দ্রুত 4G নেটওয়ার্ক আনতে জেডটিই এবং নোকিয়ার সাথে হাত মেলালো BSNL

bsnl-for-faster-4g

বিএসএনএল বর্তমানে মরিয়া চেষ্টা করছে তাদের আপাতত চালু থাকা ২জি এবং ৩জি সার্ভিসকে ৪জি-তে নিয়ে যাওয়ার। তবে এই সরকারি টেলিকম কোম্পানিটিকে এই কাজটি করার জন্য বিশেষ সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। টেলিকম ইকুইপমেন্ট এবং সার্ভিস এক্সপার্ট প্রোমোশন কাউন্সিল কিছুদিন আগে আপত্তি জানিয়েছে যে, এই টেলিকম অপারেটরের চুক্তি সরকারের ‘ মেক ইন ইন্ডিয়া ‘ উদ্যোগের সঙ্গে কোনরকম সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

যদিও সমস্যা কাটিয়ে BSNL নিজের নেটওয়ার্কের সাইটগুলিকে ৪জি-তে আপগ্রেড করার জন্য জনপ্রিয় কোম্পানি জেডটিই এবং নোকিয়ার সাথে হাত মেলালো। এখনো অব্দি জানা খবর অনুযায়ী, আনুমানিকভাবে ৪৯,৩০০ সাইট আপগ্রেড হতে চলেছে, যার দাম প্রায় ২,৩০০ কোটি টাকা।

তবে BSNL একটি বিষয়ে সাবধান রয়েছে যে, যেকোনো সাইট আপগ্রেড করতে হলে যতটা সময় লাগে, ঠিক তত পরিমাণ ব্যবসা কমেও যেতে পারে। এই টেলিকম জেডটিই এবং নোকিয়ার সাথে একটি চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছে যাতে সব থেকে কম সময়ে এই কাজটি করা যায়। বিএসএনএল জানিয়েছে যে আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলির সাহায্য নিয়ে যদি এই নেটওয়ার্ক আপগ্রেড করা হয় তাহলে অনেক সময় লাগবে।

তবে লক্ষণীয় ব্যাপার হলো, ৪জি স্পেকট্রামে প্রবেশ করতে হলে সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি মূল উপকরণ নির্মাতাদের সাহায্য নিয়ে সাইট আপগ্রেড করা। এবং এই ক্ষেত্রে নোকিয়া এবং জেডটিই সবথেকে ভাল বিকল্প হতে চলেছে বিএসএনএলের কাছে।

সাধারণভাবে টেন্ডারের মাধ্যমে বিএসএনএল এই কাজ করতে রাজি হয়নি। তার কারণ স্বরূপ বিএসএনএলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ২জি এবং ৩জি সাইটগুলিকে ৪জি-তে পরিবর্তন করার জন্য নূন্যতম ৬ মাস সময় লাগে। কিন্তু যদি টেন্ডারের মাধ্যমে এই কাজটি করা হতো তাহলে কম করে হলেও ১৮-২০ মাস সময় লাগতো। পাশাপাশি তাদেরকে প্রত্যেকটি সাইট পিছু ৩৯,০০০ টাকা বেশি খরচ করতে হতো। এই কারণেই বিএসএনএল নোকিয়া এবং জেডটিই-র সাহায্য নিচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।