লাভের অংক দেখালেও BSNL কে বন্ধের প্রস্তাব অর্থমন্ত্রকের!

  

বেসরকারি কোম্পানিদের চাপে জীর্ণ ও মরাপ্রায় দুই সরকারি টেলিকম সংস্থা, ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড ও মহানগর টেলিফোন নিগমকে বন্ধের প্রস্তাব দিলো অর্থমন্ত্রক। বেশ কিছু বছর ধরেই এই দুই কোম্পানি দুটি প্রবল অর্থাভাবে ভুগছিল। সেকারণে ৭৪,০০০ কোটি টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে বিএসএনএল এবং এমটিএনএল কে পুনরায় ভালো পরিস্থিতি ফেরানোর যে প্রস্তাব দিয়েছিলো টেলিকম দপ্তর, তা নাকচ করে দিয়েছে অর্থদপ্তর। পাশাপাশি এই দুটি সার্ভিস অপারেটরকে পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে।

টেলিকম দপ্তরের থেকে জানানো হয়েছিল এই দুটি সার্ভিস প্রোভাইডারকে বন্ধ করে দিলে সরকারের প্রায় ৯৫,০০০ কোটি টাকা খরচ হতে পারে, যা এই দুটি সার্ভিস প্রোভাইডারের রিভাইভাল প্ল্যানের তুলনায় অনেক বেশি খরচসাপেক্ষ। তবে অর্থদপ্তর দাবী জানিয়েছে যে, এত বেশি টাকা তাদের খরচ হবে না কারণ টেলিকম দপ্তরের এই প্ল্যানে বিএসএনএল এবং এমটিএনএলের ১.৬৫ লক্ষ কর্মীর ভলেন্টিয়ারী রিটায়ারমেন্টের টাকাই বেশি ছিল।

Amazon প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

এই দুটি সার্ভিস প্রোভাইডার কোম্পানি দুটিতে তিনভাবে কর্মী নিয়োগ করা হতো। এই স্কিমগুলি হলো- ১) ফার্মগুলিতে সরাসরি নিয়োগ। ২) যারা অন্য পাবলিক সার্ভিস প্রোভাইডার সরকারি কোম্পানি থেকে এই কোম্পানিতে যুক্ত হয়েছেন। ৩) ইন্ডিয়ান টেলিকমিউনিকেশন সার্ভিস অফিসার।

কোম্পানি বন্ধের পর টেলিকমিউনিকেশন সার্ভিস অফিসারদের ভলেন্টিয়ারী রিটারমেন্ট স্কিম ছাড়াও অন্য সরকারি দপ্তরে কাজ দেওয়া যেতে পারে। যারা এই কোম্পানি দুটিতে সরাসরি নিযুক্ত হয়েছিলেন তারা হলেন সবথেকে নিচুস্তরের কর্মী, মূলত টেকনিশিয়ান। এদের মাসিক বেতন কম। এই ধরনের কর্মীদের সরাসরি একটি ভলেন্টিয়ারী রিটারমেন্ট স্কিমের মধ্যে রাখা হবে।

সরকারের তরফ থেকে এই দুটি সার্ভিস প্রোভাইডারকে জানানো হয়েছে যাতে তারা তাদের কর্মীদের বেতনের ক্রম এবং কর্মীদের সংখ্যা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অর্থ দপ্তরের কাছে জানায়। বিএসএনএলের কর্মীদের কাজ করার বয়স সীমা ৬০ থেকে কমিয়ে ৫৮ করে দেওয়ার ফলে এই ভলেন্টিয়ারী রিটায়ারমেন্ট স্কিমের খরচ বেশ কিছুটা কমেছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিএসএনএলের রিভাইভাল প্ল্যানে জানানো হয়েছিল এই সার্ভিস প্রোভাইডার কোম্পানিটির ২০১৯ অর্থবর্ষে লোকসানের পরিমাণ ছিল ১৩,৮০৪ কোটি, যা ২০২০ অর্থবর্ষে বেড়ে দাঁড়াবে ১৮,২৩১ কোটি টাকা। তবে ২০২১ অর্থবর্ষে লোকসানের পরিমাণ কমে হবে ৫,৪৩২ কোটি টাকা। বিএসএনএল এর তরফ থেকে জানানো হয় রিভাইভাল পরবর্তী সময়ে ২০২৩ অর্থবর্ষে তাদের লোকসান কমে দাঁড়াবে ৩৯৬ কোটি টাকা এবং ২০২৪ অর্থবর্ষে লাভ হবে ২,২৩৫ কোটি টাকা। তবে তা মানতে রাজি নয় অর্থ দপ্তর।

Amazon থেকে প্রোডাক্ট কিনতে এখানে ক্লিক করুন

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন