Home Blog

দেশের দ্রুততম নেটওর্য়াক Vi, 4G উপলব্ধতায় এগিয়ে Reliance Jio

vi-becomes-fastest-mobile-network-in-india-q3-speed-test-ookla

কিছুদিন আগেই ভোডাফোন এবং আইডিয়া একত্রিত হয়ে Vi হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে। একত্রীকরণের পর Vi, গিগানেট নামে নতুন পরিষেবার কথা ঘোষণা করে। কোম্পানির তরফে বলা হয় গিগানেট গ্রাহকদের দ্রুত ইন্টারনেটের ব্যবহার করতে দেবে। যা প্রমাণিত হল নেটওয়ার্ক অ্যানালিস্ট ফার্ম Ookla এর সম্প্রতি সমীক্ষায়। এই সমীক্ষায় দেখা গেছে ২০২০ সালের তৃতীয় কোয়ার্টারে Vi সবচেয়ে দ্রুততম নেটওয়ার্ক প্রদান করছে। অন্যদিকে 4G পরিষেবার উপলব্ধতার দিক দিয়ে এগিয়ে আছে Jio। তৃতীয় কোয়ার্টারে হায়দ্রাবাদে সবচেয়ে দ্রুত ডাউনলোড স্পিড লক্ষ্য করা গেছে। Ookla জানিয়েছে দেশের বিভিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্কের গড় ডাউনলোড স্পিড ১১.৬% বেড়েছে।

ডাউনলোড ও আপলোড স্পিড

সমীক্ষা অনুযায়ী, তৃতীয় কোয়ার্টারে Vi-এর গড় ডাউনলোড স্পিড ১৩.৭৪ এমবিপিএস এবং আপলোড স্পিড ৬.১৯ এমবিপিএস। এক্ষত্রে এয়ারটেলের গড় ডাউনলোড স্পিড ১৩.৫৮ এমবিবিএস এবং আপলোড স্পিড ৪.১৫ এমবিপিএস। সবার পিছনে আছে জিও। যাদের ডাউনলোড স্পিড ৯.৭১ এমবিপিএস এবং আপলোড স্পিড ৩.৪১ এমবিপিএস।

অঞ্চলভিত্তিক স্পিড

অঞ্চলভিত্তিক স্পিডের দিক দিয়ে ভারতের বড় বড় শহরগুলিতে ডাউনলোড স্পিড বিভিন্ন রকম। সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড স্পিড দেখা গেছে হায়দ্রাবাদে। এখানে গড় ডাউনলোড স্পিড ১৪.৩৫ এমবিপিএস। মুম্বাইয়ের স্থান এর পরেই। তাদের গড় ডাউনলোড স্পিড ১৩.৫ এমবি প্রতি সেকেন্ড। তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিশাখাপত্তনম। এখানে গড় ডাউনলোড স্পিড ১৩.৪০ এমবিপিএস।

4G উপলব্ধতার হার

অ্যান্ড্রয়েডে Speedtest অ্যাপের মাধ্যমে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী Ookla জানিয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ভারতে সবচেয়ে বেশি 4G সম্প্রসারণ হয়েছে। বলা বাহুল্য, Reliance Jio জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে। এই বছরের তৃতীয় কোয়ার্টারে পরীক্ষিত অঞ্চলগুলির মধ্যে ভারতে ৯৪.৭% অঞ্চলে 4G উপলব্ধ ছিল। বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানে 4G উপলব্ধতার হার যথাক্রমে ৭৮.৬% ও ৭২.৯%। ভারতে এই সময়সীমায় জিও নেটওয়ার্কের 4G উপলব্ধতার হার ৯৯.৭%। এয়ারটেলের ক্ষেত্রে 4G উপলব্ধতার হার ৯৮.৭%। Vi-এর ক্ষেত্রে 4G উপলব্ধতার হার ৯১.১১%।

Ookla-র স্পিডটেস্ট গ্লোবাল ইনডেক্সে ভারত ১৩১ নম্বর স্থানে রয়েছে। তৃতীয় কোয়ার্টারে ভারতের গড় মোবাইল ডাউনলোড স্পিড ১২.০৭ এমবিপিএস। ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলি এক্ষেত্রে ভারতের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে। চিন রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে, শ্রীলংকা ১০২-তম স্থানে। এমনকি পাকিস্তান ও নেপালও ভারতের চেয়ে এগিয়ে। তাদের স্থান যথাক্রমে ১১৬ ও ১১৭ তম।

