পোস্টপেড পরিষেবায় Reliance Jio কে পিছনে ফেললো Airtel

bharti-airtel-beats-reliance-jio-in-postpaid-market.jpg

বর্তমান সময়ে দেশে টেলিকম পরিষেবার নিরিখে অন্যান্য সংস্থার থেকে অনেকটাই এগিয়ে Reliance Jio। তাছাড়া মুকেশ আম্বানির মালিকানাধীন সংস্থাটি এই মুহূর্তে ভারতের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম অপারেটরও বটে। তবে রিপোর্ট বলছে, পোস্টপেড পরিষেবার ক্ষেত্রে বাজারে Jio-র থেকে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে Airtel। এমনিতে এই দুই অপারেটরের পোস্টপেড প্ল্যান বা অফারগুলিতে তেমন কোনো তফাত নেই। কিন্তু, Airtel-এর বিদ্যমান পোস্টপেড ইউজাররা সংস্থার হাত ছাড়েননি, পাশাপাশি সাম্প্রতিক সময়ে আরও কিছুটা ইউজারবেস বাড়াতে সক্ষম হয়েছে সংস্থাটি।

এর আগে, রিলায়েন্স জিও যখন তার পোস্টপেড পরিষেবার ওপর গুরুত্ব দেওয়া শুরু করেছিল, তখন অনেকেই মনে করেছিলেন এটি এয়ারটেলের ইউজারবেসে থাবা বসাবে। কিন্তু বাস্তবে এমনটা হয়নি। বরঞ্চ পোস্টপেড পরিষেবার ক্ষেত্রে এয়ারটেল, জিওকে অনেক পিছনে ফেলে রেকর্ড সংখ্যক নতুন পোস্টপেড ইউজার যুক্ত করেছে। ইটি (ইকোনমিক টাইমস) টেলিকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালের শেষ প্রান্তিকে Airtel ৭,০০,০০০ নতুন ইউজার পেয়েছে। তাছাড়া গত ছয় মাসে টেলকোটি মোট ১৪,০০,০০০ জনকে তাদের পোস্টপেড পরিষেবার অধীনে আনতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু Reliance Jio-র পোস্টপেড পরিষেবা তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি।

প্রসঙ্গত, গত বছর সেপ্টেম্বরে রিলায়েন্স জিও তার পোস্টপেড প্ল্যানগুলি চালু করেছিল, যা সস্তায় অধিক ডেটা এবং অন্যান্য সুবিধা সরবরাহ করে। কিন্তু পাঁচ মাসের বেশি সময় কেটে যাওয়ার পরেও, জিও প্রবর্তিত প্ল্যানগুলি এয়ারটেলের ধারে কাছে আসতে পারেনি। সেক্ষেত্রে এই মুহূর্তে এয়ারটেলের পোস্টপেড ইউজারবেস প্রায় ১৬ মিলিয়ন।

অনেকেই মনে করছেন, পোস্টপেড বাজারে জিওর থেকে এয়ারটেলের এগিয়ে থাকার অন্যতম কারণ হল সংস্থার সুপিরিয়র মার্কেট এক্সিকিউশন। তাছাড়া টেলকোর পুরনো পোস্টপেড গ্রাহকরা তাদের প্রাপ্ত পরিষেবার মানের ওপর গুরুত্ব দেন, প্ল্যানের দামের বিষয়ে তাদের তেমন মনোযোগ নেই।

যাইহোক এখন দেখার বিষয় এটাই যে, আগামী দিনে প্রিপেড বা ব্রডব্যান্ড পরিষেবার মত জিওর পোস্টপেড পরিষেবাটিও জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারে কিনা।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন