স্টেশনে বসবে EV চার্জিং পয়েন্ট, 2030-এর মধ্যে কার্বন নিঃসরণ নেট জিরো করতে চায় ভারতীয় রেলওয়ে

Indian Railway install Electric Vehicle Chargers at Stations in 3 years

ভারতবর্ষের বুকে বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রসার ঘটাতে এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিলো এদেশের সবচেয়ে বড় পাবলিক সেক্টর ইউনিট, ইন্ডিয়ান রেল। আগামী তিন বছরের মধ্যে দেশের সমস্ত বড় রেল স্টেশনগুলিতে ইভি চার্জিং পয়েন্ট বসানোর পরিকল্পনা নিয়েছে তারা। গত মঙ্গলবার এই সম্পর্কিত একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে দ্য ইকোনমিক টাইমস (ET)। এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে দ্রুত হারে বেড়ে চলা ব্যাটারি চালিত গাড়ির শিল্পকে চাঙ্গা করতে এহেনো পদক্ষেপ সত্যিই প্রশংসনীয়।

রেলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধাপে ধাপে বিভিন্ন স্টেশনগুলিতে বসানো হবে এই চার্জিং পয়েন্টগুলি। প্রথম দফায় চার মিলিয়নের বেশি জনবসতিপূর্ণ বড় শহরগুলির অন্তরবর্তী রেল স্টেশন গুলিতে বসবে এই চারজিং পয়েন্ট। প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী আগামী ২০২৪ সালের মধ্যে মুম্বাই, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, হায়দ্রাবাদ, আমেদাবাদ, চেন্নাই, কলকাতা, পুনে ও সুরাটের অন্তর্গত স্টেশন গুলিতে চার্জিং পয়েন্ট স্থাপনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে ভারতীয় রেল।

২০২৫ সালের মধ্যে ভারতীয় রেল ব্যবস্থার অন্তর্বর্তী পরিসরে ব্যবহৃত ইন্টার্নাল কম্বাসন ইঞ্জিন (ICE) সমৃদ্ধ গাড়িগুলির ব্যবহার কমিয়ে ফেলতেই এই সিদ্ধান্তের পথে হেঁটেছে তারা। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নির্গমন শূন্য করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে তারা। ইকোনমিক টাইমসের রিপোর্ট অনুযায়ী দুটি আলাদা পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় রেলের। এর মধ্যে প্রথমটি হল বৈদ্যুতিক গাড়ির অন্তর্ভুক্তিকরণ আর দ্বিতীয়টি হল রেল স্টেশনগুলিতে চার্জিং ব্যবস্থার পরিকাঠামোর অগ্রগতি ঘটানো।

অন্যদিকে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে দ্বিতীয় দফায় চার্জিং পয়েন্ট বসানোর ভাবনাচিন্তা রয়েছে তাদের। এই দফায় এক মিলিয়নের বেশি জনবসতিপূর্ণ শহর গুলির স্টেশন গুলিতে এই কাজ করা হবে বলে জানিয়েছে তারা। আর বাকি স্টেশন গুলিতে এই কাজ করা হবে ২০২৬ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে। অবশ্যই চার্জিং পয়েন্ট বসানোর এই কাজ জোন ভিত্তিক সার্ভে করে তারপরেই করা হবে বলে জানিয়েছেন রেল কর্তৃপক্ষ।

তবে ইকোনমিক টাইমসের এই রিপোর্ট অনুযায়ী রেল স্টেশন গুলিতে চার্জিং পয়েন্ট বসানোর এই কাজ সম্পন্ন হবে দুটি ভিন্ন পদ্ধতিতে। একটি ক্ষেত্রে বিভিন্ন জোনের অন্তর্গত স্টেশন গুলিতে কেন্দ্রীয় বাজেট নির্ধারণের মাধ্যমে চার্জিং পয়েন্ট গড়ে তোলা হতে পারে। অথবা তৃতীয় পক্ষের সাহায্যে এই কাজ সম্পন্ন করা হতে পারে। সে ক্ষেত্রে কোনো সংস্থার দ্বারা ভারতীয় রেলের পরিসর ভাড়া নিয়ে সেখানে চারজিং পয়েন্ট স্থাপন ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করা হবে।