অন্তর্বর্তী বাজেট ২০১৯ : আশায় বুক বাঁধছে টেক দুনিয়া

এই বাজেটের উপর আশায় বুক বাঁধছেন কিছু আইটি ইন্ডাস্ট্রি, স্মার্টফোন মার্কেট, টেলিভিশন মার্কেট, এবং কিছু নবাগত কোম্পানীও

আজ শুক্রবার, ১ লা ফেব্রুয়ারী ২০১৯ এর অন্তর্বর্তী বাজেট ঘোষণা করতে চলেছেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।এটি সাধারণ বাজেটের থেকে অনেকটাই আলাদা।এই বাজেটের উপর আশায় বুক বাঁধছেন কিছু আইটি ইন্ডাস্ট্রি, স্মার্টফোন মার্কেট, টেলিভিশন মার্কেট, এবং কিছু নবাগত কোম্পানীও।আসুন জেনে নেওয়া যাক অন্তর্বর্তী বাজেট সম্পর্কে বিভিন্ন কোম্পানীর অধিকারিকরা কী মতামত দিয়েছেন।

আশ্বিনভাণ্ডারী,সিইও,iVOOMi : 

আশ্বিন ভাণ্ডারী জানান, “আমরা ভারত সরকারকে বাহবা জানাই PMP পরিচালনা এবং বজায় রাখার জন্য।আমরা ভারত সরকারের বাজেট পেশের অপেক্ষায় আছি।নতুন বাজেটে বিশ্বের সাথে ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়ে উঠবে বলেই মনে করছি।আগামী তিন বছরে ভারত বিশ্বের উৎপাদন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে উঠবে।“

পঙ্কজ মহিন্দ্রা,চেয়ারম্যান,আইসিএ :

পঙ্কজ মহিন্দ্রা জানান, “ভারতীয় কোম্পানিগুলোর জন্য, সরকার এমন একটি বিশেষ প্যাকেজ তৈরি করবে যা থেকে এই কোম্পানিগুলি বিশ্বব্যাপী সুযোগ নিতে পারে।একই সাথে সরকারকে একটি কাঠামো তৈরি করতে হবে যা প্রযুক্তির ক্ষেত্রে দেশীয় কোম্পানীগুলির অবদান বাড়িয়ে তুলবে।শুধুমাত্র তখনই এই ভারতীয় কোম্পানী বিশ্ব বাজারে তাদের চিহ্ন তৈরি করবে।আই সিএ সুপারিশ করেছে যে আইটি আইনের, ধারা ৪০ এর অধীনে ১০ বছরের কারাদণ্ডে ১৫ থেকে ২০ বছর বাড়ানো উচিত।

যোগেশ ভাটিয়া,এমডি,ডেটেল :

যোগেশ ভাটিয়া বলেন, “শিল্প রিপোর্ট অনুযায়ী, ১০০ মিলিয়নেরও বেশি পরিবার এখনো টিভি থেকে বঞ্চিত। এই বিষয়টি মাথায় রেখে, আমরা ভারত সরকারকে এলইডি টেলিভিসনের উন্নয়নের জন্য ৪০ ইঞ্চি টিভিতে জিএসটি ৫% কমিয়ে আনতে অনুরোধ জানাই।কারণ ৪০ ইঞ্চি টিভি ডিজিটাল ভারতের একটি বড় পণ্য।আমরা আশা করছি যে টিভিতে ৪৩ ইঞ্চি থেকে ৫৫ ইঞ্চি,জিএসটি ২৮ % থেকে ১৮% এ কমে যাবে।

পড়ুন : নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো হাইকোর্ট, গ্রাহকদের কথা ভেবেই কেবল টিভির নতুন নিয়ম জানালো ট্রাই