Bitcoin-এর উজ্জ্বল ভবিষ্যত নিয়ে আশাবাদী লগ্নিকারীরা, বিক্রি করতে চাইছেন না কেউ

চলতি বছরের আগস্ট মাস থেকে, বাজারে মোট বিটকয়েন সরবরাহের মাত্র ১২.৯ % বিভিন্ন ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ মাধ্যমে লেনদেনের জন্য উপলব্ধ

bitcoin-investors-only-exchange-supply-12-9-percent-holding-as-assets

বাজারে লেনদেনের চাইতে নিজেদের কাছে অ্যাসেট হিসেবে ডিজিটাল মুদ্রা সঞ্চয় করে রাখতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বিটকয়েন (Bitcoin) বিনিয়োগকারীরা। সাম্প্রতিক সমীক্ষায় উঠে এল এমনই এক তথ্য। সম্ভবত বিটকয়েনের উত্তরোত্তর মূল্যবৃদ্ধি ঘটানোর সহজাত প্রবণতার কারণেই সঞ্চয় নিয়ে আশাবাদী বিনিয়োগকারীদের সিংহভাগ।

রিসার্চ ফার্ম Glassnode-এর রিপোর্ট অনুযায়ী,‌ চলতি বছরের আগস্ট মাস থেকে, বাজারে মোট বিটকয়েন সরবরাহের মাত্র ১২.৯ % বিভিন্ন ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ মাধ্যমে লেনদেনের জন্য উপলব্ধ।

বর্তমানে বাজারে মোট বিটকয়েনের সরবরাহ প্রায় ১৮.৮ মিলিয়নের বেশী, যা সাতোশি নাকামোতো (Satoshi Nakamoto) নামে এক ব্যক্তির পূর্বনির্ধারিত ভাবে তৈরি করা মোট ২১ মিলিয়ন ক্রিপ্টো কয়েনের ৯০ ভাগ। আন্তর্জাতিক বাজারে, বিশ্বের প্রাচীনতম মুদ্রা বিটকয়েনের মূল্য বর্তমানে ৭০,২৮৬ ডলারের (প্রায় ৫২.৩ লাখ টাকা) রেকর্ড ছুঁয়েছে।

Glassnode-এর রিপোর্ট বলছে, সম্প্রতি বিটকয়েনের আকাশছোঁয়া মূল্যবৃদ্ধির কারণে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগকারীদের কাছে জমা কয়েনের বাজারমূল্য ‘Peak HODL’ এসে পৌঁছেছে। CoinSutra-এর তথ্য অনুযায়ী, HODL- হল মূলত একটি টাইপিং জনিত ভুল যা বর্তমানে ‘Hold on for dear life ‘ নামের একটি মজাদার উক্তিতে পরিণত হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, এটি মূলত এমন একটি অবস্থা যেখানে দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগকারীদের সম্মিলিত সঞ্চয়ের পরিমাণ, বাজারে সমগ্র কয়েন সরবরাহের ৮১.৫ শতাংশ। এই বিপুল সঞ্চয়ের মাত্র ০.৭৩ % বিনিয়োগকারীরা বাজারে লেনদেন করছেন।

এই তথ্য থেকে স্পষ্ট বোঝা যায়, লগ্নিকারীরা মুদ্রা সঞ্চয়েই অধিক আগ্রহী। বিনিয়োগকারীরা যদি তাদের অ্যাসেট সঞ্চয় করে রাখতে না চাইতেন, সেক্ষেত্রে, বাজারে লেনদেনের জন্য প্রবাহিত লিকুইড (Liquid) কয়েনের পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পেতো। কিন্তু, এক্ষেত্রে তার উল্টোটার নজিরই স্পষ্ট।

সাম্প্রতিক, আর একটি গবেষণায় নতুন ওয়ালেটগুলির বিটকয়েন গ্রহণ ও প্রেরণের হারেও বেশ কিছুটা বৃদ্ধি দেখা গিয়েছে। ৯ নভেম্বর তারিখে,৫,১৬৯১৪ লাখ নতুন ইউজার একটি ট্রানজ্যাকশনে অংশ নিয়েছিল, যেখানে সদ্য আগতদের সংখ্যা ৭২% বৃদ্ধি পেয়েছে।

২০০৯ সালে, বিটকয়েন প্রথম বাজারে চালু হওয়ার সময় থেকে শুরু করে, এর জনপ্রিয়তা ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান সময়ে এটি বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান ক্রিপ্টোকারেন্সি। শুরুর সময়ে এর ট্রেড মূল্য ছিল ০.০০০৮ ডলার (প্রায় ০.০৬০ টাকা) যা এখনকার তুলনায় অতি নগণ্য।

পাশাপাশি, বিশ্বজুড়ে বিটকয়েন গ্রহণের প্রবণতাও উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেপ্টেম্বর মাসে, মধ্য আমেরিকার দেশ এল সালভাদোর ( El Salvador) সর্বপ্রথম দেশ হিসেবে Bitcoin-কে বৈধ মুদ্রার স্বীকৃতি দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রীয় সৈকতশহর, মিয়ামিতেও সম্প্রতি ‘মিয়ামিকয়েন’ (Miami coin) নামে এক বিটকয়েন (Bitcoin)ভিত্তিক সিটি-টোকেন চালু করা হয়ছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।