সমস্ত প্রশাসনিক কাজে ব্যবহৃত হবে বৈদ্যুতিক গাড়ি, দূষণ রোধে নয়া সিদ্ধান্ত দিল্লি সরকারের

delhi-government-planing-to-use-all-electric-cars-in-next-6-months

বায়ু দূষণের ফলে দিল্লিবাসীর নাজেহাল হওয়ার কথা আমাদের অজানা নয়। “শ্বাস নিতে পারছি না, চোখ জ্বলছে।”,দিল্লির আমজনতার এরকম বক্তব্য সংবাদমাধ্যমে প্রায় উঠে আসে। যদিও লকডাউন পর্বে জীবন-জীবিকা থমকে যাওয়ায় ফলে ভারতের রাজধানী ও তার আশেপাশে দূষণের মাত্রাও অনেকটাই কমে গেছিল। তবে অর্থনীতির চাকা গড়াতেই পুরোনো চিত্র আবার ফিরে আসছে। ফলে দিল্লিকে যে ফের ভয়ঙ্কর বায়ু দূষণের সম্মুখীন হতে হবে তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। তাই যানবাহনের ফলে সৃষ্ট বায়ুদূষণের মোকাবিলায় দিল্লির কেজরীওয়াল সরকার গতবছর আগস্টে নিজস্ব ইভি নীতি চালুর মাধ্যমে বৈদ্যুতিন গাড়ি কেনার ওপর ভর্তুকি ঘোষণা করেছিল। দিল্লিবাসীর মধ্যে বৈদ্যুতিন গাড়ি ব্যবহারের উপযোগিতা প্রচারের জন্য
মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল এবার আরও বড়োসড়ো পদক্ষপ নেওয়ার কথা ঘোষনা করলেন।

বৈদ্যুতিক যানবাহনের সুবিধাগুলি সর্ম্পকে সচেতনতা বৃদ্ধি ও বৈদ্যুতিন যানবাহন কিনতে উৎসাহ প্রদানের জন্য বৃহস্পতিবার “Switch Delhi” প্রচারাভিযানের সূচনা করে কেজরীওয়াল বলেছেন, “আগামী ছ’মাসের মধ্যে দিল্লি সরকার শুধুমাত্র বৈদ্যুতিন গাড়িই ভাড়া নেবে। ” অর্থাৎ প্রশাসনিক কাজের জন্য দিল্লি সরকার শুধুমাত্র বৈদ্যুতিন যানবাহনের ব্যবহার করবে।

সেইসঙ্গে দিল্লি সরকার নিজের জন্য একটি উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে: কেজরীওয়াল জানিয়েছেন, ২০২৪ সালের মধ্যে দিল্লিতে বিক্রি হওয়া সমস্ত গাড়ির অন্তত ২৫ শতাংশ যাতে বৈদ্যুতিন হয়, তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে চলেছে।

দিল্লির ইলেকট্রিক ভেহিকেল নীতির আওতায় বৈদ্যুতিন যানবাহনের মালিকরা কেমন ভর্তুকি পান তা এখন দেখে নেওয়া যাক-

বৈদ্যুতিক যান চলাচলকে উৎসাহিত করার জন্য, দিল্লি সরকার বর্তমানে বৈদ্যুতিক চার চাকা গাড়ি গুলির জন্য ৫,০০০ টাকা/kWh বা ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ভর্তুকি দেয়। অন্যদিকে ইলেকট্রিক টু-হুইলারের জন্য ৩০,০০০ টাকা অনুদান পাওয়া যায়৷ নতুন নীতিতে অন্যান্য বৈদ্যুতিন গাড়ি, যেমন- ইলেকট্রিক অটো রিক্সা, ই-রিক্সা কিনলেও ভর্তুকি মেলে। এছাড়াও, দিল্লিতে ইলেকট্রিক গাড়ি কিনলে রোড ট্যাক্স এবং রেজিস্ট্রেশন ফি-তেও ছাড় পাওয়া যায়।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন