সাবধান! ইন্টারনেটে ঘুরছে ভুয়ো WhatsApp, ইন্সটল করলেই তথ্য চলে যাবে হ্যাকারদের হাতে

fake-whatsapp-version-for-iphone-made-by-cy4gate-all-you-need-to-know

আপনারা প্রায় সবাই জানেন সাম্প্রতিক সময়ে প্রাইভেসি পলিসি সংক্রান্ত আপডেটের জন্য বিতর্কের মুখে পড়েছে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপ (WhatsApp)। ফেসবুকের মালিকানাধীন এই প্ল্যাটফর্মটির বিরুদ্ধে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে অভিযোগ উঠেছে যে এটি নতুন নীতিমালার সাহায্যে ইউজারদের তথ্য চুরি করার চেষ্টায় রয়েছে, যদিও হোয়াটসঅ্যাপ, বারংবার এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে। সেক্ষেত্রে জানিয়ে রাখি, হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ইউজারের ডেটা ট্র্যাক করুক বা না করুক, আপনি যদি হোয়াটসঅ্যাপের আসল ভার্সনটি ব্যবহার না করেন, তাহলে আপনার তথ্য চুরি হওয়ার ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে! আসলে আজ হোয়াটসঅ্যাপের আইওএস ইউজারদের জন্য একটি আশঙ্কার কথা সামনে এসেছে, যাতে বলা হয়েছে যে Cy4Gate নামে একটি ইতালীয় নজরদারি সংস্থা আইফোনের জন্য একটি ভুয়ো সংস্করণ তৈরি করেছে, যা ইন্সটল করা মাত্রই আইফোন ইউজারদের তথ্য চলে যাবে হ্যাকারদের হাতে।

সম্প্রতি, টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের সিটিজেন ল্যাব (সাইবার সিকিউরিটি রিসার্চ ল্যাবরেটরি), মাদারবোর্ড নামক সংস্থার সাথে হাত মিলিয়ে
আইফোনের জন্য উপলব্ধ এই জাল WhatsApp সংস্করণটিকে খুঁজে পেয়েছেন। জানা গিয়েছে, Cy4Gate নামে ইতালীয় সংস্থা এটি প্রস্তুত করেছে এবং এই হোয়াটসঅ্যাপ ভার্সনটির সাথে একটি URL সাইট খুঁজে পাওয়া গেছে, যা সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করে এটি ইন্সটল করতে প্রলুব্ধ করে। একবার এই ভার্সনটি আইফোনে ইন্সটল হয়ে গেলে ওই সাইটটি ইউজারের তথ্য সংগ্রহ করে হ্যাকারদের কাছে পৌঁছে দিতে সাহায্য করে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, Cy4Gate, নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি বা ব্যক্তিগোষ্ঠীকে টার্গেট করার জন্য এই ভুয়ো অ্যাপ্লিকেশনটি তৈরি করেছিল। এটির সাহায্যে হ্যাকাররা খুব সহজেই নির্দিষ্ট আইফোনে নিয়ন্ত্রণ পেতে পারে এবং ওই ডিভাইসে কিছু কনফিগারেশন ফাইল ইনস্টল করে ইউজারের তথ্য চুরি করতে পারে। এক্ষেত্রে ইউনিক ডিভাইস আইডেন্টিফায়ার (UDID), ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টি (IMEI) ইত্যাদি একাধিক তথ্য বেহাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে জানিয়ে রাখি, Cy4Gate, ইতালিতে সরকারের সাথে যুক্ত হয়ে এমনটা ঘটিয়েছে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।

স্বস্তির বিষয় এটাই যে, হোয়াটসঅ্যাপের এক মুখপাত্র এই ভুয়ো সংস্করণটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন যা তাদের পরিষেবার শর্তাদি লঙ্ঘন করে। অন্যদিকে মাদারবোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে যে তাঁরা এই জাতীয় জালিয়াতির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবেন। তবুও সাবধানের মার নেই! তাই আমরা আইফোন ইউজারদের অফিসিয়াল অ্যাপ স্টোর থেকে হোয়াটসঅ্যাপ ইন্সটল বা আপডেট করার পরামর্শ দেব।

প্রসঙ্গত, হোয়াটসঅ্যাপের নকল অ্যাপ বানিয়ে ইউজারদের বোকা বানানোর চেষ্টা চলছে – এই ধরণের ঘটনা কোনো নতুন বিষয় নয়। এর আগেও বহুবার স্মার্টফোন তথা অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের এই ধরণের ভুয়ো অ্যাপ্লিকেশন সম্পর্কে সচেতন করা হয়েছে। তাছাড়া, ২০১২ সালে, ইজরায়েলের এনএসও গ্রুপ স্পাইওয়্যার নির্মিত হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে ভারত সহ বিশ্বের বহু অঞ্চলে সাংবাদিক এবং মানবাধিকারকর্মীদের টার্গেট করা হয়েছিল।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন