BMW Motorrad ভারতে ম্যাক্সি-স্কুটার আনছে, আর্বান রাইডিংয়ের মজা হবে দ্বিগুণ

bmw-motorrad-new-maxi-scooter-india-launch-teased-coming-soon
BMW Motorrad ভারতে ম্যাক্সি-স্কুটার আনছে

ইয়ামাহা (Yamaha) ও এপ্রিলিয়া (Aprilia)-র পর এবার জার্মান সংস্থা বিএমডব্লিউ মোটোর‌্যাড (BMW Motorrad) ভারতে ম্যাক্সি-স্কুটার (Maxi-Scooter) লঞ্চ করতে চলেছে। সাধারণ স্কুটারের চেয়ে আকারে বড় হয় এই ম্যাক্সি-স্কুটার। দীর্ঘ দূরত্ব সফর করার জন্য ম্যাক্সি-স্কুটার একেবারে আদর্শ। চালাতেও বেশ আরাম! অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেল থেকে ভারতে তাদের প্রথম ম্যাক্সি-স্কুটারের শীঘ্রই আত্মপ্রকাশের ঘোষণা করেছে বিএমডব্লিউ মোটোর‌্যাড। সঙ্গে রাতে সফররত বড় একটি স্কুটারের অন্ধকারময় ছবি দেখিয়েছে তারা। সেইসঙ্গে দেওয়া হয়েছে বার্তা – আর্বান রাইডিংয়ের মজাকে তারা নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দেবে। ব্যাস, ওটুকুই! আর কিছু বলতে নারাজ প্রিমিয়াম মোটরবাইক তৈরির প্রতিষ্ঠানটি। কবে ভারতে লঞ্চ হবে, স্পেসিফিকেশন কেমন হবে—কিচ্ছু না।

BMW Motorrad কোন মডেলের ম্যাক্সি-স্কুটার ভারতে আনবে?

আর্ন্তজাতিক বাজারে উপলব্ধ বিএমডব্লিউ মোটোর‌্যাডের ম্যাক্সি-স্কুটারের মধ্যে একটি ভারতে পা রাখতে পারে। সেক্ষেত্রে তাদের BMW C 400 GT, BMW C 400 X ও  মিড-সাইজ ম্যাক্সি-স্কুটারের মধ্যে একটি ভারতে লঞ্চ হওয়ার সম্ভাবনা আছে। দু’টো স্কুটারেই রয়েছে ৩৫০ সিসি-র ইঞ্জিন এবং চলতি বছরের শুরুতেই বিএমডব্লিউ নতুন কালার এবং ফিচার-সহ এদেরকে আপডেট করেছিল। এই ম্যাক্সি-স্কুটারদ্বয়ের মধ্যে BMW C 400 GT-এর ভারতে লঞ্চ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। প্রসঙ্গত, বর্তমানে ভারতে সবচেয়ে বড় ইঞ্জিন (১৬০ সিসি) ক্যাপাসিটির ম্যাক্সি-স্কুটার হল Aprilia SXR 160। সুতরাং, লঞ্চের পর সেই তকমা পাবে ৩৫০ সিসি ইঞ্জিনের BMW C 400 GT।

BMW Motorrad new maxi scooter India

BMW C 400 GT ও BMW C 400 X 2021 আপডেট

বিএমডব্লিউ সি ৪০০ জিটি ও বিএমডব্লিউ সি ৪০০ এক্স-এর ২০২১ ভার্সনে অন্যতম তাৎপর্যপূর্ণ আপডেট হল ই-গ্যাস (e-gas) সিস্টেম। নতুন মডেলের ৩৫০ সিসি সিঙ্গেল সিলিন্ডার, লিকুইড কুল্ড ইঞ্জিনে ই-গ্যাস সিস্টেম যুক্ত হয়েছে, যা মূলত থ্রোটল-বাই-ওয়্যার সিস্টেমের আপডেটেড রূপ।

পাশাপাশি বিএমডব্লিউ সি ৪০০ জিটি এবং বিএমডব্লিউ সি ৪০০ এক্স-এর নতুন ভার্সনে ইঞ্জিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম আপডেট করা হয়েছে। ভারতে বিএস-৬ এর মতো ইউরোপে ইউরো-৫ দূষণ বিধির মাপকাঠি মেনে ম্যাক্সি-স্কুটারের একজস্ট সিস্টেমের উপর কাজ করা হয়েছে। পাশাপাশি, সংশোধিক সিলিন্ডার, নতুন ক্যাটালাইটিক কনভার্টার-সহ এতে নতুন অক্সিজেন সেন্সর দেওয়া হয়েছে। ইঞ্জিনের আউটপুটের কথা বললে, এটি ৭,৫০০ আরপিএম গতিতে ৩৩.৫ বিএইচপি পাওয়ার এবং ৫,৭৫০ আরপিএম গতিতে ৩৫ এনএম টর্ক উৎপাদন করতে সক্ষম। সর্বোচ্চ গতিসীমা ঘন্টায় ১৩৯ কিমি।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপে শুভ্রর প্রথম প্রযুক্তি বিষয়ক লেখায় হাতেখরি৷ স্নাতক স্তরের পড়াশোনার পাশাপাশি এখানেই চলতে থাকে শুভ্রর লেখালেখি৷ কলেজের অধ্যায় শেষ হওয়ার পর শুভ্র এখন টেকগাপের কনটেন্ট টিমের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য৷