গাড়ি

Maruti-র সঙ্গে চলবে জোর টক্কর, Tata-র দুই জনপ্রিয় গাড়ির সিএনজি ভার্সন বাজারে আসছে

সিএনজি গাড়ির প্রসঙ্গ এলেই ভারতের এই ধরনের সর্বাধিক মডেলের সম্ভার মারুতি সুজুকি (Maruti Suzuki)-র ঝুলিতে। যদিও কমবেশি সকল সংস্থার পোর্টফোলিওতেই এমন বিকল্প জ্বালানির গাড়ি বর্তমান। প্রতিপক্ষের দেখাদেখি এবারে টাটা মোটরস (Tata Motors) সংশ্লিষ্ট সেগমেন্টে দাপট বাড়াতে জোর দিচ্ছে। চলতি বছরেই Tata Altroz CNG এবং Punch CNG বাজারে আসবে বলে জোরদার চর্চা চলছে। ইতিমধ্যেই গাড়ি দুটির উপর থেকে অটো এক্সপো-র মঞ্চে পর্দা সরানো হয়েছে। যা শীঘ্রই লঞ্চের জল্পনা উস্কে দিয়েছে।

বর্তমানে টাটার ঝুলিতে রয়েছে তিনটি সিএনজি গাড়ি – Tiago, Tigor ও Tiago NRG। এবারে Altroz এবং Punch-এর হাত ধরে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে সম্ভার বাড়িয়ে মারুতিকে টেক্কা দেওয়ার পরিকল্পনা করছে টাটা মোটরস। গাড়িগুলির সিএনজি ভ্যারিয়েন্টে ব্যবহার করা হবে ১.২ লিটার থ্রি-সিলিন্ডার ইঞ্জিন। যা থেকে পেট্রোল মোডে সর্বোচ্চ ৮৬ এইচপি শক্তি এবং ১১৩ এনএম টর্ক উৎপন্ন হবে। অন্যদিকে সিএনজি মোডে পাওয়া যাবে ৭৭ এইচপি শক্তি এবং ৯৭ এনএম টর্ক। পাওয়ার-ট্রেনের সাথে থাকছে একটি ফাইভ স্পিড ম্যানুয়াল ট্রান্সমিশন।

টাটা অ্যালট্রোজ ও পাঞ্চ সিএনজি গাড়ি দুটি সিএনজি মোডে রেখেই স্টার্ট করা যাবে। তবে যে কোনো সিএনজি ভার্সনের গাড়িতে পেট্রোল মডেলের চাইতে বুটস্পেস কম মেলে। এর জন্য দায়ী সিএনজি কিট। তবে মুম্বাইয়ের সংস্থাটি এই সমস্যার সমাধান খুঁজে বের করেছে। দেশের মধ্যে প্রথম সিএনজি মডেলে টুইন সিলিন্ডার ব্যবহারের মাধ্যমে এই দুর্গতি থেকে রেহাই মিলবে। ৬০ লিটারের গ্যাস ট্যাঙ্কটি দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। ফলে জায়গা কম মেলার সাথে আর আপোস করতে হবে না।

জায়গা বাড়ানোর জন্য এই সিলিন্ডার জোড়া বুট ফ্লোরের নীচে প্রতিস্থাপিত করা হবে। তাই গাড়ি দুটিতে আই-সিএনজি ব্যাজ ছাড়া আইসিই মডেলের সাথে দৃশ্যত কোনো ফারাক থাকছে না।ইন্টেরিয়রের ডিজাইনেও অভিন্নতা লক্ষ্য করা যাবে। তবে Punch CNG-এর চাইতে Altroz CNG-তে প্রিমিয়াম সরঞ্জামের দেখা বেশি মিলবে, কারণ গাড়িটির দাম তুলনামূলক বেশি হবে।

বাই-ফুয়েল প্রযুক্তি যুক্ত Altroz CNG বাজারে উপলব্ধ Baleno CNG এবং Glanza CNG-এর সাথে সম্মুখ সমরে নামবে। এর ফিচারের তালিকায় থাকছে রিয়ার এসি ভেন্টস, একটি ফ্রন্ট সেন্টার আর্মরেস্ট, অ্যাপেল কারপ্লে এবং অ্যান্ড্রয়েড অটো প্রযুক্তি সহ টাচস্ক্রিন ইনফোটেনমেন্ট সিস্টেম, অটোমেটিক ক্লাইমেট কন্ট্রোল, হাইট অ্যাডজাস্টেবল ড্রাইভার সিট, ইঞ্জিন স্টার্ট/স্টপ বাটন এবং লেদার সিট আপহোলস্টেরি। এদিকে Tata Punch CNG-এর প্রত্যক্ষ প্রতিপক্ষ নেই বললেই চলে। তবে এর সাথে টেক্কা নিতে Hyundai সিএনজি পাওয়ারট্রেন সহ তাদের একটি মাইক্রো এসইউভি চলতি বছরেই লঞ্চ করতে পারে।

Back to top button