সুরক্ষিত থাকবে ফোনের যাবতীয় ডেটা, গুগল ফাইলস অ্যাপে এল safe folder ক্রিয়েট অপশন

google-files-safe-folder-features-launched-secure-private-data-with-pin

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বাড়িতে বসেই চলছে অনলাইন ক্লাস বা অফিসের কাজকর্ম। ভিডিও কলিংয়ের মাধ্যমে মানুষ তার প্রয়োজনীয় কাজকর্ম সারছে। তবে বেশ কয়েকবার শোনা গেছে, অনলাইন ভিডিও কলিং অ্যাপে স্ক্রীন শেয়ারিং করার সময়ে ফোনের সমস্ত ডিটেলস এবং ব্যাঙ্কিং ডিটেইল অন্যের কাছে ফাঁস হয়ে গিয়েছে। এই সমস্যার সমাধানে বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো টেক জায়ান্ট Google তাদের ব্যবহারকারীদের জন্য নিয়ে এসে গেছে একটি বিশেষ ফিচার, যার মাধ্যমে আপনারা খুব সহজে একটি safe folder ক্রিয়েট করতে পারবেন। একটি ৪ অঙ্কের পিন তৈরি করে আপনারা আপনার পার্সোনাল ডেটা সেই ফোল্ডারে সুরক্ষিত ভাবে সেভ করে রাখতে পারবেন এবং আপনার অনুমতি ছাড়া সেই ফোল্ডার কেউ খুলতে পারবেনা। তাহলে আসুন Google safe folder ফিচারের ব্যাপারে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

এই Safe Folder ফিচার আপনারা পেয়ে যাবেন গুগলের জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন Google Files – এ। এখানে আপনারা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট, ফাইল ,ফটো, ভিডিও সেভ করে রাখতে পারেন। এবং আপনি এই বিশেষ ফোল্ডারের জন্য একটি বিশেষ পিন সেভ করে রাখতে পারেন। গুগলের তরফে জানানো হয়েছে, যখনই আপনি এই ফোল্ডার থেকে বেরোবেন, তখনি এই ফোল্ডার আবার লক হয়ে যাবে। এরপর কেউ আপনার অনুমতি ছাড়া এই ফোল্ডার খুলতে পারবেনা।

Google Files অ্যাপ:

২০১৭ সালে গুগল ভারত, নাইজেরিয়া এবং ব্রাজিলে নিয়ে এসেছিল এই ‘ফাইলস’ অ্যাপ্লিকেশন। এই অ্যাপ আপনার প্রতিদিনের কাজে আপনাকে অনেক সাহায্য করবে। ইতিমধ্যেই এই অ্যাপের ডাউনলোড সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৫০ মিলিয়ন এবং ইতিমধ্যেই এই অ্যাপ সারা বিশ্বে প্রায় ১ ট্রিলিয়ন পুরনো ফাইল ডিলিট করেছে।

কিভাবে কাজ করবে এই অ্যাপের safe folder ফিচার:

এই বিশেষ ফোল্ডারে আপনারা পাবেন একটি ৪ ডিজিটের পিন নম্বর যার মাধ্যমে আপনি এই ফোল্ডার সিকিউর রাখতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি ছাড়া আর কেউ এই ফোল্ডারে রাখা ফাইল খুলতে পারবেনা। এবং আপনি যখনই এই ফোল্ডার থেকে বেরিয়ে যাবেন, এই ফোল্ডার লক হয়ে যাবে। এবং আবার এই ফোল্ডার খুলতে সেই বিশেষ ৪ সংখ্যার পিন নম্বর দিতে হবে।