এই শর্ততে প্রোডাক্ট ডেলিভারি শুরু করছে Amazon-Flipkart, কিনতে পারবেন ফোন, ল্যাপটপ

কেন্দ্র সরকার লকডাউন আরও দুইসপ্তাহ বাড়িয়ে দিয়েছে। লকডাউনের তৃতীয় পর্যায় ৪ মে থেকে শুরু হয়ে ১৭ মে পর্যন্ত চলবে। তবে এই লকডাউনে অনেক নিয়ম শিথিল করেছে সরকার। যেখানে ই-কমার্স সাইটগুলিকে স্মার্টফোন ও ল্যাপটপ বিক্রির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। Amazon ও Flipkart তাদের প্রোডাক্ট ডেলিভারি এবার শুরু করবে। তবে তা কেবল গ্রীন ও অরেঞ্জ জোনে করতে পারবে। যদিও রেড জোনে এই সুবিধা এখনই উপলব্ধ নয়।

ই-কমার্স সাইট গুলি থেকে বলা হয়েছে, এখন গ্রিন ও অরেঞ্জ জোনে বসবাসরত লোকেরা ৪ মে থেকে স্মার্টফোন, ল্যাপটপ এবং অন্যান্য গ্যাজেট অর্ডার করতে পারবেন। পেটিএম মলের সিনিয়র সহ-সভাপতি শ্রীনিবাস মথ বলেছেন, গ্রাহকরা এসি, ফ্রিজ এবং এমনকি গ্রীষ্মের পোশাকের মতো পণ্য কেনার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। লোকেরা বাড়ি থেকে কাজের জন্য এবং পড়াশোনার জন্য ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন, কম্পিউটার হার্ডওয়্যার এবং স্টেশনারী কিনতে আগ্রহী। সরকারের এই পদক্ষেপ জনগণকে কিছুটা স্বস্তি দেবে।

রেড, অরেঞ্জ ও গ্রীন জোন আসলে কি ?

আসলে সরকার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ভিত্তিতে দেশের সমস্ত জেলাকে লাল, কমলা এবং সবুজ জোনে ভাগ করেছে। সেইসমস্ত জেলাগুলিকে রেড জোনে রাখা হয়েছে যেখানে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং নতুন রোগীর খোঁজ মিলছে। আবার যেখানে ১৪ দিনেরও বেশি সময় ধরে কোনও নতুন করোনার সংক্রমণ হয়নি, তারা অরেঞ্জ জোনে আছেন। গ্রীন জোনের জেলা সেগুলি, যেখানে গত ২১ দিনের মধ্যে সংক্রমণের কোনও খবর পাওয়া যায়নি।

পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলা কোন জোনে আছে :

রেড জোন : পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব মেদিনীপুর, মালদহ দক্ষিণ ২৪ পরগনা,উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং এবং কলকাতা।

অরেঞ্জ জোন : পশ্চিম বর্ধমান, পূর্ব বর্ধমান, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, হুগলি।

গ্রীন জোন : বাঁকুড়া, বীরভূম, কোচবিহার, পুরুলিয়া, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, ঝাড়গ্রাম এবং আলিপুরদুয়ার।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।