৯০ সেকেন্ডে স্টক শেষ! চন্দ্রযান-৩-কে স্যালুট জানিয়ে লঞ্চ করা ই-বাইক সব বিক্রি হয়ে গেল

আর কয়েক মিনিট পরেই চাঁদের মাটি ছুঁয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করতে চলেছে ল্যান্ডার বিক্রম। ভারতের এই চন্দ্রাভিযানকে কুর্নিশ করে পরশুদিন Ultraviolette Automotive তার F77 ইলেকট্রিক স্পোর্টস বাইকের Space Edition মডেল লঞ্চ করেছে। স্পেশাল এডিশন বাইকটির মাত্র ১০টি ইউনিট বাজারে ছাড়বে সংস্থা। দাম ৫.৬ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম)। তাজ্জব করা বিষয় হল, বুকিং শুরু হওয়ার মাত্র ৯০ সেকেন্ডের মধ্যে প্রতিটি মডেল বিক্রি হয়ে গিয়েছে।

Ultraviolette F77 Space Edition-এর ১০টি মডেল মাত্র দেড় মিনিটে বিক্রি হল

চোখের পলকে ঝড়ের গতিতে এত দামী বাইক বিক্রির নেপথ্যে কী কাজ করছে জানলে, অবাক হবেন আপনিও। মহাকাশযান তৈরির স্পেস গ্রেড অ্যালুমিনিয়াম দ্বারা বানানো হয়েছে এই ই-বাইক। ব্যবহার করা হয়েছে অত্যাধুনিক এয়ারক্রাফ্টের ইলেকট্রনিক্স নির্ভর প্রযুক্তি। আবার এরোস্পেসের সাথে মিল রেখে পেইন্ট ওয়ার্ক করা হয়েছে।

তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, বাইকটির চাবি যে ধাতু দিয়ে তৈরি হয়েছে, সেটিও মহাকাশযান তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। তাই এক কথায় বলা যায় Ultraviolette F77 Space Edition-এ এরোস্পেসের পূর্ণ স্বাদ আস্বাদন করা যাবে। পারফরম্যান্সের প্রসঙ্গে বললে ইলেকট্রিক বাইকটির মোটর থেকে সর্বোচ্চ ৪০.৫ এইচপি ক্ষমতা এবং ১০০ এনএম টর্ক উৎপন্ন হবে। ০-৬০ কিমি/ঘন্টার গতি ২.৯ সেকেন্ডে তুলবে। প্রতি ঘন্টায় সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৫২ কিলোমিটার।

ফুল চার্জ থাকলে ৩০৭ কিলোমিটার রেঞ্জ দেবে বাইকটি। আল্ট্রাভায়োলেটের ফ্ল্যাগশিপ মডেল F77-এর স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনের বর্তমান বাজার মূল্য ৩.৮ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম)। ০-১০০ কিমি/ঘন্টার গতি তুলতে সময় নেয় ৭.৮ সেকেন্ড। ইলেকট্রিক মোটরসাইকেলটি তিনটি ভ্যারিয়েন্টে বেছে নেওয়া যায় – শ্যাডো, লাইটিং ও লেজার।