অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের জন্য সুখবর, Google Photos অ্যাপে আসছে ভিডিও এডিটিং অপশন

google-photos-android-getting-video-edition-tool-with-cropping.jpg

এই মুহূর্তে প্লে স্টোরে বা অ্যাপ স্টোরে ফটো বা ভিডিও এডিটিং অ্যাপের কোনো অভাব নেই। শ’য়ে শ’য়ে অ্যাপ ঘুরে বেরাচ্ছে, ফটো বা ভিডিও স্পেশাল করে তোলার দাবি নিয়ে। কিন্তু ইন্সটল করার পর বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় এদের কার্যকারিতা লবডঙ্কা! তবে Xiaomi, Realme-র বহু স্মার্টফোন ব্র্যান্ডই তাদের হ্যান্ডসেটের গ্যালারি অ্যাপ্লিকেশনে বিশেষ এডিটিং টুল দেয়, যার ফলে ইউজারদের ততটাও অস্বস্তি থাকেনা। এছাড়াও গুগলের নিজস্ব Photos অ্যাপের মাধমেও আমরা ছবি এডিট করতে পারি। এই অ্যাপেই এবার যুক্ত হলো নতুন ভিডিও এডিটিং অপশন। টেক জায়ান্ট সংস্থাটি সম্প্রতি জানিয়েছে যে, ইতিমধ্যেই Photos অ্যাপের আইওএস ভার্সনে পাওয়া যাচ্ছে এই ভিডিও এডিটর ফিচার। তবে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এটি চলে আসবে অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মেও। কী সুবিধা এই নতুন ভিডিও এডিটরের? আসুন জেনে নিই।

রিপোর্ট অনুযায়ী, এখন থেকে গুগল ফটোস অ্যাপ্লিকেশনের নতুন ভিডিও এডিটর অপশনের সাহায্যে ভিডিও স্টেবিলাইজিং, ট্রিমিং এবং রোটেশনিং জাতীয় বিভিন্ন ধরণের এডিটিং করা যাবে। এছাড়াও, এই ফিচারের মাধ্যমে ইউজাররা ভিডিওতে ফিল্টার যুক্ত করতে, ফ্রেমিং পরিবর্তন করতে, গ্র্যানুলার (ব্রাইটনেস, কনট্রাস্ট, স্যাচুরেশন ইত্যাদি) এডিট করতে সক্ষম হবেন।

গুগলের মতে এই নতুন অপশনটি গুগল ফটোস-র সক্রিয় ইউজারদের জন্য খুবই কার্যকরী হবে এবং এটির ব্যবহারও খুব সহজ হবে। সেক্ষেত্রে কোনো ভিডিও নিঁখুত ভাবে এডিট করার জন্য আপাতত ৩০টি প্রাথমিক এডিটিং টুল দেওয়া হয়েছে। এগুলির সাহায্যেই ভিডিও-র ফ্রেম ক্রপ করা যাবে এবং আলোর ব্যবহার অ্যাডজাস্ট করা যাবে; পরিবর্তন করা যাবে ভিডিওর ফিল্টারও। তাছাড়া কোম্পানির বিশেষ AI (আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স) ব্যবহার করে কোনো ছবির কালার রং ইচ্ছে মত ব্যালেন্স করা যাবে।

তবে এখানেই শেষ নয়। যারা গুগলের পিক্সেল (Pixel) ফোন ব্যবহার করেন তাদের ফোটো এডিটিংয়ের জন্য নতুন কিছু ফিচার আসছে গুগল ফটো-তে৷ এছাড়া শোনা যাচ্ছে, সমস্ত গুগল ফোটোস ইউজারের জন্য খুব শীঘ্রই আসবে পোর্টেবল ব্লার, কালার পপ, পোট্রেট লাইট প্রভৃতি এডিটিং টুল। যদিও সেগুলি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যাবে না, নির্দিষ্ট কিছু গাঁটের কড়ি খসাতেই হবে।

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি, যারা পিক্সেল ফোন ব্যবহার করেন না তাদেরকে উক্ত এডিটিং ফিচারগুলি অ্যাক্সেস করতে হলে সংস্থার Google ওয়ান সাবস্ক্রিপশন নিতে হবে। তাছাড়া, ইউজারের হ্যান্ডসেটে অন্তত ৩জিবি র‍্যাম এবং নিদেনপক্ষে অ্যান্ড্রয়েড ওরিও (Android 8) অপারেটিং সিস্টেম থাকতে হবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন