Tata Capital-এর সাথে জোট বাঁধল Kinetic, কম সুদে ইলেকট্রিক স্কুটারের ঋণ এবার মাত্র 15 মিনিটে

Kinetic Green partners Tata Capital instant Loans
Kinetic Green Partners Tata Capital

মানুষ ইদানিং বৈদিক যানবাহনমুখী হয়ে উঠছেন। ভবিষ্যতে পরিবেশ দূষণের কুপ্রভাবের কথা ভেবেই এই পদক্ষেপ। আবার আকাশ ছোঁয়া মূল্যের জ্বালানি তেলও এর অপর এক কারণ। তাই গ্রাহকদের সুবিধার কথা ভেবে এবারে পুণের ইলেকট্রিক টু-হুইলার স্টার্টআপ কাইনেটিক গ্রীন এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার সলিউশনস (Kinetic Green Energy and Power Solutions) টাটা গোষ্ঠীর আর্থিক পরিষেবা প্রদানকারী শাখা টাটা ক্যাপিটাল (Tata Capital)-এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার কথা ঘোষণা করল। ক্রেতাদের ই-স্কুটার কিনতে ইনস্ট্যান্ট লোন দিতেই এই পদক্ষেপ সংস্থার।

কাইনেটিক গ্রীন এনার্জির গ্রাহকদের এবার ডিজিটাল পদ্ধতিতে মাত্র ১৫ মিনিটের মধ্যে লোন দেওয়া হবে। আকর্ষণীয় সুদের হারে টু-হুইলারের এক্স-শোরুম মূল্যের ৮৫% লোন হিসেবে পাওয়া যাবে। এমনকি গ্রাহকদের সক্ষমতার বিচার করে কম ইএমআই স্কিম ধার্য করা হবে এবং সর্বোচ্চ ৩৬ মাসে লোন পরিশোধ করা যাবে। এই প্রসঙ্গে কাইনেটিক গ্রীনের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও সুলজ্জা ফিরোদিয়া মোতওয়ানি বলেন, “আমরা টাটা ক্যাপিটালের সাথে হাত মেলাতে পেরে আনন্দিত। টাটা ক্যাপিটালের আকর্ষণীয় ফিন্যান্সিং বিকল্প মানুষকে পরিবেশবান্ধব যানবাহন কিনতে উদ্বুদ্ধ করবে।”

অন্যদিকে, টাটা ক্যাপিটাল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর সরোশ আমারিয়া জানান, “বৈদ্যুতিক যানবাহনের ক্রমবর্ধমান চাহিদা একটি অনিবার্য বাস্তবতায় পরিণত হচ্ছে। ফার্স্ট-টাইম ইলেকট্রিক ভেহিকেল ক্রেতারদের লোভনীয় ট্যাক্স বেনিফিট দেওয়া হচ্ছে। আমাদের সহজ এবং সাশ্রয়ী ফিনান্সিং সমাধান মাধ্যমে আমরা চাই ক্রেতারা কাইনেটিক গ্রীনের টু-হুইলার যাতে সহজে কিনতে পারেন।”

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরুর দিকে সংস্থাটি তাদের Zing High Speed Scooter বা Zing HSS লঞ্চ করেছে। যার এক্স-শোরুম মূল্য ৮৫,০০০ টাকা ধার্য করা হয়েছে। ফুল চার্জে ই-স্কুটারটির রেঞ্জ ১২৫ কিমি এবং ঘন্টা প্রতি সর্বোচ্চ গতিবেগ ৬০ কিমি। এতে তিনটি রাইডিং মোড উপস্থিত – নরমাল, ইকো এবং পাওয়ার। ৩.৪ কিলোওয়াট আওয়ার লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারিটি সম্পূর্ণ চার্জ হতে তিন ঘন্টা সময় নেয়। উপরন্তু ৩-স্টেপ অ্যাডজাস্টেবল সাসপেনশন এবং রি-জেনারেটিভ ব্রেকিং সহ এসেছে স্কুটা

শুভদীপ টেকগাপে অটোকার বিষয়ক লেখালিখি করে। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, অটোকার নিয়ে টেকগাপে তার হাতেখড়ি। দিনকে দিন সে টেকগাপের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছে।