ইলেকট্রিক গাড়ি

Bajaj এর ইলেকট্রিক স্কুটার এবার ইউরোপে লঞ্চ হতে চলেছে, বিক্রির দায়িত্বে KTM

বাজাজ অটো (Bajaj Auto)-এর অধীনস্থ অস্ট্রিয়ান স্পোর্টস বাইক নির্মাতা কেটিএম (KTM) ইউরোপের বাজারে চেতক (Chetak) ইলেকট্রিক স্কুটার বিক্রি করবে বলে জানালো। ২০২৪-এর প্রথম ত্রৈমাসিক থেকে বাজাজের এই আইকনিক ইলেকট্রিক স্কুটারের বিক্রির দায়ভার গ্রহণ করতে চলেছে বলে কেটিএম সূত্রে খবর। উভয় সংস্থার যৌথ অংশীদারিত্বের আওতায় এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

ইতিমধ্যেই এদেশের চাকানের কারখানা থেকে কেটিএম-এর ১০ লক্ষ তম বাইকটি তৈরি হয়ে বেড়িয়েছে। যে কারণে কেটিএম-এর দাবি বর্তমানে তারা বিশ্বের এক নম্বর প্রিমিয়াম মোটরবাইক তৈরির ব্র্যান্ড। এদিকে কমিউটার সেগমেন্টে ইলেকট্রিক চেতক ইউরোপের বাজারের জন্য সেরা প্রোডাক্ট প্রতিপন্ন হতে পারে। সব ঠিকঠাক চললে ২০২৪-এর শুরুতেই ইউরোপের বাজারে এটির বিক্রি চালু করবে কেটিএম।

কেটিএম ব্র্যান্ডের মালিক সংস্থা পেরিয়ার মোবিলিটি (Perier)-র প্রধান কার্যনির্বাহী আধিকারিক স্টিফান পিয়েরার বলেন, মার্চ থেকে ইউরোপের বাজার শুরু হয়, তাই আমাদের প্রস্তুত থাকা উচিত। প্রসঙ্গত, ১৯৭২-এ আইসিই ভার্সনে লঞ্চের পর থেকে চেতক মধ্যবিত্তের অতি জনপ্রিয় পথসঙ্গীতে পরিণত হয়েছে। ২০১৬-তে বিক্রি বন্ধের পর ২০১৯-এ পুনরায় ইলেকট্রিক ভার্সনে প্রত্যাবর্তন করে স্কুটারটি। এখনও পর্যন্ত ১.৪ লক্ষ টাকা দামের মডেলটি ৪০টি শহরে ২৪,০০০-এর বেশি ইউনিট বিক্রি করেছে বাজাজ।

এদিকে বাজাজ-কেটিএম ২০১৭-এর অক্টোবরে একসাথে পথ চলার চুক্তি স্বাক্ষর করে। যেই অংশীদারিত্বের আওতায় ২০১১-তে প্রথম বাইক আনা হয়। এই প্রসঙ্গে রাজীব বাজাজ বলেন, কেটিএম-এর ৫ লক্ষ মডেল ভারতের রাস্তায় ছোটে, বাকি ৭০টি দেশে রপ্তানি করা হয়।

প্রসঙ্গত, ভারতে Bajaj Chetak সিঙ্গেল চার্জে ৯০ কিলোমিটার পথ দৌড়য়। এটি কেবলমাত্র একটি ভ্যারিয়েন্টেই উপলব্ধ। যার মূল্য ১,৫১,৯৫৮ টাকা (এক্স-শোরুম)। এটির সর্বোচ্চ গতিবেগ প্রতি ঘণ্টায় ৭০ কিমি। এর ব্যাটারিটি সম্পূর্ণ চার্জ হতে প্রায় ৪ ঘন্টা সময় নেয়।

Back to top button