মার্চ থেকে এই সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে কাজ করবে না Google Messages

google-messages-may-not-work-in-uncertified-android-device-from-march

আপনারা প্রায় সবাই জানেন, সার্টিফায়েড বা শংসা প্রাপ্ত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে প্লে-সার্ভিস সহ গুগল স্যুইটের অন্যান্য অ্যাপগুলি পূর্বেই ইনস্টল অবস্থায় থাকে। কিন্তু, চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে একাধিক অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনগুলিতে অচল হয়ে যেতে পারে প্লে-সার্ভিসের গুগল মেসেজ (Google Messages) অ্যাপ। সম্প্রতি, 9to5Google ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে এমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ। তবে সার্টিফায়েড অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যবহারকারীরা দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই, কেননা তারা কোনোভাবেই গুগল মেসেজের পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন না। কেবলমাত্র শংসাবিহীন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনগুলিতেই এই অসুবিধা দেখা যাবে।

আসলে আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস হিসেবে পরিগণিত হওয়ার জন্য প্রত্যেকটি স্মার্টফোনকেই গুগল স্বীকৃত সার্টিফিকেশন প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে উত্তীর্ণ হতে হয়। এর ফলে ডিভাইসে নির্বিঘ্নে ব্যবহার করা যায় গুগলের সমস্ত পরিষেবা। সেক্ষেত্রে, ভবিষ্যতে শংসাবিহীন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের মালিকেরা গুগল মেসেজ ছাড়া গুগলের অন্যান্য পরিষেবা থেকেও বঞ্চিত হতে পারেন, সেই আশঙ্কাকে একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছেনা!

9to5google-এর রিপোর্টটি মূলত গুগল মেসেজ অ্যাপ্লিকেশনের নতুন একটি আপডেটের উপরে নির্ভর করে তৈরী করা হয়েছে। তবে এই আপডেটের বিটা ভার্সনটি (৭.২) আপাতত প্রকাশ্যে এসেছে। ডেভেলপার স্টেজে থাকা এর সাম্প্রতিক অ্যাপ কোড নোটিস অনুযায়ী, মার্চের ৩১ তারিখ থেকেই শংসাবিহীন ডিভাইসগুলিতে গুগল মেসেজ কাজ করা বন্ধ করে দেবে। উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল পর্যন্ত সমস্ত শংসাবিহীন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে অক্লেশে গুগলের অ্যাপ্লিকেশনগুলি ব্যবহার করা যেতো। কিন্তু বর্তমানে গুগল এই ফাঁক অনেকটাই পূরণ করে ফেলেছে।

গুগলের স্বীকৃতিহীন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে গুগল মেসেজের পরিষেবা বন্ধ হয়ে গেলে ঠিক কারা বিপদে পড়বেন তা নির্দিষ্ট ভাবে বলা সহজ নয়। তবে আপাতত আমরা এটুকুই বলতে পারি, যেহেতু গুগলের স্বীকৃতি বা শংসাবিহীন অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ইউজারের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম, তাই এই নতুন আপডেটের ফলে সবাই অস্বস্তিতে পড়বেন না। কিন্তু মনে হচ্ছে, এই বিষয়ে প্রভাবিত হতে পারে চীনা কোম্পানী হুয়াওয়ে (Huawei)-এর ডিভাইসগুলি। গুগলের এমন পদক্ষেপের পেছনে নির্দিষ্ট কোনো কারণ এখনো জানা যায়নি। তবে নিজেদের মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনের এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন ফিচারের স্বার্থেই গুগল যাবতীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে বলে মনে হয়।