সদ্য লঞ্চ করা Bajaj Pulsar P150 মাত্র 13,000 টাকা দিয়ে বাড়ি নিয়ে আসুন, জানুন কীভাবে

Bajaj Pulsar P150 EMI rs 13000 Down Payment

বাজাজ অটো (Bajaj Auto) সম্প্রতি ভারতে তাদের নতুন বাইক Pulsar P150 লঞ্চ করেছে। এটি পালসার ১৫০ এবং N160 মডেল দুটির মধ্যে ব্যবধান ঘোচানোর কাজ করবে নতুন মডেলটি। P150-এ রয়েছে একটি ১৪৯.৬৮ সিসি সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন। যা থেকে ১৪.৫ পিএস শক্তি এবং ১৩.৫ এনএম টর্ক উৎপন্ন হয়। সিঙ্গেল ডিস্ক সিঙ্গেল সিট এবং ডুয়েল ডিস্ক স্প্লিট সিট – এই দুটি ভ্যারিয়েন্টে উপলব্ধ Bajaj Pulsar P150। এখন বিষয় হচ্ছে, আপনি যদি এটি মাসিক কিস্তিতে কেনার কথা ভেবে দেখেন তবে এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্য।

Pulsar P150 ইএমআই-তে কিনতে হলে আপনাকে কিছু খুঁটিনাটি জানতেই হবে। যেমন নতুন বাইকটি সিঙ্গেল ডিস্ক সিঙ্গেল সিট এবং ডুয়েল ডিস্ক স্প্লিট সিট ভ্যারিয়েন্ট দুটির অন-রোড প্রাইস যথাক্রমে ১.২৯ লক্ষ টাকা এবং ১.৩৩ লক্ষ টাকা। এই মডেল জোড়ার মধ্যে কোনো একটি যদি বাড়ি আনতে হয়, এবং ১৩,০০০ টাকা ডাউনপেমেন্ট করা হয়, সেক্ষেত্রে মাসিক কিস্তির পরিমাণ দাঁড়াবে যথাক্রমে ৩,৭৫৭ টাকা ও ৩,৮৬৪ টাকা।

অবগতির জন্য বলা, ব্যাঙ্ক বিশেষে সুদের হার ভিন্ন হতে পারে। এক্ষেত্রে সেটি ১০% ধরে এবং পরিশোধের সময়সীমা ৩ বছর ধরে হিসেব দেওয়া হয়েছে। এখানে জানিয়ে রাখি ক্রেতারা লোন পরিষদের সময়সীমা নিজের পছন্দ মত বেছে নেওয়ার সুযোগ পাবেন। আবার ডাউনপেমেন্টের পরিমাণের উপর নির্ভর করবে ইএমআই কত দিতে হবে। ডাউন পেমেন্টের পরিমাণ বাড়লে মাসিক কিস্তি কম পড়বে।

প্রসঙ্গত, বাজাজ পালসার পি১৫০-র উভয় ভ্যারিয়েন্টে ফিচার্সের মধ্যে বাই ফাংশনাল এলইডি প্রোজেক্টর হেডলাইট, এলইডি পাইলট ল্যাম্প, এলইডি টেল লাইট, ক্লিপ-অন হ্যান্ডেল বার, ইউএসবি চার্জার রয়েছে। এছাড়াও Pulsar P150-এ আছে সেমি ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার, যাতে গিয়ারের সঠিক অবস্থান দেখা সম্ভব। উপরন্তু, রাইডারের সুরক্ষার্থে মিলবে সিঙ্গেল চ্যানেল এবিএস।