বিশ্বের প্রথম রোলেবল ডিসপ্লের ফোন আনছে TCL, ইচ্ছেমতো গোটানো যাবে স্ক্রিন

tcl-working-on-worlds-first-rollable-screen-smartphone

একটা সময় টাচস্ক্রিন প্রযুক্তির ফোনও যে সবার হাতে ঘুরবে তা আমাদের কল্পনার বাইরে ছিল। সময়ের প্রবাহমানতার সাথে দ্রুতগতিতেই প্রযুক্তির অগ্রগতি ঘটেছে। আর সেই সঙ্গে দেখা গেছে ডিসপ্লে বা স্ক্রিন নিয়ে নানা উদ্ভাবন। ফোল্ডেবল ডিসপ্লের ফোনের সাথে আমরা এখন মোটামুটি পরিচিত। তবে রোলেবল ডিসপ্লে? হ্যাঁ, আগামী দিনেও এই ধরনের ডিসপ্লের ফোনও বাজার হৈচৈ ফেলে দেওয়ার জন্য আসতে চলেছে। এর বড়ো সুবিধা হচ্ছে, স্ক্রিনটি ইচ্ছেমতো গোটানো বা প্রসারিত করা যাবে।

রোলেবল ডিসপ্লে অর্থাৎ এই ধরনের ডিসপ্লে কাগজের মতো যা উল্লম্ব ও অনুভূমিকভাবে ভাঁজ করা যায়। চলতি বছরের গোড়ার দিকে অনুষ্ঠিত হওয়া কনজিউমার ইলেকট্রনিস্ক শো-তে টিসিএল (TCL) এই রোলেবল ডিসপ্লের ফোন আনবে বলে জানিয়েছিল। এবার টিসিএল এই ডিসপ্লের যে প্রোটোটাইপের ওপর কাজ করছে তার একটি ফাঁস হওয়া ভিডিও সামনে এল।

একটি প্রোডাকশান ডেমো ইভেন্টে শ্যুট করা ভিডিওটিতে দেখা গেছে, কিভাবে ৪.৫ ইঞ্চি স্ক্রিনসহ একটি স্মার্টফোনের বেধ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি না করেই ৬.৭ ইঞ্চি পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। Gizchina-তে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, টিসিএল নমনীয় OLED স্ক্রিনের ওপর ভিত্তি করে একটি রোলেবল ডিসপ্লে প্রযুক্তি বিকাশ করছে।

এখন যদি প্রশ্ন ওঠে, এই জাতীয় স্ক্রিনযুক্ত ডিভাইস কবে বাজারে আসতে পারে। সেক্ষেত্রে বলা যায়, আগামী বছরেই এই রোলেবল ডিসপ্লের ফোন কমার্শিয়াল লঞ্চ হতে আমরা দেখতে পাবো। ইন্ডাস্ট্রি অ্যানালিস্ট রস ইয়ং মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে সংশ্লিষ্ট ভিডিওটি শেয়ার করে ক্যাপশন দিয়েছেন- “Race to bring out the first rollable phone”। ফলে অনুমান করা যায়, ফোল্ডেবল ডিসপ্লের ফোনের পর এবার বাজার মাত করতে শীঘ্রই আসতে চলেছে রোলেবল ডিসপ্লের ফোন৷ তবে তা কেনার জন্যও পকেট থেকে খসবে বেশ বড়ো অ্যামাউন্টের টাকা।

৩ হাজার টাকা সস্তা হল Asus ROG Phone 3, সীমিত সময়ের অফার

asus-rog-phone-3-gets-temporary-price-cut-on-flipkart-big-diwali-sale

গত জুলাইমাসে ভারতে লঞ্চ হয়েছিল Asus ROG Phone 3। এই ফোনটি ছিল ভারতের প্রথম কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসরের সাথে আসা ফোন। আসুস আরওজি ফোন ৩ এর প্রাথমিক ভ্যারিয়েন্টের দাম ছিল ৪৯,৯৯৯ টাকা। তবে এবার কোম্পানি এই ফোনের দাম কামানোর সিদ্ধান্ত নিল। Asus ROG Phone 3 এর তিনটি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট সীমিত সময়ের জন্য ৩,০০০ টাকা কমে পাওয়া যাবে। এই গেমিং ফোনে আপনি পাবেন পাওয়ারফুল ব্যাটারি, হাই রিফ্রেশ রেট ডিসপ্লে ও ১২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম।

