মধ্যবিত্তের উপর চাপ বাড়িয়ে জানুয়ারি থেকে গাড়ির দাম বৃদ্ধির ঘোষণা করল Maruti Suzuki

Maruti Suzuki increase Car Prices from January

“এক রামে রক্ষে নেই, সুগ্রীব দোসর” – বিষয়টা অনেকটা এমনই। সমগ্র বিশ্বে গগনচুম্বী জ্বালানি তেলের মূল্য চোকাতে নাকানিচুবানি অবস্থা মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষের। এহেন পরিস্থিতিতে দোসর হয়ে উঁকি দিচ্ছে গাড়ির মূল্য বৃদ্ধি। হ্যাঁ, ঠিকই শুনেছেন। এবারে ভারতের বৃহত্তম যাত্রীবাহী গাড়ি সংস্থা মারুতি সুজুকি (Maruti Suzuki) তাদের সমস্ত মডেলের দাম বাড়ানোর কথা ঘোষণা করল। যা ২০২৩-এর জানুয়ারি থেকেই দেশজুড়ে কার্যকর হবে। বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ ফাইলিংয়ের সময় আজ এ কথা জানিয়েছে ইন্দো-জাপানি সংস্থাটি।

সংস্থার তরফে মূল্যবৃদ্ধির প্রসঙ্গে সাফাই, কাঁচামালের দাম বেড়ে যাওয়ার প্রভাব সামাল দিতেই বর্ধিত মূল্যের কিয়দংশ ক্রেতাদের কাঁধে চাপানো হচ্ছে। মারুতি সুজুকি বলেছে, মডেল বিশেষে বর্ধিত মূল্যের পরিমাণ আলাদা হবে। আগামী বছর জানুয়ারি থেকেই লাগু হবে এই নতুন দাম। মারুতি সুজুকি বলেছে, বর্ধিত মূল্যের পরিমাণ যতটা সম্ভব কম রাখার চেষ্টা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গাড়িতে ব্যবহৃত বিভিন্ন যন্ত্রাংশের দাম সম্প্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে উৎপাদনের খরচও বেড়েছে। যে কারণে এ বছরের বিভিন্ন সময়ে সংস্থাটি একাধিকবার দাম বাড়ানোর পথ বেছে নিয়েছিল। এর দেখাদেখি টাটা মোটরস (Tata Motors)-ও মূল্য বৃদ্ধির পথে হাঁটে। আরেক অনুসরণকারীর মধ্যে হুন্ডাই (Hyundai) তাদের Creta, Venue, i20 ও Grand i10 NIOS-এর দাম এবছর সেপ্টেম্বরে বাড়িয়েছিল।

আবার দক্ষিণ কোরিয়ান গাড়ি সংস্থা কিয়া (Kia) তাদের Carens-এর দর ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত মহার্ঘ করার কথা ঘোষণা করেছে। এই তালিকার অন্য দুটি সংস্থা হল অডি (Audi) এবং মার্সিডিজ-বেঞ্জ (Mercedes-Benz)। এদিকে মূল্য বৃদ্ধির ফলে গাড়ির বিক্রিতে যে প্রভাব পড়ে, তা মেনে নিয়েছে সংস্থাগুলি। আবার চাহিদা বৃদ্ধির কারণে বাজারে উপলব্ধ কয়েকটি গাড়ি বুকিংয়ের পর চাবি হাতে পেতে ১৮ মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে গ্রাহকদের।