আর পাওয়া যাবেনা Bajaj Pulsar 180F? তুঙ্গে জল্পনা

bajaj-pulsar-180f-removed-from-company-website-discontinue

সেমি-ফেয়ার্ড ডিজাইনের Bajaj Pulsar 180F মোটরবাইকের পাকাপাকিভাবে প্রস্থানের পথ এখন প্রায় সুনিশ্চিত হয়ে গেল। ভারতে বাজাজের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে বাইকটিকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ফলে বাইকটিকে বিদায় জানানোর তত্ত্ব সামনে আসছে। যদিও প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত Bajaj অফিসিয়াল ভাবে বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। অতি সম্প্রতি বাজাজ Pulsar 180-র নেকেড (naked) ভার্সন Pulsar 180 বাজারে ফিরিয়ে এনেছিল। তারপর জল্পনা চলতে থাকে, Bajaj Pulsar 180F-র সফর হয়তো খুব শীঘ্রই থেমে যাবে।

২০১৯-র ফেব্রুয়ারিতে বাজাজ ভারতে Pulsar 180F লঞ্চ করেছিল। চেহারার দিক থেকে বাইকটির সাথে Pulsar 220F-র ভীষণ মিল ছিল। Pulsar 180F মোটরবাইকের স্টাইল এমনিতেই খুব নজরকাড়া। বাজাজের পরিকল্পনা ছিল একইরকম ডিজাইনকে সম্বল করে Pulsar 180F মডেলটিকে জনপ্রিয় করে তোলা। তবে নেকেড ভার্সন Pulsar 180-র চাহিদা বেশী থাকায় Bajaj কিছুদিন আগে Pulsar 180 পুনরায় লঞ্চ করে৷ Pulsar 180-র আগমনের ফলে সেমি-ফেয়ার্ড ভার্সন Pulsar 180F-র প্রস্থানের পথ সুগম হয়ে ওঠে।

ডিজাইন ব্যতীত হার্ডওয়্যার বা মেকানিক্যাল সব ক্ষেত্রেই Pulsar 180F এবং Pulsar 180F অভিন্ন। দুটি বাইকেই রয়েছে ১৭৮.৬ সিসি, এয়ার-কুল্ড DTS-i ইঞ্জিন। এটি ৮,৫০০ আরপিএম গতিতে ১৭ পিএস পাওয়ার এবং ৬,৫০০ আরপিএম গতিতে ১৪.৫২ এনএম টর্ক উৎপন্ন করে। ইঞ্জিনের সঙ্গে যোগ্য তালমিল করে পাঁচ গতির গিয়ারবক্স। এছাড়া, বাইকে সাসপেনশনের জন্য সামনের অংশে টেলিস্কোপিক ফোর্ক ও পিছনে ডুয়াল শক অ্যাবজর্ভার ব্যবহার করা হয়েছে। বাইকদুটির দু’দিকেই আছে ডিস্ক ব্রেক এবং সঙ্গে রয়েছে সিঙ্গেল-চ্যানেল এবিএস।

নতুন Pulsar 180 মোটরবাইকের দাম ১.০৭ লক্ষ (এক্স-শোরুম দিল্লি)। ভারতে এর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসাবে আছে Honda Hornet 2.0, TVS Apache RTR 180। Pulsar 180 মোটরবাইকটি Honda Hornet 2.0-র তুলনায় প্রায় ২৩ হাজার টাকা এবং TVS Apache RTR 180-র তুলনায় প্রায় ৫ হাজার টাকা সস্তায় বাজারে এসেছে। সুতারাং, সাশ্রয়ী দামের জন্য নতুন Pulsar 180 অনেক ক্রেতারই প্রথম পছন্দ হয়ে উঠবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন