iPhone SE থেকে OnePlus 9R, ফিচারে ঠাসা এই পাঁচটি সেরা ফোন হবে আপনার প্রথম পছন্দ

৪০,০০০ টাকার কমে উপলব্ধ সেরা পাঁচটি স্মার্টফোনের তালিকা দেখে নিন

best-smartphones-under-rs-40000-oppo-reno-6-pro-oneplus-9r

আপনি যদি অত্যাধুনিক টেকনোলজির ভক্ত হন এবং একটি নতুন প্রিমিয়াম স্মার্টফোনের সাথে নতুন বছর শুরু করার ইচ্ছার রাখেন, তবে এই প্রতিবেদনটি আপনার জন্যই। কেননা, আজকে আমরা ভারতীয় বাজারে বিদ্যমান প্রিমিয়াম তথা ফ্ল্যাগশিপ রেঞ্জের স্মার্টফোনগুলির মধ্যে থেকে বাছাই করে কয়েকটি সেরা বিকল্পের ফিচার ও দাম সংক্রান্ত তথ্যাদি এখানে তুলে ধরবো। এই তালিকায় সামিল থাকছে – iQOO 7 Legend 5G, Samsung Galaxy M52 5G, OnePlus 9R, Oppo Reno 6 Pro 5G এবং Apple iPhone SE 2020 এর মতো ‘বেস্ট-সেলিং’ স্মার্টফোন। অ্যাডভান্স ফিচারে ভরা উল্লেখিত প্রত্যেকটি হ্যান্ডসেটের দাম ৪০,০০০ টাকার মধ্যেই থাকছে। আসুন এই ৫টি স্মার্টফোনের মধ্যে কোনটি আপনার জন্য সেরা জেনে নেওয়া যাক।

৪০,০০০ টাকার নিচে উপলব্ধ স্মার্টফোনের তালিকা

​Oppo Reno 6 Pro 5G: ডুয়েল সিমের ওপ্পো রেনো ৬ প্রো ৫জি ফোনে রয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রোটেকশন সহ একটি ৬.৫৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১,০৮০x২,৪০০ পিক্সেল) কার্ভড অ্যামোলেড ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ৯০ হার্টজ এবং টাচ স্যাম্পলিং রেট ১৮০ হার্টজ। ফোনের ডিসপ্লেতে থাকা পাঞ্চ-হোল কাটআউটের মধ্যে ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা দেখা যাবে। আবার ডিভাইসের পেছনে থাকবে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ। এগুলি হল, ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স, ও ২ মেগাপিক্সেল পোট্রেট লেন্স। মাল্টিটাস্কিং ও ফাস্ট পারফরম্যান্সের জন্য এতে ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ১২০০ প্রসেসর। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড কালার ওএস ১১.৩ কাস্টম স্কিন চালিত। সিকিউরিটির জন্য এতে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর উপস্থিত। Oppo Reno 6 Pro 5G ফোনে আছে ৪,৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি, যার সাথে ৬৫ ওয়াট সুপার ফ্ল্যাশ চার্জিং সাপোর্ট করবে।

দাম : ই-কমার্স সাইট Amazon এর লিস্টিং অনুসারে, Oppo Reno 6 Pro 5G ফোনের ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৩৭,৮৯০ টাকা।

OnePlus 9R: অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড অক্সিজেনওএস ১১ কাস্টম স্কিন চালিত ওয়ানপ্লাস ৯আর স্মার্টফোনে দেওয়া হয়েছে, একটি ৬.৫৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১,০৮০x২,৪০০ পিক্সেল) Fluid ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের, রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, এসপেক্ট রেশিও ২০:৯ এবং এটি কর্নিং গরিলা গ্লাস প্রোটেকশন সহ এসেছে। উন্নত পারফরম্যান্স অফার করার জন্য, ওয়ানপ্লাসের এই ফোনে এড্রেনো ৬৫০ জিপিইউ সহ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৭০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। আবার, ফটোগ্রাফির জন্য এতে কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ উপস্থিত। এগুলি হল এফ/১.৭ অ্যাপারচার সহ ৪৮ মেগাপিক্সেল Sony IMX586 প্রাইমারি সেন্সর, ১২৩° ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ১৬ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স ও ২ মেগাপিক্সেল মনোক্রোম সেন্সর। একই ভাবে, সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য থাকছে ৬ মেগাপিক্সেলের Sony IMX471 ফ্রন্ট-ফেসিং সেন্সর। তদুপরি, সিকিউরিটির জন্য এতে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর বর্তমান। ফোনটি ৪,৫০০ এমএএইচ ডুয়েল সেল ব্যাটারি সহ এসেছে, যার সাথে ৬৫ ওয়াট র‌্যাপ চার্জ সাপোর্ট করে।

দাম : সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে, OnePlus 9R ফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টকে ৩৬,৯৯৯ টাকায় এনলিস্ট করা হয়েছে।

​Samsung Galaxy M52 5G: স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৫২ ৫জি ফোনে, কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রটেকশন সহ একটি ৬.৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১,০৮০x২,৪০০ পিক্সেল) সুপার অ্যামোলেড প্লাস ডিসপ্লে রয়েছে। যার, এসপেক্ট রেশিও ২০:৯ ও রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ। পাঞ্চ হোল ডিজাইনের এই ডিসপ্লের কাট আউটের মধ্যে দেখা যাবে ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি শুটার। আর ফোনের পিছনে দেওয়া হয়েছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। এই ক্যামেরাগুলি হল, ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর (এফ/১.৮ অ্যাপারচার), ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স (এফ/২.২ অ্যাপারচার) ও ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স (এফ/২.৪ অ্যাপারচার)। স্যামসাংয়ের এই হ্যান্ডসেট কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৭৮জি প্রসেসর সহ এসেছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড ওয়ান ইউআই ৩.১ কাস্টম স্কিনে রান করবে। সিকিউরিটির জন্য ফোনে সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর পাওয়া যাবে। আর, পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য থাকছে ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি, যা ২৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।

দাম : সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অনুযায়ী, Samsung Galaxy M52 5G ফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ৩১,৯৯৯ টাকা।

iQOO 7 Legend 5G: আইকো ৭ লেজেন্ড ৫জি স্মার্টফোনে রয়েছে একটি ৬.৬২ ইঞ্চির (১,০৮০x২,৪০০ পিক্সেল) অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ডিভাইসটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর সহ এসেছে। ছবি তোলার জন্য এতে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ পাওয়া যাবে। এই ক্যামেরাগুলি হল, এফ/১.৭৯ অ্যাপারচার সহ ৪৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ ১৩ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি সেন্সর এবং এফ/২.৪৬ অ্যাপারচার সহ ১৩ মেগাপিক্সেল সেন্সর। একই সাথে সেলফি তোলার জন্য থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য উক্ত স্মার্টফোনে ৪,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে।

দাম : সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে, iQOO 7 Legend 5G ফোনের ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের বিক্রয় মূল্য ৩৯,৯৯০ টাকা রাখা হয়েছে।

Apple iPhone SE 2020: ডুয়েল সিমের আইফোন এসই (২০২০) ফোনে, ৪.৭ ইঞ্চি রেটিনা এইচডি (৭৫০x১,৩৩৪ পিক্সেল) IPS ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এই ডিসপ্লে ডলবি ভিশন ও এইচডিআর ১০ টেকনোলজি সাপোর্ট করে। এই ফোনে এ১৩ বায়োনিক প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। আর অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এতে আইওএস ১৩ ভার্সন পাওয়া যাবে। ফটোগ্রাফির জন্য ফোনে, LED ফ্ল্যাশ লাইট সহ ১২ মেগাপিক্সেল (এফ/১.৮ অ্যাপারচার) সিঙ্গেল রিয়ার ক্যামেরা বর্তমান। আবার, ডিসপ্লের উপরিভাগে থাকছে, এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ ৭ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। মেটালিক বডি ডিজাইনের সাথে আসা এই আইফোনে, ১,৮২১ এমএএইচ পাওয়ারের ইন-বিল্ট ব্যাটারি রয়েছে। এছাড়া, দ্রুত কাজ করার জন্য ডিভাইসে হেপটিক টাচ টেকনোলজি ব্যবহার করা হয়েছে।

দাম: Flipkart-এর সাইটে, Apple iPhone SE 2020 ফোনের ৬৪ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ২৭,৯৯০ টাকা।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।