Asus ROG Phone 3 এর নতুন দাম

ভারতে আসুস আরওজি ফোন ৩ এর তিনটি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট উপলব্ধ। এর ৮ জিবি + ১২৮ জিবি, ১২ জিবি + ১২৮ জিবি ও ১২ জিবি + ২৫৬ জিবি ভ্যারিয়েন্টের দাম ছিল যথাক্রমে ৪৯,৯৯৯ টাকা, ৫৫,৯৯৯ টাকা ও ৬০,৯৯৯ টাকা। তবে সীমিত সময়ের জন্য ফোনটির তিনটি ভ্যারিয়েন্ট যথাক্রমে ৪৬,৯৯৯ টাকা, ৫২,৯৯৯ টাকা ও ৫৭,৯৯৯ টাকায় কেনা যাবে। এই দামে ফোনটি Flipkart থেকে পাওয়া যাচ্ছে। আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত এই অফার উপলব্ধ।

Asus ROG Phone 3 এর স্পেসিফিকেশন

এই ফোনে আছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্লাস প্রসেসর এবং গ্রাফিক্সের জন্য আছে ৬৫০ জিপিইউ। ফোনটি ২.৫ডি কর্নিং গরিলা গ্লাস ৬ সহ ৬.৫৯ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস AMOLED ডিসপ্লের সাথে এসেছে। এর পিক্সেল রেজোলিউশন ১০৮০ x ২৩৪০ পিক্সেল এবং রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্টজ। এই ফোনে আছে আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার।

ফটোগ্রাফির জন্য আসুস আরওজি ফোন ৩ এর পিছনে আছে তিনটি ক্যামেরা। এর প্রাইমারি ক্যামেরা ৬৪ মেগাপিক্সেল সোনি আইএমএক্স ৬৮৬ ওয়াইড সেন্সর। অন্যদুটি ক্যামেরা হল ১৩ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড লেন্স এবং ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। এতে ২৪ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা উপলব্ধ। ফোনটি ৬,০০০ এমএএইচ ব্যাটারির সাথে এসেছে, যেখানে ৩০ ওয়াটের হাইপারচার্জ ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। 

দাম কমলো Samsung Galaxy M51 এর, সবচেয়ে কম দামে কেনার সুযোগ

samsung-galaxy-m51-gets-price-cut-in-india-now-can-buy-at-rs-19999

দক্ষিণ কোরিয়ান স্মার্টফোন কোম্পানি Samsung কিছুদিন আগেই ভারতে লঞ্চ করেছিল Galaxy M51। এই ফোনটি মিড রেঞ্জে ভারতে এসেছে। যার প্রাথমিক ভ্যারিয়েন্টের দাম ২৪,৯৯৯ টাকা। তবে আজ কোম্পানি এই ফোনটির দাম কমানোর কথা ঘোষণা করেছে। ভারতে স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৫১ ফোনটি এখন আরও ২,০০০ টাকা সস্তায় পাওয়া যাবে। শুধু তাই নয় আপনি চাইলে দিওয়ালি অফারে এই ফোনটি ১৯,৯৯৯ টাকায় কিনতে পারেন।

Samsung Galaxy M51 এর দাম কমলো

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৫১ ফোনটি ভারতে দুটি স্টোরেজের সাথে লঞ্চ হয়েছে। কোম্পানি এই দুটি ভ্যারিয়েন্টেরই দাম ২,০০০ টাকা কমিয়েছে। যারপরে ফোনটির ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ কেনা যাবে ২২,৯৯৯ টাকায়। আবার ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের নতুন দাম হয়েছে ২৪,৯৯৯ টাকা।

তবে Samsung অ্যাপ থেকে ফোনটি ১৯,৯৯৯ টাকায় পাওয়া যাবে। কারণ SBI কার্ড ব্যবহার করলে ১,৫০০ টাকা ছাড় মিলবে। আবার আপনি যদি প্রথমবার স্যামসাং অ্যাপ ব্যবহার করে ফোনটি কেনেন তাহলে অতিরিক্ত ১,৫০০ টাকা ডিসকাউন্ট পাবেন।

Samsung Galaxy M51 স্পেসিফিকেশন

স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৫১ ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০জি প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে এতে আছে অ্যান্ড্রয়েড ১০ ভিত্তিক স্যামসাংয়ের নিজস্ব OneUI । এই ফোনের ডিসপ্লে ডিজাইন পাঞ্চ হোল। এতে কর্নিং গরিলা গ্লাস সহ ৬.৬৭ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস সুপার এমোলেড প্লাস ডিসপ্লে আছে। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্টজ। এতে পাবেন সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

ক্যামেরার কথা বললে Samsung Galaxy M51 ফোনের পিছনে আছে চারটি ক্যামেরা। যার প্রাইমারি ক্যামেরা ৬৪ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স৬৮২ প্রাইমারি সেন্সর। অন্য তিনটি ক্যামেরা হল – ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স, ৫ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর ও ৫ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা। ভিডিও কল ও সেলফির জন্য এতে আছে ৩২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা।

