়ড

সূত্রের খবর, হুন্ডাই ক্রেটা ডিজেল ভ্যারিয়েন্ট E, EX এবং S ডেলিভারি পেতে বর্তমানে প্রায় ৬-৭ মাস অপেক্ষা করতে হবে। আবার S+ এবং SX(O)-এর ডেলিভারি পেতে ৬ মাস ধৈর্য্য ধরে থাকতে হবে। এদিকে SX ভ্যারিয়েন্টটির ওয়েটিং পিরিয়ড ৫ মাস।

Hyundai Creta পেট্রোল ভ্যারিয়েন্টের ওয়েটিং পিরিয়ড

হুন্ডাই ক্রেটা-র S ভ্যারিয়েন্টের ডেলিভারি পেতে সাত মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে। যেখানে SX (O) iVT মডেলটি বুকিংয়ের পাঁচ মাসের মধ্যেই ডেলিভারি দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে E ভ্যারিয়েন্টের ওয়েটিং পিরিয়ড চার মাস বলে ঘোষণা করা হয়েছে। যেখানে EX ও SX iVT-র চাবি হাতে পেতে তিন মাস অপেক্ষা করতে হবে।

এদিকে, Hyundai Creta S+, SE ও SX ভ্যারিয়েন্টগুলি বর্তমানে বুকিংয়ের দুই মাসের মধ্যেই ডেলিভারি দেওয়া হচ্ছে। সংস্থার লাইনআপের মধ্যে যা নূন্যতম ওয়েটিং পিরিয়ড। বর্তমানে সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং সমস্ত স্বীকৃত ডিলারশিপ থেকে ২৫,০০০ টাকা দিয়ে গাড়িটির বুকিং করা যাচ্ছে।