গ্রাহক ধরতে বিনামূল্যে সিম দিচ্ছে BSNL, মানতে হবে এই শর্ত

‘এবার বিনামূল্যেই কেনা যাবে নতুন সিম কার্ড! ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থা ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড (BSNL) সম্প্রতি এমন একটি স্কীম নিয়ে এসেছে, যেখানে সিম কার্ড কেনার জন্য গ্রাহককে কোন অর্থ ব্যয় করতে হবে না! আসলে টেলিকম কোম্পানিগুলির মধ্যে লড়াইয়ে বিএসএনএল অনেক পিছিয়ে। গ্রাহক সংখ্যার বিচারে তারা রিলায়েন্স জিও বা এয়ারটেলের ধারেকাছেও নেই। কারণ দেশের সর্বত্র ৪জি পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে তাদের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। উপরন্তু তারা বেসরকারি সংস্থাগুলির সঙ্গে মার্কেটিংয়েও পেরে ওঠে না। ফলে বিএসএনএলের প্রতি মানুষের আগ্রহ আপাতত অনেক কম। সম্ভবত এইসব কারণগুলি মাথায় রেখেই তারা বিনামূল্যে সিম প্রদানের মতো স্কীম নিয়ে এল। যদিও এক্ষেত্রে সামান্য শর্ত রয়েছে। আসুন BSNL এর এই অফার সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

প্রথমেই বলে রাখি অফারটি একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার জন্য বরাদ্দ। যে সমস্ত গ্রাহক আগামী ১৭ই ডিসেম্বর, ২০২০ থেকে ১লা জানুয়ারি, ২০২১ এর মধ্যে BSNL এর নতুন কানেকশন নিচ্ছেন, কেবল তারাই এই ‘বিনামূল্যে সিম কার্ড’ স্কীমের ফায়দা তুলতে পারবেন। এছাড়া বিনামূল্যে সিম কার্ড পেতে হলে আপনাকে ন্যূনতম ১০০ টাকা বা তার বেশী মূল্যের ফার্স্ট রিচার্জ প্ল্যান বেছে নিতে হবে। সুতরাং ১৭ই ডিসেম্বর থেকে আগামী ১৬ দিন সময়কালের মধ্যে নতুন কানেকশন গ্রহণকারী যদি ১০০ টাকা বা তার বেশি মূল্যের রিচার্জ প্ল্যান ব্যবহার করেন তবে সিম কার্ডের জন্য তাদের আলাদা করে কোন টাকা দিতে হবে না।

প্রসঙ্গত বিএসএনএল এর বিনামূল্যে সিমের অফার নতুন নয়। গত মাসে অর্থাৎ নভেম্বরেও ১৪-২৮ তারিখের মধ্যে নতুন কানেকশন গ্রহণকারীদের সিম কার্ডের জন্য অতিরিক্ত কোন টাকা দিতে হয়নি। গত মাসেও যে সমস্ত নতুন গ্রাহক ১০০ টাকা বা তার বেশী মূল্যের ফার্স্ট রিচার্জ প্ল্যান ব্যবহার করেছেন, তারা এই অফারটির লাভ ওঠাতে পেরেছিলেন।

এই অফার থেকে স্পষ্ট যে বাজারের জনপ্রিয় টেলিকম কোম্পানিরগুলি কে টেক্কা দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএসএনএল। গ্রাহক ধরার জন্য ইতিমধ্যেই সংস্থাটি শুল্কহীন পরিষেবার গুরুত্ব বুঝতে পেরেছে। সেই কারণেই তারা নিজেদের সিলেক্টেড ব্রডব্যান্ড কাস্টোমারদের জন্য বিনামূল্যে ডিজনি প্লাস হটস্টার প্রিমিয়াম অ্যাক্সেসের সুবিধা দিচ্ছে। শুধু তাই নয়, সাম্প্রতিককালে BSNL নিজেদের ইন্টারনেট স্পীডও কিছুটা বাড়িয়েছে। ফেয়ার ইউজেস পলিসি (FUP) লিমিট পার করার পর ব্রডব্যান্ড কানেকশন ব্যবহারকারীরা ইন্টারনেটের এই গতি পরিবর্তনের ব্যাপারটি উপলব্ধি করতে পারবেন।