এই ফোনটিতে আছে ৭,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এরসাথে ২৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে। এরসাথে রিভার্স চার্জিং সাপোর্ট ও দেওয়া হয়েছে। চার্জিংয়ের জন্য এতে আছে ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট।

ভারতে এল Vivo V20 এর মুনলাইট সোনাটা ভ্যারিয়েন্ট, জেনে নিন দাম

vivo-v20-moonlight-sonata-colour-variant-launched-in-india

এমাসের মাঝামাঝি সময়ে ভিভো ভারতে লঞ্চ করেছিল তাদের ভি সিরিজের ফোন Vivo V20। এই সিরিজের আরও দুটি ফোন, Vivo V20 Pro এবং Vivo V20 SEও শীঘ্রই ভারতে লঞ্চ হবে বলে জানা গেছে। তবে তার আগে কোম্পানি ভিভো ভি২০ এর নতুন ভ্যারিয়েন্ট বাজারে আনলো। এবার থেকে Vivo V20 ফোনটি ভারতে মুনলাইট সোনাটা (Moonlight Sonata) কালারে পাওয়া যাবে। প্রসঙ্গত ফোনটি মিডনাইট জাজ ও সানসেট মেলোডি কালারের সাথে লঞ্চ হয়েছিল।

Vivo V20 দাম

ভারতে ভিভো ভি২০ দুটি স্টোরেজ সহ লঞ্চ হয়েছে। এর ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের দাম ২৪,৯৯০ টাকা। আবার ২৭,৯৯০ টাকা দাম পড়বে ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের।

এই ফোনটি অনলাইনে Flipkart ও Vivo এর অনলাইন স্টোর থেকে পাওয়া যাবে। আবার অফলাইনেও ফোনটি উপলব্ধ।

Vivo V20 স্পেসিফিকেশন

ভিভো ভি২০ অ্যান্ড্রয়েড ১০ বেসড FunTouchOS ১১ ইন্টারফেসে চলে। ফোনটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭২০জি প্রসেসর সহ এসেছে। এতে আছে ৬.৪৪ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস S-AMOLED ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের পিক্সেল রেজোলিউশন ১০৮০ x ২৪০০ পিক্সেল ও আসপেক্ট রেশিও ২০:৯ এবং স্ক্রিন টু বডি রেশিও হবে ৯১.২ শতাংশ। ডিসপ্লের ডিজাইন ওয়াটার ড্রপ নচ, যার মধ্যে ৪৪ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে।

Vivo V20 ফোনের পিছনে আছে তিনটি ক্যামেরা। এই ক্যামেরাগুলি হল ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর + ৮ মেগাপিক্সেল আলট্রা ওয়াইড লেন্স + ২ মেগাপিক্সেল মনো ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় সুপার নাইট সেলফি, স্লো মো সেলফি, ৪কে সেলফি প্রভৃতি ফিচার আছে। এই ফোনে পাবেন ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এতে ৩৩ ওয়াট ফ্ল্যাশ চার্জার ২.০ টেকনোলজি ও এনএফসি সাপোর্ট আছে। চার্জিংয়ের জন্য এতে পাবেন ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট। এতে ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে।

প্রফেশনালরা সহজে খুঁজে পাবেন চাকরি, LinkedIn জুড়লো Career Explorer টুল

linkedin-adds-career-explorer-tool-to-find-job-for-professionals

সারা বিশ্বে প্রায় ২৪৫ মিলিয়ন মানুষ অতিমারির সময় কাজ হারিয়েছেন। অবস্থা এতটাই সঙ্গীন যে কোন একজন মানুষকে অনেকক্ষেত্রেই পুরোনো পেশা বদলে ফেলতে হচ্ছে। হাজার হাজার মানুষ মরিয়া হয়ে বাঁচার নতুন নতুন উপায় খুঁজে চলেছেন। এই সংকটময় পরিস্থিতিতেই LinkedIn তাদের নতুন Career Explorer পরিষেবা লঞ্চ করলো। এই টুলের সাহায্যে বেকার কিন্তু পেশাদার ব্যক্তিরা নতুন কাজ খুঁজে পাবে।

