ভারতে WhatsApp ও Facebook কে ব্যান করার দাবি জানিয়ে কেন্দ্র কে চিঠি CAIT এর

cait-demands-whatsapp-facebook-ban-in-india-over-new-privacy-policy

নতুন প্রাইভেসি পলিসির কারণে আরও চাপ বাড়লো Facebook মালিকানাধীন WhatsApp এর উপর। ইতিমধ্যেই বহু ইউজার এই ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটির অন্য বিকল্প খুঁজে নিচ্ছে। বিভিন্ন কোম্পানির তরফেও হোয়াটসঅ্যাপের নতুন প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে তীব্র আপত্তি জানানো হয়েছে। তবে এবার কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স (Confederation of All India Traders) সরাসরি ভারতে WhatsApp কে ব্যান করার দাবি জানালো।

প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগেই WhatsApp তাদের নতুন প্রাইভেসি পলিসি সামনে এনেছে। যেখানে বলা হয়েছে সমস্ত ব্যবহারকারির ব্যক্তিগত ডেটা, পেমেন্ট লেনদেন, কন্টাক্ট, লোকেশন এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হোয়াটসঅ্যাপ নিতে পারে এবং যে কোন উদ্দেশ্যে তা ব্যবহার করতে পারে। এই নিয়ম না মানলে ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে অ্যাকাউন্ট ডিলিট করার বার্তাও দিয়ে রেখেছে জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপটি।

এদিকে CAIT এই প্রাইভেসি পলিসির নিন্দা করেছে। তারা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবি শংকর প্রসাদ কে চিঠি লিখে এই নীতি বাস্তবায়ন না করার পাশাপাশি ভারতে Facebook এবং WhatsApp কে ব্যান করতে অনুরোধ করেছে। তারা জানিয়েছে, ভারতে ফেসবুকের ২০ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে। ফলে একটি কোম্পানি যদি এত পরিমান ব্যবহারকারীর ডেটা অ্যাক্সেস করতে সক্ষম হয় তাহলে শুধু অর্থনীতি নয়, দেশের নিরাপত্তার জন্যও একটি গুরুতর সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।

তারা জানিয়েছে, এই ঘটনা আমাদের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির কথা মনে করিয়ে দেয়। যারা কেবল ব্যবসার জন্য এদেশে এসে পরে আক্রমণ শানিয়ে ছিল। হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুকও সেই পথে হাঁটছে। কারণ এখনকার দিনে ডেটার গুরুত্ব অপরিসীম। আর তাই এই দুই আমেরিকার কোম্পানি প্রথমে ভারতে বিনামূল্যে তাদের পরিষেবা দিয়ে এখন ডেটা নেওয়ার চেষ্টা করছে। যেগুলিকে পরবর্তীতে ভারতের বাণিজ্য ও অর্থনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে কাজে লাগাতে পারে।

I'm magnetically attracted to everything that implies innovation... And Rock 'N Roll!