এক্ষুনি মেটাতে হবে ১,৫০০ কোটি টাকা, নইলে পরিষেবা বন্ধ হতে পারে BSNL এর

প্রবল সমস্যায় পড়তে পারে সরকারি টেলিকম কোম্পানি BSNL এর গ্রাহকরা। রিপোর্ট অনুযায়ী যদি কোম্পানি এইমুহূর্তে ১,৫০০ কোটি টাকা বকেয়া না মেটায় তাহলে পরিষেবা চালিয়ে রাখা সম্ভব হবেনা। টাওয়ার অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন (TAIPA) এর তরফে বলা হয়েছে, যদি বিএসএনএল পিইউসি ধরে রাখতে চায় তাহলে বিদ্যুৎ, ডিজেল, ব্যাটারির মতো প্রয়োজনীয় বিল পরিশোধ করতে হবে। টিএআইপিএ আরও জানিয়েছে যে, সময়মতো বকেয়া পরিশোধ না করায় ইতিমধ্যেই কিছু জায়গায় মোবাইল পরিষেবা সমস্যার মুখে।

দীর্ঘদিন যাবত বকেয়া না মেটানোর কারণে TAIPA, ইতিমধ্যেই বিএসএনএল চেয়ারম্যান/ম্যানেজিং ডিরেক্টর পিকে পূর্বার কে চিঠি দিয়েছে। টিএআইপিএ এর ডিরেক্টর জেনারেল টিআর দুয়া বলেছেন যে, তিনি এই বিষয়ে বিএসএনএল সিএমডির হস্তক্ষেপ প্রত্যাশা করছেন। চিঠি তে তিনি আরও বলেছেন যে, টেলিকম অবকাঠামো সংস্থাগুলি আগেই থেকেই আর্থিক সঙ্কটে ভুগছে এবং এই লকডাউনের সময় নেটওয়ার্ক সঠিকভাবে চালিত রাখার জন্য কঠোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে বকেয়া পরিশোধ না করলে পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়। তবে বিএসএনএল এখনও এ বিষয়ে কোনও বিবৃতি দেয়নি।

সমস্যায় পড়বে গ্রাহকরা :

বকেয়া না পরিশোধ করলে বিএসএনএল গ্রাহকরা অনেক সমস্যায় পড়তে পারেন। কারণ ইতিমধ্যেই কিছু জায়গায় নেটওয়ার্ক সমস্যা দেখা দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে যদি এই সমস্যাটি অব্যাহত থাকে তবে এই লকডাউনের সময় ব্যবহারকারীদের অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে পারে। এই মুহুর্তে, শুধুমাত্র ফোনের মাধ্যমে মানুষ তাদের পরিবারের সাথে কথা বলতে পারছে।

টিএআইপিএ বকেয়া মেটানোর জন্য ইন্দাস টাওয়ার লিমিটেড, ATC টেলিকম ইনফ্রাস্ট্রাকচার প্রাইভেট লিমিটেড, ভারতী ইনফ্রিটল লিমিটেড, টাওয়ার ভিশন লিমিটেড, স্টেরাইল টেকনোলজিস লিমিটেড, স্পেস টেলিলিংক লিমিটেড, অ্যাপ্লাইড সোলার টেকনোলজিস এবং কসলাইট ইন্ডিয়া লিমিটেডের ও হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। আপনাকে জানিয়ে রাখি, বিএসএনএলের মোবাইল টাওয়ার ফার্ম এটিসি’র ৬০৬ কোটি টাকা, ব্রডব্যান্ড টেকনোলজির ৪৮৮ কোটি টাকা, ইন্দাস টাওয়ারের ১২৭ কোটি টাকা, টাওয়ার ভিশনের ১১৮.২ কোটি এবং ভারতী ইনফ্রিটলের ১০০ কোটি টাকা বকেয়া আছে।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।