হাত নয়, চিন্তা অনুযায়ী চলবে ফোন থেকে কম্পিউটার, তৈরী হলো ‘মাইন্ড রিডিং’ চিপ

চীনে একটি ভীষণ দারুন জিনিসের কনফারেন্স হলো বেশ কিছুদিন আগে। উত্তর চীনের তিয়ানজিন মিউনিসিপ্যালিটিতে 1 মে, 2019 এ একটি চিপের প্রদর্শনী হলো ওয়ার্ল্ড ইন্টিলিজেন্স কংগ্রেসের তৃতীয় অধিবেশনে। এই চিপের সাহায্যে ব্যবহারকারী যে কোন কম্পিউটার, স্মার্টফোন ও আরও অন্যান্য নানা জিনিস নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে শুধুমাত্র চিন্তার সাহায্যে। এই চিপের নাম দেওয়া হয়েছে ব্রেন-টকার চিপ। এই চিপটি ব্যবহারকারীর ব্রেন থেকে ছোট ছোট বৈদ্যুতিক পালস সংগ্রহ করে, যেগুলিকে খুব তাড়াতাড়ি কম্পিউটারের বোঝার মতো সিগন্যালে পরিবর্তন করে দেয়।

চায়না ইলেকট্রনিক্স করপোরেশন এবং তিয়ানজিন ইউনিভার্সিটি এই দুই প্রতিষ্ঠান একসাথে কাজ করে এই যুগান্তকারী চিপটি তৈরি করেছে। এই ধরনের ব্রেন কম্পিউটার যন্ত্র গুলি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে একজন ব্যক্তির পক্ষে কম্পিউটার, স্মার্টফোন বা অন্যান্য চালানো সহজ হয়। এই চিপ শুধুমাত্র মানসিক তরঙ্গেতেই কাজ করবে। কোনো প্রকার স্পর্শগত নির্দেশ বা মৌখিক নির্দেশ এখানে কাজ করবে না। এর ব্যবহারের ফলে প্রযুক্তির একটা নতুন দিক খুলে যাবে শুধু তাই নয় প্রতিবন্ধী মানুষদের ও ভীষণ উপকার হবে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় যে কোনো ব্যক্তি শুধুমাত্র মনে মনে ভেবেই একটি হুইলচেয়ার চালাতে সক্ষম হবে।

তিয়ানজিয়ান ইউনিভার্সিটির মেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ডিন ডং মিং বলেছেন যে ” ব্রেন কম্পিউটারের মধ্যে আগামীর এক দারুন ভবিষ্যত লুকানো আছে “। এই ব্রেন টকার চিপ এর সাহায্যে ব্রেন কম্পিউটার টেকনোলজি সাধারণ মানুষের কাছে খুব সহজেই পৌঁছতে পারবে বলে তিনি মনে করেন ।এটি আমাদের মস্তিষ্কের সেরিব্রাল কর্টেক্স অংশ থেকে স্নায়ুর স্পন্দন গ্রহণ করবে এবং তারপর তা অতি দ্রুত ডিকোড করবে কম্পিউটার ল্যাঙ্গুয়েজে। এটাও হয়তো সম্ভব হবে যে এর সাহায্যে একজন প্রতিবন্ধী মানুষ রোবোটিক হাত ব্যবহার করে লিখতে সক্ষম হবে।

এই প্রসঙ্গে বলা যায় যে নেটক্লিক্স 2017 সালে একটি মাইন্ড – রিডিং হেড ব্যান্ড এর কথা বলেছিল যা ইউজার এর চিন্তা অনুযায়ী তার পছন্দের শো গুলি নিজে থেকেই বেছে নেবে। ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট ও স্নায়ুবিজ্ঞান বর্তমানে যথেষ্ট উন্নত হওয়ার ফলে এই ব্রেন টকার চিপ আয়তনে ছোট ও দ্রুত কাজ করতে সক্ষম। যদিও কিভাবে এই চিপ পরিধান করা হবে কি করে এই বিষয়ে সেরকম কিছু আলোকপাত করা হয় নি । বেশিরভাগ ব্রেন কম্পিউটার সংক্রান্ত যন্ত্র শরীরের বাইরে থেকেই পড়ানো হয় যতদূর আজ পর্যন্ত জানা গেছে। আশা করা যায় আর্সেক দশক এর মধ্যে এই বিষয়টি সবার ঘরে ঘরে পৌঁছে যাবে ।

পড়ুন : স্যামসাং নয়, রেডমি-র বাজার নিচ্ছে এই দুই কোম্পানি : রিপোর্ট

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

টেক ভিডিও দেখার জন্য আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন – এখানে ক্লিক করুন

সব খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

Last Updated on