চীনে অনেক আগে থেকেই ব্যান টিকটক, সামনে এল আরও অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য

china-does-not-allow-global-short-video-making-platform-tiktok-in-their-country

TikTok, সারা বিশ্বে এই অ্যাপটির যেমন জনপ্রিয়তা, তেমনই আবার এটি নেটিজেনদের একাংশের অপছন্দের কারণ। আপনি নিশ্চয় জানেন সম্প্রতি এই ভিডিও মেকিং চীনা অ্যাপটি ভারতে ব্যান করা হয়েছে। কিন্তু আশ্চর্যের ব্যাপার হল টিকটকের নির্মাতা দেশ চীনেই অ্যাপটি নিষিদ্ধ। শুনতে অবাক লাগলেও, ঘটনাটি সত্য। চীনে টিকটক ব্যবহার করা যায়না এবং স্মার্টফোন ইউজাররা চাইলেও এই অ্যাপটিতে অ্যাকাউন্ট তৈরি করার অপশন পাবেন না।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, টিকটকের পরিবর্তে চীনের মানুষ “Douyin” নামের একটি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করেন। নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে ডউইন নামের ওই অ্যাপটি টিকটকের একটি চীনা সংস্করণ, কারণ এই বিকল্প অ্যাপ্লিকেশনটিতে টিকটকের মতোই সমস্ত ফিচার রয়েছে। তবে এটি চীনের বাইরে ব্যবহার বা অ্যাক্সেস করা যায়না। এর কারণ, চীন সরকার দেশের নাগরিকদের ভিডিও বিশ্বব্যাপী স্মার্টফোন ইউজারদের সাথে শেয়ার করতে চায়না। এই একই কারণে চীনা কোম্পানি বাইটড্যান্স দ্বারা নির্মিত টিকটক একটি গ্লোবাল প্লাটফর্ম হওয়ায় ওই দেশে নিষিদ্ধ।

চীন, স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের অনলাইন ক্রিয়াকলাপ সম্পর্কে খুব সজাগ এবং চীনের সাইবারস্পেসে প্রচুর বিধিনিষেধ রয়েছে। ফেসবুক থেকে শুরু করে হোয়াটসঅ্যাপ সমস্ত গ্লোবাল সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের উপর সরকারের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। চীনা ব্যবহারকারীরা ফেসবুকের পরিবর্তে Weibo, গুগলের পরিবর্তে Baidu, ইউটিউবের পরিবর্তে Youku এবং হোয়াটসঅ্যাপের পরিবর্তে WeChat ব্যবহার করেন। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ্লিকেশন বা সার্চ ইঞ্জিনের ভাষাও চাইনিজ। এছাড়াও, বিভিন্ন সফ্টওয়্যার চীনা ভাষায় সরবরাহ করা হয়।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন

যদি চীনের কোনো ইউজার টিকটকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান বা অ্যাপটি ব্যবহার করতে চান তবে সে ব্যক্তির অবশ্যই একটি ভিনদেশীয় রেজিস্টার্ড মোবাইল নম্বর থাকতে হবে। ঠিক একইভাবে, যদি চীনের বাইরে কেউ Douyin অ্যাপটি অ্যাক্সেস করতে এবং ব্যবহার করতে চান তবে চীনে রেজিস্ট্রার্ড একটি ফোন নাম্বার থাকা প্রয়োজন।

যদিও গ্লোবাল অ্যাপ এবং সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের জন্য চীনে কোনো শাস্তির নিয়ম আছে এমন কথা জানা যায়নি। দেশটি এমনভাবে সাইবার স্পেস তৈরি করেছে যাতে ব্যবহারকারীরা কেবল চাইনিজ অ্যাপ ব্যবহার করেন। এ কথা বলা যেতেই পারে, দেশের ডেটা সুরক্ষার ব্যাপারে চীনের মনোভাব অন্য যে কোনো দেশের চেয়ে বেশি কঠোর। তাই চীন বিশ্বব্যাপী নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশন সরবরাহ করলেও, সেদেশের নাগরিকদের জন্য বিকল্প সীমিত।

মোবাইল কিনতে এখানে ক্লিক করুন