LinkedIn এর বক্তব্য আপাতভাবে আর পাঁচটা জব সার্চ ইঞ্জিনের সাথে তাদের তফাত রয়েছে। কেননা এখানে নিয়োগকারী এবং নিয়োগপ্রার্থীর মধ্যে যোগাযোগের পথ প্রশস্ত হয়। নিয়োগপ্রার্থী কর্মদাতা সংস্থার চাহিদা সম্পর্কে অবগত থাকায়, আবেদন এবং নিয়োগের প্রক্রিয়া অনেক সহজ হয়। নতুন Career Explorer ও এই ধারাবাহিকতাকে রক্ষা করবে। এতে #হায়ারিং ফ্রেমের বৈশিষ্ট্য যুক্ত হচ্ছে। ফলে এবার প্রোফাইল পিকচার ফ্রেম দেখেই কে, কোথায় নিয়োগ করছেন, সে সংক্রান্ত খবর পাওয়া যাবে! সাথে চাকরিপ্রার্থীরা সরাসরি তাদের ফিডে জব অপরচুনিটি দেখতে পাবেন। এছাড়া থাকছে স্কিল অ্যাসেসমেন্টের ব্যবস্থা। এর মাধ্যমে টপ ট্রেন্ডিং স্কিলগুলোর নিরিখে একজন কর্মপ্রার্থীর যোগ্যতা যাচাইয়ে সুবিধা হবে।

বর্তমানে ভারতীয় নিয়োগকারীরা এই ধরণের যোগ্যতা যাচাইকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছেন বলে LinkedIn কর্তৃপক্ষ দাবী করেছেন। তাদের বক্তব্য অতিমারি পরবর্তীকালে চাকরির বাজারে পুরোনো ধারণাগুলি বদলে যাচ্ছে। এখন অনেকেই নিজের পূর্বতন পেশায় ফিরতে পারছেন না। আবার নতুন কোন কাজে যুক্ত হতে হলে, প্রাথমিক দক্ষতা থাকা দরকার। এই দক্ষতা আজ LinkedIn বা Coursera এর অনলাইন কোর্সের মাধ্যমে অর্জন করা সম্ভব হচ্ছে। এই কোর্সগুলি এখন নিয়োগকারীর সংস্থার মান্যতা পাচ্ছে। ফলে সাধারণ মানুষ নতুন কর্মের সন্ধান পাচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় ‘Career Explorer’ বা ‘স্কিল অ্যাসেসমেন্টে’র মতো ফিচার কর্মপ্রার্থীর চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনাকে পূর্বের চেয়ে ২৭ গুণ বৃদ্ধি করবে বলে LinkedIn কর্তৃপক্ষের মন্তব্য।

ভারতে LinkedIn এর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তা আশুতোষ গুপ্তা অত্যন্ত জোরের সাথেই এই দাবী করেছেন, “সাম্প্রতিক তথ্য অনুযায়ী বর্তমানে চাকরির বাজারে প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্বের চেয়ে ৩০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ সময়ে Career Explorer এর মতো পরিষেবা মানুষকে নিয়ত নতুন নতুন কাজের সন্ধান এনে দিতে সক্ষম হবে।” –

TCL ভারতে আনলো নতুন স্মার্টটিভি, ৪৩ ইঞ্চি মডেলের দাম ২৫ হাজার টাকার কম

tcl-p615-smart-tv-launched-in-india-price-starting-rs-23999

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় কনজিউমার ইলেকট্রনিস্ক ব্রান্ড TCL ভারতে নতুন 4K আল্ট্রাএইচডি (ইউএইচডি) সার্টিফায়েড টিভি লঞ্চ করলো। TCL P615 নামে এই স্মার্টটিভিটি তিনটি স্ক্রিন সাইজে উপলব্ধ, যথা- ৪৩ ইঞ্চি, ৫০ ইঞ্চি এবং ৫৫ ইঞ্চি। টিভিটির দামও বেশ সাধ্যের মধ্যেই। ৪৩ ইঞ্চি মডেলের দাম রাখা হয়েছে ২৩,৯৯৯ টাকা। ৫০ ইঞ্চি মডেল কেনার জন্য খরচ করতে হবে ২৯,৪৯৯ টাকা। অপরদিকে ৫৫ ইঞ্চি স্ক্রিন সাইজের এর সবচেয়ে দামি মডেলের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৮,৪৯৯ টাকা। তিনটি টিভিই এখন Amazon থেকে কেনা যাচ্ছে।

স্লিম ডিজাইনের এই টিভিগুলির ডিসপ্লেতে রয়েছে 4K আপস্কেলিং এবং ডায়নামিক কালার এনহান্সমেন্ট ফিচার টিসিএল ডিসপ্লেতে দিয়েছে A+ গ্রেড প্যানেল। এর স্ক্রিন রেজোলিউশন ৩৮৪০x২১৬০ পিক্সেল এবং রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্জ 4K এইচডিআরের সাথে এই টিভির ছবির অবাক করার মতো উজ্ব্বলতা এবং মনমুগ্ধকর রঙ দর্শককে দেয় চমকপ্রদ অভিজ্ঞতা।

