বাজেয়াপ্ত করা হচ্ছে না ডিজেল গাড়ি, দিল্লিবাসীদের জন্য স্বস্তির বার্তা দিল সরকার

দিল্লিতে সমস্ত ডিজেল চালিত গাড়িগুলিকে বৈদ্যুতিক ভার্সনে পরিবর্তিত করা যাবে

delhi-governments-allow-retrofitting-of-diesel-vehicles-to-electric-ones

দিল্লির গাড়ির মালিকদের জন্য সুখবর! শীঘ্রই বন্ধ হচ্ছে না ডিজেল চালিত যানবাহন, জানালো কেজরিওয়াল সরকার। রাজ্যের সমস্ত ডিজেল চালিত গাড়িগুলিকে বৈদ্যুতিক ভার্সনে পরিবর্তিত করা যাবে। সম্প্রতি এমন বার্তাই দেওয়া হয়েছে দিল্লির রাজ্য সরকারের তরফে। ক্রমশ বেড়ে চলা পরিবেশ দূষণের কারণে ন্যাশনাল গ্রীন ট্রিবুনাল বা NGT ও দেশের শীর্ষ আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী আগামীতে সে রাজ্যের সমস্ত জীবাশ্ম জ্বালানি চালিত গাড়িগুলিকে অচল করে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করার কথা চলছিল। কিন্তু এবার বিকল্প পথের হদিশ মেলায় খানিক স্বস্তি মিলল গাড়ির মালিকদের।

এই প্রসঙ্গে দিল্লির পরিবহনমন্ত্রী কৈলাস গহলট (Kailash Gahlot) টুইটে জানিয়েছেন, “দিল্লি সরকারের সিদ্ধান্ত রাজ্যের ডিজেল গাড়িগুলিকে বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম দ্বারা পরিবর্তিত করা যাবে। এটি পেট্রোল এবং ডিজেল চালিত গাড়িগুলিকে সিএনজি ভার্সনে পরিবর্তিত করার মতোই একটি পদক্ষেপ, যা রাজধানীর বায়ু দূষণের মাত্রা কমিয়ে আনতে সহায়তা করবে।”

দিল্লি সরকারের নতুন এই সিদ্ধান্তগুলি ক্রমানুসারে আলোচনা করা হল :

১) ১০ বছর অথবা তার বেশি পুরানো ডিজেল চালিত গাড়িগুলি খুব শীঘ্রই বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া ন্যাশনাল গ্রীন ট্রিবুনাল এবং সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশানুসারে শুরু করতে চলেছিল দিল্লি সরকার। কিন্তু নয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সেই গাড়িগুলিকে বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ দ্বারা আপডেটেড করানো যাবে। ফলে সেগুলি বাজেয়াপ্ত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে।

২) পরিবহন দপ্তর সূত্রে খবর, স্থানীয় বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশ দ্বারা ডিজেল ইঞ্জিন চালিত গাড়ি পুনর্নির্মিত করা হয় এমন ম্যানুফ্যাকচারারদের একটি তালিকা তৈরি করেছে কেজরিওয়াল সরকার। তবে সমস্ত ম্যানুফ্যাকচারারদের এই কাজটি করার জন্য শংসাপত্র থাকা আবশ্যক।

৩) সিএনজি মাধ্যমের মত বৈদ্যুতিক যন্ত্রাংশগুলির শংসাপত্রটি বিশ্বজনীন হতে হবে, মানে গাড়ির নির্দিষ্ট মডেল ভিত্তিক না হয়ে সেগুলি যেন যেকোনো গাড়িতেই সংযুক্তকরণের উপযোগী হয়। কারণ এই যন্ত্রাংশগুলি যদি গাড়ির নির্দিষ্ট মডেল ভিত্তিক হয় সেক্ষেত্রে মূল্যবৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

৪) যানবাহন থেকে নির্গত ধোঁয়াকেই দিল্লির বায়ু দূষণের মুখ্য কারণ হিসেবে গণ্য করা হয়। বিশেষত কমার্শিয়াল ডিজেল জ্বালানি নির্ভর গাড়িগুলি এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। দিল্লি সরকারের উল্লিখিত সিদ্ধান্তটি পর্যবসিত হলে পরিবেশের জন্য অতি সহায়ক হবে।

৫) ইলেকট্রিক যন্ত্রাংশগুলি ডিজেল গাড়িতে স্থাপন করা হলে রাজ্যে বৈদ্যুতিক ক্ষেত্রে গতিশীলতা আসবে এবং গাড়িগুলি থেকে বিষাক্ত ধোঁয়ার নির্গমন বন্ধ করা যাবে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।