নতুন ইলেকট্রিক বাইক লঞ্চ এবং ব্যবসা বাড়াতে 200 কোটি টাকা লগ্নি করবে কলকাতার সংস্থা Motovolt Mobility

Motovolt Mobility plans to invest rs 200 crore next year
Motovolt Mobility invest rs 200 crore

বৈদ্যুতিক যানবাহনের নবজাগরণের এই কর্মযজ্ঞে অংশগ্রহণ করেছে তাবড় সব সংস্থার পাশাপাশি ছোট স্টার্টআপগুলি। এবার এমনই কলকাতার দুই চাকার বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা মোটোভোল্ট মোবিলিটি (Motovolt Mobility) আগামী বছর নতুন মডেল বাজারে আনতে ও ব্যবসা বাড়ানোর লক্ষ্যে ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে বলে জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, এই সপ্তাহে সংস্থাটির হাত ধরে আত্মপ্রকাশ করেছে ইলেকট্রিক বাইক URBN। ৪৯,৯৯৯ টাকা ও ৫৪,৯৯৯ টাকা দামে দুটি আলাদা ভ্যারিয়েন্টে লঞ্চ করা হয়েছে সেটি। মোটোভোল্ট মোবিলিটির প্রতিষ্ঠাতা ও মুখ্য কার্যনির্বাহী আধিকারিক তুষার চৌধুরী লঞ্চ ইভেন্টে সংবাদমাধ্যমকে জানান, “এখন কলকাতায় আমাদের একটি কারখানা রয়েছে। বাজারের আরও কাছে থাকতে আগামী দিনে উত্তর ও দক্ষিণ ভারতে স্যাটেলাইট ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট গড়ে তোলার কথা ভাবছি আমরা।” উল্লেখ্য, কলকাতার কারখানাটির বার্ষিক উৎপাদন ক্ষমতা ৫০ হাজার ইউনিট।

তুষার চৌধুরী আরো বলেন, “উৎপাদন ক্ষমতা আগামীতে বাড়িয়ে বছরে এক লক্ষ করার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। তার জন্য সম্ভবত উত্তর ভারতের দিল্লিতে নতুন কারখানা স্থাপন করা হবে।” আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যে নতুন লঞ্চ করা ইলেকট্রিক বাইকটি ৫০ হাজার ইউনিট বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। তাছাড়াও তিনি বলেন আগামী বছর ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবেন তারা। এই বিনিয়োগ নতুন প্রোডাকশন ইউনিট ও তাদের তৈরি সামগ্রির বিক্রির নেটওয়ার্ককে বৃদ্ধি করতে খরচ করা হবে।

এখনও পর্যন্ত সংস্থাটি মোট বিনিয়োগের পরিমাণ ৬০ কোটি টাকা। চলতি অর্থবর্ষের শেষার্ধে নতুন একটি বৈদ্যুতিক স্কুটার লঞ্চ করার ব্যাপারে ভাবছে মোটোভোল্ট। চৌধুরীর কথায়, এই মুহূর্তে তাদের পাখির চোখ শুধুমাত্রই বৈদ্যুতিক দুই চাকায়। আগামীতে বাইসাইকেল থেকে শুরু করে স্কুটার পর্যন্ত সমস্ত ধরনের বৈদ্যুতিক যানবাহন তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। তবে বৈদ্যুতিক মোটরসাইকেল তৈরি করার কোনো ধরনের ভাবনাচিন্তা করা হচ্ছে না বলেই জানা গিয়েছে।

এদিকে সংস্থার নতুন লঞ্চ করা URBN নামক ই-বাইকটি স্কুটারটি প্রতিদিনকার যাতায়াত এবং লাস্ট মাইল ডেলিভারি ক্ষেত্রে ব্যবহারের উদ্দেশ্যেই প্রস্তুত করা হয়েছে। এটি একবার সম্পূর্ণ চার্জে ১২০ কিমি পথ চলতে সক্ষম। তুষার চৌধুরী বলেন খাবার ডেলিভারি দেওয়ার সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন তারা। যাতে তাদেরকে ব্যাটারিচালিত যান সরবরাহ করা যায়।
বর্তমানে মোটোভোল্ট মোবিলিটির তৈরি মডেলগুলির ৭০ শতাংশ যন্ত্রপাতি ভারতের মাটিতেই তৈরি। শুধুমাত্র ব্যাটারি সেল প্রতিবেশী দেশ চীন থেকে আমদানি করা হয়েছে। তবে এ দেশে ব্যাটারি সেল তৈরি শুরু হলে স্থানীয় সংস্থার কাছ থেকেই নেওয়ায় শুরু করবে মোটোভোল্ট।