তিনটি মডেলের টিভিতেই অ্যান্ড্রয়েড ওএসের লেটেস্ট ভার্সান (P) প্রি-ইনস্টল আছে। ওটিটি প্ল্যাটফর্মগুলির ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তার কথা মাথায় রেখে এই টিভিতে নেটফ্লিক্স, প্রাইম ভিডিও, হাঙ্গামা প্লে, ইরোস নাউ, সোনি লিভ, জি ফাইভের মতো অ্যাপ্লিকেশানগুলি প্রি-ইনস্টলড অবস্থায় আছে৷ এছাড়া প্লে স্টোর থেকেও ব্যবহারকারী পছন্দমতো যে কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন। এই টিভিতে পাওয়া যাবে হ্যান্ডস ফ্রী ভয়েস কন্ট্রোল৷ গুগল অ্যাসিট্যান্টের মাধ্যমে সহজেই প্রিয় চ্যানেলগুলি টিউনিং করা যাবে।

এই টিভিতে আছে বিল্ট ইন ক্রোমকাস্ট ফিচার। অর্থাৎ যে কোনো ডিভাইস থেকেই ফটো বা ভিডিও টিভিতে কাস্টিং করা যাবে। সাউন্ডের জন্য টিভিতে দেওয়া হয়েছে ডলবি স্পিকার। যার সাউন্ড আউটপুট ৩০ ওয়াট। এছাড়া কানেক্টিভিটি অপশান হিসেবে এতে আছে ব্লূটুট ৫.০ এবং সেট টপ বক্সের সাথে কানেক্ট করার জন্য তিনটি এইচডিএমআই পোর্ট।

টিসিএলের P615 মডেলের এই টিভির সাথে গ্রাহক পাবেন ১৮ মাসের স্টান্ডার্ড ওয়্যারেন্টি। সেইসঙ্গে ৯৯ টাকার বিনিময়ে Acko-এর ১ বছরের বর্ধিত ওয়্যারেন্টিং কেনা যাবে (শর্তাবলী প্রযোজ্য)। অ্যামাজন প্রাইম মেম্বাররা এই টিভি কিনলে সিডিউলড ডেলিভারি ডেট সেট করার সুবিধা পাবেন।

একটানা চলবে ৬.৫ ঘন্টা, শাওমি আনলো XiaoAI Speaker Art Battery Edition

xiaoai-speaker-art-battery-edition-launched-price-at-399-yuan

চলতি বছরের মে মাসে জনপ্রিয় স্মার্টফোন ব্র্যান্ড Xiaomi, XiaoAI Speaker Art নামের একটি স্পিকার চীনের বাজারে লঞ্চ করেছিল, যার দাম ৩৪৯ ইউয়ান (ভারতীয় মূল্যে প্রায় ৩,৮০০)। পরবর্তী সময়ে এই স্পিকারটি Mi Smart Speaker নামে ভারত এবং ইউরোপে আত্মপ্রকাশ করেছিল, যাতে অতিরিক্ত ফিচার হিসেবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট সাপোর্ট ছিল। আজ চাইনিজ টেক জায়ান্ট সংস্থাটি, তার এই প্রোডাক্টটির একটি ব্যাটারি সংস্করণ লঞ্চ করার ঘোষণা করেছে।

XiaoAI Speaker Art Battery Edition-এর স্পেসিফিকেশন

সদ্য লঞ্চ হওয়া XiaoAI Speaker Art Battery Edition-এ ৪,৮৫০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে। এটির ব্যাটারি ক্যাপাসিটি স্ট্যান্ডার্ড ভ্যারিয়েন্টের সাথে অভিন্ন। সংস্থার দাবি, এটি ফুল চার্জে ৬.৫ ঘন্টা অবধি মিউজিক প্লেব্যাক দিতে পারে। এটির স্পিকার কোয়ালিটিও স্ট্যান্ডার্ড ভ্যারিয়েন্টের মতই। সাউন্ড আউটপুটের জন্য এতে দুটি কাস্টম Bass বুস্টার এবং DTS সাউন্ড টিউনিং প্রযুক্তি যুক্ত ২.৫ ইঞ্চির একটি ১২ ওয়াটের ফুল-রেঞ্জ স্পিকার রয়েছে।

এছাড়াও, স্পিকারটির ধাতব বডিতে ১০,৫৩১টি সাউন্ড হোল রয়েছে। স্পিকারটি মাথায় কয়েকটি ক্যাপাসিটি বাটন দেওয়া হয়েছে, যার সাহায্যে মিউজিক প্লে/পজ, ভলিউম কন্ট্রোল করা যায়।এছাড়াও এই স্পিকারে আছে ১৬ মিলিয়ন আরজিবি এলইডি স্ট্রিপ এবং ডুয়াল ফার-ফিল্ড মাইক্রোফোন।

