সুপারকারের দুনিয়ায় অদ্বিতীয় Bugatti তাদের প্রথম ইলেকট্রিক স্কুটার সামনে আনল

bugatti-unveils-its-first-electric-vehicle-a-sleek-stylish-e-scooter

বুগাত্তি (Bugatti) সুপারকার তৈরির জন্য প্রসিদ্ধ। সংস্থাটির গাড়ির গতি, ক্ষমতা, এবং স্টাইলের কোনও তুলনা হয় না। আভিজাত্য এবং অত্যাধুনিক প্রযুক্তি বুগাত্তির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে। সেই বুগাত্তি এবার তাদের প্রথম বিদ্যুৎচালিত গাড়ি সামনে এনেছে। সেটি অসীম ক্ষমতাশালী কোনও ইলেকট্রিক হাইপারকার বা হাইপারবাইক নয়। একটি ব্যাটারিচালিত ছোট্ট স্কুটার প্রদর্শন করেছে তারা।

পারফরম্যান্সের ক্ষেত্রে বুগাত্তি বরাবরই রক্ষণশীল হিসেবে পরিচিত। রাস্তায় গতির স্ফুলিঙ্গ তুলতে অক্ষম এমন কোনও গাড়ি সংস্থাটি বাজারে আনে না। কিন্তু ই-স্কুটারে সেই চেনা ছক ভেঙে গিয়েছে। এর সর্বোচ্চ গতিসীমা ঘন্টা প্রতি ৩০ কিলোমিটার। ভিতরে রয়েছে ৭০০ কিলোওয়াটের একটি মোটর৷ স্কুটারে একটি ৩৬ ভোল্ট ১০ অ্যাম্পিয়ার আওয়ার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। যা পুরো চার্জ করলে সাধারণ অবস্থায় ৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত যাওয়া যাবে।

বুগাত্তি ই-স্কুটারটি বাইটেক ইন্টারন্যাশনাল (Bytech International) বলে একটি সংস্থার সঙ্গে যৌথ ভাবে তৈরি করেছে। যারা গেমিং হেডসেট এবং ট্রু ওয়্যারলেস ইয়ারবাডসের জন্য বেশি পরিচিত। ই-স্কুটারের ফ্রেম ম্যাগনেশিয়াম অ্যালয় দিয়ে নির্মিত। ওজন মাত্র ১৫.৮ কেজি। খুব হালকা হলেও গঠন অত্যন্ত শক্তপোক্ত।

বুগাত্তির ইলেকট্রিক স্কুটারের বিশেষ ফিচারগুলির মধ্যে রয়েছে হেডলাইট, টেলল্যাম্প, টার্ন সিগন্যাল, ও একটি ডিজিটাল ড্যাশবোর্ড। যা ব্যাটারির অবশিষ্ট চার্জ, রাইডিং মোড, স্পিড, লাইটের স্টেটাস সম্পর্কিত তথ্য দেখাবে।

বুগাত্তির প্রথম ইলেকট্রিক ভেহিকেলের নাম, দাম, এমনকি কবে বাজারে আসবে, সেটাও এখনও জানানো হয়নি। বুগাত্তির গাড়ি মানেই সাধারণের ধরাছোঁয়ার বাইরে, কেনার ক্ষমতা শুধুমাত্র মিলিওনেয়ার -বিলিওনেয়ারদের। অটোমোবাইলের জগতে বুগাত্তির যা ঠিকুজি-কুলুজি, তাতে সংস্থার লোগোযুক্ত সেই ই-স্কুটারের মূল্য চড়া হবে বলেই অনুমান করা যায়।

Shuvro primarily writes about smartphone and automobile industry. He is an assistant editor for techgup. Shuvro has a bachelor degree in English literature. His interest also includes cosmopolitan affairs, scientific discoveries, and quizzing.