ইলেকট্রিক গাড়ি ব্যবহারকারীদের জন্য সুখবর, ৩০০০ চার্জিং স্টেশন বানাচ্ছে eBikego

ধরুন বাইক বা স্কুটার নিয়ে আপনি প্রয়োজনীয় কোনো কাজে বেড়িয়েছেন। কিন্তু কিছুদূর যাওয়ার পর হঠাৎই খেয়াল করলেন, গন্তব্যস্থলে পৌছানোর জন্য আপনার গাড়িতে পর্যাপ্ত পরিমান তেল নেই। তখন নিকটবর্তী কোনো পেট্রোল পাম্প বা কোনো দোকান থেকে তেল ভরে নিলেন। তারপর আবার গাড়ি স্টার্ট করে যাত্রা শুরু করলেন। তবে এখানে যদি আপনার ইলেকট্রিক টু-হুইলার থাকতো। সেক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তেন। কারন চার্জিং স্টেশনের অভাব। আর এই পরিকাঠামোগত সমস্যার কারনেই ভারতে EV বা ইলেকট্রিক গাড়ি সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হওয়ার পথে প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

স্মার্ট ইলেকট্রিক মোবিলিটি প্লাটফর্ম eBikego এই সমস্যার সমাধানে এবার এগিয়ে এল। দেশীয় এই স্টার্টআপ সংস্থাটি ঘোষণা করেছে, তারা আগামী তিন মাসের মধ্যেই ভারতের পাঁচটি শহরে ৩,০০০ স্মার্ট EV চার্জিং স্টেশন স্থাপন করবে। প্রথম পর্যায়ে তারা ১ ডিসেম্বর থেকে নিউ দিল্লি/এনসিআর (ন্যাশনাল ক্যাপিটাল রিজিয়ন), মুম্বাই, বেঙ্গালুরু, হায়দ্রাবাদ, এবং চেন্নাইতে ৩,০০০ চার্জিং স্টেশন ইনস্টল করবে এবং একবছরের মধ্যেই eBikego সারা ভারতজুড়ে সংখ্যায় ১২,০০০-১৫,০০০ চার্জিং স্টেশন গড়ে তুলবে৷ চার্জিং স্টেশন গুলি শহরের জনবসতি পূর্ণ বাজারের কাছেই রাখা হবে। এই চার্জিং স্টেশনে সবধরনের টু-হুইলার/থ্রি হুইলার চার্জ দেওয়া যাবে।

eBikego EV স্টেশনগুলা হবে IoT (Internet of Things) এনাবল্ড অর্থাৎ ইন্টারনেট কানেক্টেড৷ ব্যবহারকারী কিউআর (QR) কোড কোড স্ক্যান করেই চার্জিং অ্যাক্টিভেট করতে পারবেন। এর জন্য সংস্থাটি ‘eBikego Charge’ নামে একটি স্মার্টফোন অ্যাপও লঞ্চ করবে। যার মাধ্যমে আপনি চার্জিং প্রি-বুকিং করার পাশাপাশি চার্জিং সর্ম্পকিত নানা বিষয় মনিটরও করতে পারবেন। যেমন- অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহক ও ভেন্ডর দুজনই জানতে পারবেন, গাড়ি চার্জিংয়ের জন্য কত ইউনিট বিদ্যুত খরচ হয়েছে। এছাড়া ব্যাটারি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের সাহায্যে eBikego ব্যাটারির পার্সেন্টেজ, নিকটবর্তী চার্জিং স্টেশন, অবশিষ্ট চার্জে গাড়ি কতদূর যাবে এই বিষয়গুলি সর্ম্পকে ব্যবহারকারীকে অবহিত করবে।

গাড়িতে চার্জ দেওয়া সম্পূর্ণ হয়ে গেলে ইউপিআই, ক্রেডিট/ডেবিট কার্ড বা নগদ টাকা দিয়েও পেমেন্ট করা যাবে। আর চার্জিংয়ের খরচও যে এত নগণ্য, শুনলে বেশ অবাকই হবেন। টু-হুইলার/থ্রি হুইলার চার্জ দেওয়ার জন্য প্রতি কিলোমিটার পিছু আনুমানিক খরচ পড়বে ২০-৫০ পয়সা! পেট্রোলের থেকে যা হবে বহুগুণে সস্তা৷ চুক্তির ভিত্তিতে অন্য একটি ভারতীয় সংস্থা এই চার্জিং স্টেশনগুলি স্থাপন করবে বলে জানা গেছে।

এই প্রসঙ্গে eBikego-র প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও ইরফান খান বলেছেন, ‘এটি দেশে শুধুমাত্র বৈদ্যুতিন যানবাহনের চাহিদা এবং এর ইকোসিস্টেমকে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবেনা, পাশাপাশি এটি ব্যাটারি সোয়াইপেবল সিস্টেমের সমস্যা এবং পরিবেশ দূষন হ্রাস করতেও সমর্থ হবে। বক্তব্যে যোগ করে তিনি বলেছেন, যখন আরো বেশি চার্জিং স্টেশন থাকবে তখন বহু মানুষ বৈদ্যুতিন যানবাহনের দিকে ঝুঁকবেন। আমরা আশাবাদী, রাজ্য সরকারগুলি পরিবেশ-বান্ধব যাতায়াতের প্রচারের জন্য আরও বেশী চার্জিং স্টেশন স্থাপন করতে আমাদের সাথে এগিয়ে আসবে।’

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।