স্ট্যান্ডার্ড মডেলটির মতোই এটিকেও ২.০ স্টেরিও সাউন্ডের সাথে সংযুক্ত করা যেতে পারে এবং এটি LHDC অডিও ফর্ম্যাট সাপোর্ট করে। এই স্পিকারটি টেক্সাস ইন্সট্রুমেন্টস TAS5805M চিপসেট দ্বারা চালিত এবং এতে ডুয়াল-ব্যান্ড ওয়াই-ফাই এবং ব্লুটুথ ৪.২ প্রযুক্তি রয়েছে। মজার ব্যাপার, ইউজাররা এটিকে তাদের ইচ্ছামতো সঙ্গে নিয়ে যেকোনো জায়গায় যেতে পারবেন।

XiaoAI Speaker Art Battery Edition-এর দাম এবং লভ্যতা

এই নতুন গ্যাজেটটি আপাতত চীনের বাজারেই উপলব্ধ। এটির দাম ধার্য করা হয়েছে ৩৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৪,৪০০ টাকা)। আগামী ১লা নভেম্বর থেকে এটির বিক্রি শুরু হবে।

বিশ্বের প্রথম পপ আপ ফ্রন্ট ক্যামেরাযুক্ত ফোল্ডিং ফোন আনছে Samsung

samsung-working-on-pop-up-front-camera-foldable-phone

গত কয়েকবছর ধরে স্মার্টফোন কোম্পানিগুলি নতুন নতুন ডিজাইনের স্মার্টফোন বাজারে আনছে। সাধারণ ডিজাইনের ফোনের বদলে Samsung, Huawei, Motorola এর মত ব্র্যান্ড নিয়ে এসেছে ফোল্ডিং ফোন। তবে শুধু ডিজাইন নয়, উন্নত হয়েছে ফোনের হার্ডওয়্যার থেকে ফিচার। বিভিন্ন ব্র্যান্ড তাদের স্মার্টফোনে সাধারণ সেলফির ক্যামেরার বদলে পপ-আপ ক্যামেরা মেকানিজম ব্যবহার করেছে। কিন্তু এই মেকানিজম এখনো পর্যন্ত স্যামসাংয়ের কোনো ফোনে দেখা যায়নি। তবে সম্প্রতি পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, Samsung এবার একটি ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের ওপর কাজ করছে যাতে পপ-আপ ক্যামেরা ফিচার থাকবে।

জানা গিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ার এই জনপ্রিয় স্মার্টফোন নির্মাতা ইতিমধ্যেই WIPO (ওয়ার্ল্ড ইনটেলেকচুয়াল প্রোপার্টি অফিস)-তে একটি নতুন ফোনের পেটেন্ট ফাইল করেছে। তবে সূত্রের দাবি, একটি নয়, স্যামসাং এই ধরণের ক্যামেরা মেকানিজমযুক্ত তিনটি ফোল্ডেবল স্মার্টফোনের ডিজাইন পেটেন্ট হিসেবে জমা দিয়েছে।

ওই তিনটি ডিজাইনের স্মার্টফোনেরই সামনের ডিসপ্লেতে একটি কাটআউট রয়েছে যাতে ফোল্ডেবল ফোনটি ভাঁজ বা বন্ধ থাকা অবস্থায়ও অন্তর্হিত ক্যামেরা ব্যবহার করা যায়। এই বিষয়ে স্যামসাং সংক্রান্ত সমস্ত খবর প্রদানকারী ব্লগ ‘স্যাম-মোবাইল’ (SamMobile) জানিয়েছে, নতুন ফোল্ডেবল ডিভাইসের দুটি অংশের মধ্যে একটিতে একটি পপ-আপ ক্যামেরা অন্তর্হিত থাকতে পারে।

যদিও কয়েকটি রিপোর্টে এও বলা হয়েছে, নতুন ফোল্ডেবল ডিভাইসের ভাঁজের অর্ধেক অংশটিতে পপ-আপ ক্যামেরা মডিউলটি থাকবে। ইতিমধ্যে, এই নতুন ডিভাইস সংক্রান্ত কিছু স্কেচ প্রকাশিত হয়েছে, যা দেখে মনে হচ্ছে পপ-আপ ক্যামেরাটি মেন রিয়ার ফেসিং ক্যামেরা সিস্টেমটিকে রিপ্লেস করবে। তবে যাইহোক, Samsung যদি এই ফোল্ডিং ফোন আনে তাহলে এটি হবে বিশ্বের প্রথম পপ আপ ফ্রন্ট ক্যামেরাযুক্ত ফোল্ডেবল ফোন।

