BSNL গ্রাহকদের জন্য খারাপ খবর, 4G এর জন্য অপেক্ষা বাড়লো

একথা বিশ্বাস করা হয় যে, সরকারি টেলিকম কোম্পানি BSNL এর কাছে ফোরজি নেটওয়ার্ক না থাকার কারণে, তারা বাকি কোম্পানিদের থেকে পিছিয়ে পড়ছে। তবে বিএসএনএলের তরফে চেষ্টা করা হচ্ছিল যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ফোরজি নেটওয়ার্ক পরিষেবা চালু করা যায়। কয়েকটি অঞ্চলে চালু ও করা হয়েছিল এই পরিষেবা। এছাড়া দেশজুড়ে আরো ৫০,০০০ সাইটে ৪জি নেটওয়ার্ক চালু করার চেষ্টা করছিল কোম্পানি। এই জন্য টেন্ডার ডাকা হয়েছিল এবং বিডিং শেষ হওয়ার কথা ছিল ৮ মে ২০২০ তে। তবে এরই মধ্যে কোম্পানি ১৫ দিনের জন্য বিডিং এর কাজ বন্ধ রাখবে বলে জানিয়েছে। মনে করা হচ্ছে লকডাউন ৩ মে পর্যন্ত বাড়ার কারণে কোম্পানি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

4G টেন্ডারে স্থগিতাদেশ আনলো BSNL :

সরকারি টেলিকম কোম্পানির বিএসএনএল হলো একমাত্র টেলিকম অপারেটর যারা ১২০ মিলিয়ন গ্রাহককে ৪জি পরিষেবা দিচ্ছে না । যদিও বিএসএনএল কুড়িটি টেলিকম সার্কেলের কিছু কিছু জায়গায় তাদের ফোরজি পরিষেবা চালু করেছে। ৪জি চালু হলেই বিএসএনএল জিও ভোডাফোন আইডিয়া এবং এয়ারটেল এর সাথে প্রতিযোগিতা করতে পারবে। অনেক গ্রাহকই অপেক্ষা করছিল বিএসএনএলের এই নতুন পরিষেবার। তবে কোম্পানি নতুন একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে, ফোরজি টেন্ডারে আপাতত ১৫ দিনের স্থগিতাদেশ আনা হয়েছে।

স্যামসাং, জেডটিই আগ্রহ দেখিয়েছে :

সম্প্রতি একটি রিপোর্টে প্রকাশ করা হয়েছে বিএসএনএলের ফোরজি সম্প্রসারণের কাজ করতে আগ্রহ দেখিয়েছে স্যামসাং, জেডটিই, নোকিয়া এবং এরিকসনের মত কোম্পানি। আপনাকে জানিয়ে রাখি স্যামসাং ইতিমধ্যেই রিলায়েন্স জিওর সাথে সারা ভারতে LTE নেটওয়ার্ক নিয়ে কাজ করছে। বিএসএনএল এর আগে তাদের নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের কাজ জেডটিই এর সাথে শুরু করেছিল। বিএসএনএলের তরফে বলা হয়েছে, তাদের এই নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণের কাজের জন্য ১১,০০০ কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে। এখন দেখার কত তাড়াতাড়ি BSNL সারা ভারতে ফোরজি নেটওয়ার্ক নিয়ে আসতে পারে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।