Homeঅটোকারবাইক ও স্কুটারKawasaki W175 নাকি TVS Ronin, একদিকে শুধু আবেগ আর অন্যদিকে আধুনিক ফিচার্স, কিনবেন কোনটা?

Kawasaki W175 নাকি TVS Ronin, একদিকে শুধু আবেগ আর অন্যদিকে আধুনিক ফিচার্স, কিনবেন কোনটা?

সম্প্রতি ভারতের মাটিতে তাদের সবচেয়ে সস্তা মোটরসাইকেল W175 লঞ্চ করে সবাইকে চমকে দিয়েছে কাওয়াসাকি (Kawasaki)। রেট্রো থিমের এই বাইকটি খুব সঙ্গত কারণেই এই মুহূর্তে আলোচনার শীর্ষে। এর একঝলক দর্শন পুরনো দিনের কাওয়াসাকির মডেলের কথা আপনাকে স্মরণ করাবে। অন্যদিকে কয়েক সপ্তাহ আগেই রেট্রো লুকের স্ক্রাম্বলার মডেল লঞ্চ করেছে তামিলনাড়ুর নির্মাতা টিভিএস। যার পোশাকি নাম রনিন (Ronin)। কেনার পরিকল্পনা করলে দেখে নিন এই দুই রেট্রো ডিজাইনের বাইকের মধ্যে তুলনামূলক আলোচনা।

Kawasaki W175 vs TVS Ronin: দাম

কাওয়াসাকি ডব্লিউ১৭৫ দুটি ভ্যারিয়েন্টে এসেছে। প্রথমটি ১.৪৭ লাখ টাকা এক্স শোরুম মূল্যে ইবোনি কালার ভ্যারিয়েন্ট। আর দ্বিতীয়টি ক্যান্ডি রেড। যার দাম ১.৪৯ লাখ। যদিও রং ছাড়া আর কোনও ফারাক নেই দুই সংস্করণে। অন্যদিকে, টিভিএস রনিন তিনটি ভ্যারিয়েন্টে উপলব্ধ। সিঙ্গেল টোন, ডুয়েল টোন ও ট্রিপল টোন মডেলের এক্স শোরুম মূল্য যথাক্রমে ১.৪৯ লাখ ১.৫৬ লাখ ও ১.৬৮ লাখ টাকা।

Kawasaki W175 vs TVS Ronin: ডিজাইন

দুটি বাইকের ক্ষেত্রেই রেট্রো ডিজাইন চোখে পড়ে। উভয় ক্ষেত্রেই গোলাকার হেডলাইট, সিঙ্গেল পিস সিট, আরামদায়ক বসার ভঙ্গি, সিঙ্গেল এগজস্ট পাইপ দেওয়া হয়েছে। যদিও দুটি বাইকের মধ্যে ডিজাইনের বেশ কিছু তারতম্য রয়েছে বটে। কাওয়াসাকি ডব্লিউ১৭৫ মডেলটিতে স্পোক হুইল, বর্গাকার সাইড প্যানেল, গোলাকার টার্ন সিগনাল ও কালো রঙের আস্তরণে ঢাকা ইঞ্জিন ও রিমের অংশ দেখা যায়। এর ডিজাইন অনেকাংশেই বড় ডব্লিউ৮০০ থেকে ধার নেওয়া। তাছাড়াও টিয়ার ড্রপ আকৃতির ফুয়েল ট্যাঙ্ক একে অন্যরকম লুক প্রদান করেছে।

অন্যদিকে টিভিএস রনিন পুরনো দিনের ডিজাইন এবং আধুনিকতার মিশেলে তৈরি একটি বাইক। সামনে থাকা এক ইউনিক ডিজাইনের ডিআরএল বাইকটিকে অন্যান্য সমস্ত মডেলের থেকে আলাদা বানিয়েছে। এখানেও ইঞ্জিনের অংশ কালো আস্তরণে ঢাকা। দুটি মডেলের মধ্যে রনিন ডিজাইনের দিক থেকে অনেকটাই এগিয়ে। তাছাড়াও এই বাইকটি কাওয়াসাকির তুলনায় খানিকটা অধিক ওজন ও গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স এবং ফুয়েল ট্যাঙ্ক সমৃদ্ধ।

Kawasaki W175 vs Ronin: ফিচার্স

কাওয়াসাকি ডব্লিউ১৭৫ এর সামনে আছে টেলিস্কোপিক ফর্ক ও পিছনে রয়েছে ডুয়েল শক অ্যাবজর্ভার। তাছাড়াও এতে রয়েছে সেমি ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার ও ১৭ ইঞ্চির স্পোক যুক্ত হুইল। ব্রেকিং সিস্টেম হিসেবে সামনে ডিস্ক ও পেছনে ড্রাম ব্রেকের ব্যবহার করা হয়েছে। সামনের চাকায় রয়েছে সিঙ্গেল চ্যানেল এবিএস। এতে থাকা ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টারে ব্লুটুথ সাপোর্ট করে না।

অন্যদিকে টিভিএস রনিনের সামনে ইউএসডি ফর্ক ও পিছনে মনোশক অ্যাবজর্ভার লাগানো রয়েছে। উভয় চাকাতেই ডিস্ক সমৃদ্ধ থাকলেও সিঙ্গেল চ্যানেল ও ডুয়েল চ্যানেল এবিএস অপশন এতে রয়েছে। এছাড়াও এই বাইকটিতে আলাদা রকমের এবিএস মোড উপলব্ধ। উপরন্তু ব্লুটুথ কানেক্টিভিটিযুক্ত ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার ব্যবহার করা হয়েছে রনিনে।

Kawasaki W175 vs Ronin: ইঞ্জিন স্পেসিফিকেশন

উভয় মোটরসাইকেল এই এয়ার কুল্ড, সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে। ডব্লিউ১৭৫ এ ১৭৭ সিসির ইঞ্জিন লাগানো থাকলেও রনিনে রয়েছে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন ২২৬ সিসির ইঞ্জিন। যদিও উভয় ক্ষেত্রেই পাঁচ ধাপ যুক্ত গিয়ার বক্স ব্যবহার করা হয়েছে। কাওয়াসাকির ইঞ্জিনটির আউটপুট ক্ষমতা ১২.৮ বিএইচপি ও টর্ক ১৩.২এনএম। অন্যদিকে রনিনের ইঞ্জিনটি ২০ বিএইচপি ও ২০ এনএম টর্ক উৎপাদনে সক্ষম।

আরও পড়ুন