Vi আনলো ৮টি নতুন প্রিপেড ভ্যালু অ্যাডেড প্ল্যান, মূল্য শুরু ৩২ টাকা থেকে

vi-launches-8-value-added-plan-including-games-sports-contest-star-talk

টেলিকম কোম্পানিগুলির মধ্যে নতুন প্ল্যান আনার প্রতিযোগিতা আমাদের কাছে অজানা নয়। গ্রাহকদের আকর্ষণ করতে সমস্ত টেলিকম কোম্পানি মাঝেমাঝেই নতুন প্ল্যান নিয়ে আসে। আজ ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম টেলিকম কোম্পানি Vi (আগে Vodafone Idea) একগুচ্ছ ভ্যালু অ্যাডেড নতুন প্ল্যান এনেছে। এই প্ল্যানগুলির মধ্যে গেমস, স্পোর্টস, কনটেস্ট এবং স্টার টক পরিষেবা পাওয়া যাবে। কোম্পানি আজ মোট ৮টি ভ্যালু অ্যাডেড প্ল্যান লঞ্চ করেছে। আসুন এই প্ল্যানগুলি সম্পর্কে জেনে নিই।

Vi আনলো ৮টি ভ্যালু অ্যাডেড প্ল্যান

প্রথমেই জানিয়ে রাখি গেমস, স্পোর্টস, কনটেস্ট এবং স্টার টক পরিষেবায় প্রত্যেকটির জন্য ২টি করে প্ল্যান (বেশিদিনের প্ল্যানটির নামের সাথে ‘লং ভ্যালিডিটি’ যুক্ত করা হয়েছে) লঞ্চ করা হয়েছে। এরমধ্যে গেমস পরিষেবার জন্য আনা হয়েছে ৩২ টাকা ও ৬২ টাকার প্ল্যান। ৪২ টাকা ও ৭২ টাকার প্ল্যানদুটি স্পোর্টস পরিষেবার জন্য আনা হয়েছে। আবার কনটেস্ট ও স্টার টক পরিষেবার জন্য পাবেন যথাক্রমে ৪২ টাকা, ৭৩ টাকা, ৫২ টাকা ও ১০৩ টাকার প্ল্যানগুলি।

Vi-এর ৩২ টাকার গেমস প্যাকটির ভ্যালিডিটি ২৮ দিন। এর মধ্যে জনপ্রিয় ২০০ টি গেম খেলার সুযোগ পাওয়া যাবে। গেমগুলি সম্পূর্ণ বিজ্ঞাপনবিহীন। আবার ৬২ টাকার গেমস লং ভ্যালিডিটি প্যাকে ৮৯ দিনের জন্য এই ২০০টি গেম খেলার সুযোগ পাওয়া যাবে।

আবার ৪২ টাকার স্পোর্টস প্যাকের ভ্যালিডিটি ২৮ দিন। এর মধ্যে ক্রিকেট ম্যাচের স্কোর অ্যালার্টের আনলিমিটেড SMS পাওয়া যাবে। এছাড়া এই প্যাকে আপনি কোন স্পোর্টস সেলিব্রিটির সাথে কথা বলার সুযোগ পেয়ে যেতে পারেন। ৭২ টাকার স্পোর্টস লং ভ্যালিডিটি প্যাকে একই সুবিধা পাওয়া যাবে, তবে এর ভ্যালিডিটি ৮৯ দিন।

এদিকে ৫২ টাকার Star Talk প্যাকে ২৮ দিনের জন্য বলিউড সেলিব্রেটিদের সঙ্গে লাইভ চ্যাটের সুযোগ থাকবে। মাসে অন্তত পাঁচটি ইভেন্টে আপনি কোন না কোন সেলেব্রিটির সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। আবার ১০৩ টাকার Star Talk লং ভ্যালিডিটি প্যাকে এই সুবিধা ৮৯ দিনের জন্য উপলব্ধ।

৪২ টাকার কনটেস্ট প্যাকের ভ্যালিডিটি ২৮ দিন। এর মধ্যে বিভিন্ন পুরস্কার, গোল্ড ভাউচার ইত্যাদি জেতার সুযোগ পাওয়া যাবে। আবার ৭৩ টাকার কনটেস্ট লং ভ্যালিডিটি অফারটিতে একই সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে এর ভ্যালিডিটি ৮৯ দিন। ভারতের সমস্ত টেলিকম সার্কেলে এই অফার গুলি উপলব্ধ