বন্ধ হবে সরকারি টেলিকম কোম্পানি BSNL? 13,000 কোটি টাকা দেনার দায়ে ডুবে

একটা সময় ছিল যখন BSNL ভারতে একটি জনপ্রিয় টেলিকম কোম্পানি ছিল এবং প্রচুর মুনাফা অর্জন করেছিল। এই কোম্পানি তখন প্রতিমাসে 10,000 কোটি টাকা আয় করতো। তবে সময় যত এগিয়েছে, ততই ব্যবসা কমেছে এই কোম্পানির। পরিকাঠামোর অভাবে বিএসএনএল কোনো প্রতিযোগিতাই গড়ে তুলতে পারেনি অন্য কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে। সম্প্রতি একটি রিপোর্টে জানা গেছে কোম্পানিটি 13,000 কোটি টাকা দেনার দায়ে ডুবে রয়েছে।

বিশেষ করে রিলায়েন্স জিও আসার পর বিএসএনএল আরো কোনঠাসা হয়ে পরে। যখন সমস্ত কোম্পানি ফোরজি নেটওয়ার্ক নিয়ে ব্যস্ত, তখন থ্রিজি নেটওয়ার্কে ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যাওয়া মোটেই সম্ভব ছিলোনা বিএসএনএল এর পক্ষে। এখনো ভারতের অন্য টেলিকম কোম্পানি যখন 5G নিয়ে কাজ শুরু করেছে। তখন BSNL 4G এর টেস্টিং করছে। এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতেই পারে যে বিএসএনএল ঠিক কোথায় ভুল করলো যে আজ বন্ধ হওয়ার সম্ভবনা তৈরী হয়েছে। সত্যি কি ভবিষ্যতে বিএসএনএল উঠে যাবে ?

BSNL এর সাথে কি হয়েছে? বিএসএনএল বিভিন্ন দিক থেকে সমস্যায় জর্জরিত। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে কর্মচারীরা স্যালারি পর্যন্ত পাচ্ছে না। তারা সরকারের সাহায্যে চাইছে।

সরকার কিভাবে বিএসএনএলকে সাহায্য করবে? সরকার কর্মচারীদের স্যালারি দেওয়ার জন্য 850 কোটি টাকা লোনের ব্যবস্থা করেছে। এরফলে বেশ কিছু মাস ভালো ভাবে চলবে। এছাড়াও কোম্পানি সরকারকে 2,500 কোটি টাকার সাহায্য চেয়েছে।

BSNL এই পরিস্থিতে কেন? মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, কোম্পানির পরিকাঠামোর উন্নয়ন না ঘটানো এবং সরকারের ভুল নীতির জন্য বিএসএনএল এর আজ এই অবস্থা। পরিকাঠামোর উন্নয়নের জন্য টেলিযোগাযোগ বিভাগ কোম্পানিকে লোন নিতে বলেছে।

বিএসএনএল কি থাকবে? এই প্রশ্নের জবাব সত্যি আমাদের কাছে নেই। তবে লোন নিয়ে কোনো কোম্পানি কতদিন চলতে পারে? তাই সুষ্ঠ কোনো উপায় না বার হয়ে আসলে ভবিষৎতে হয়তো… ।

পড়ুন : BSNL এবং Airtel গ্রাহকদের জন্য সুখবর, আকাশ ও জলপথেও পাওয়া যাবে ইন্টারনেট

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

টেক ভিডিও দেখার জন্য আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন – এখানে ক্লিক করুন

Last Updated on