চাপের মুখে সুর নরম Google এর, প্লে স্টোরে থাকতে ২০২২ সাল পর্যন্ত দিতে হবেনা ফী

google-postponing-new-play-store-billing-policy-in-india-to-april-2022

চাপের মুখে সুর নরম করতে বাধ্য হল Google। কয়েকদিন আগেই তারা ঘোষণা করেছিল, আমেরিকার মত ভারতীয় অ্যাপগুলিকেও ইন-অ্যাপ পারচেস জন্য অতিরিক্ত চার্জ দিতে হবে। এরপরই ভারতীয় স্টার্টআপ সংস্থাগুলি এক হয়ে গুগলের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়। এমনকি গুগল কে উচিত শিক্ষা দিতে আজ সকালে নিজস্ব মিনি অ্যাপ স্টোর লঞ্চ করেছে ভারতের জনপ্রিয় ই-ওয়ালেট প্ল্যাটফর্ম Paytm। ওই মিনি অ্যাপ স্টোরের প্রোগ্রামে ইতিমধ্যেই যুক্ত হয়েছে Ola, Rapido, Netmeds, 1MG, Domino’s Pizza এর মত ৩০০টি স্থানীয় অ্যাপ্লিকেশন।

এরপরই গুগলের তরফে জানানো হয়, ইন-অ্যাপ পারচেস অপশন যুক্ত কোনো ভারতীয় অ্যাপ্লিকেশনকে, প্লে স্টোর প্ল্যাটফর্মে থাকতে আপাতত কোনো অতিরিক্ত ফি দিতে হবেনা। টেকক্রাঞ্চের রিপোর্ট অনুযায়ী, গুগল, ভারতে ২০২২ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত সময়ের জন্য তার নতুন প্লে স্টোর বিলিং পলিসি স্থগিত করেছে।

প্রসঙ্গত গত কয়েক সপ্তাহে নিজের প্লে স্টোর পলিসির দোহাই দিয়ে প্রথমে Paytm, এবং তারপর Zomato, Swiggiy অ্যাপ্লিকেশনগুলির ওপর চাপ সৃষ্টি করছিল গুগল। যা ভালোভাবে নেয়নি সংস্থাগুলি। এই পর্যন্ত তাও ঠিক ছিল! কিন্তু, নতুন প্লে স্টোর বিলিং পলিসি চালু হতেই নড়েচড়ে বসে দেশের বিভিন্ন স্টার্ট-আপ সংস্থাগুলি। তারা গুগলের এই খামখেয়ালী পদক্ষেপের জন্য গুগল প্লে স্টোর বয়কট করার ভাবনা চিন্তা শুরু করে। Paytm, Razorpay, Dream 11, Zomato-র মত সংস্থাগুলির তরফে বলা হয়, কোনো বৈদেশিক সংস্থা এভাবে ভারতের ডিজিটাল স্বপ্নগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা। তাছাড়া বিনা কারণে গুগলকে ৩০% খরচ দিতেও তারা রাজি নন।

এই বিষয়ে, গুগল প্লে গেমস এবং অ্যাপ্লিকেশনগুলির বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ডিরেক্টর পূর্ণিমা কোচিকার জানিয়েছেন – গুগল, ওই সমস্ত ভারতীয় স্টার্টআপ সংস্থাগুলির উদ্বেগ বোঝার চেষ্টা করছে। সংস্থাটি, তার প্লে স্টোর পলিসি সম্পর্কিত যেকোন প্রশ্নের স্পষ্ট উত্তর দিতে পলিসি ওয়ার্কশপ চালু করবে। এছাড়া, ভারতের ডেভেলপারদের প্লে বিলিং সিস্টেমের সাথে সংহত হওয়ার সময়সীমা বাড়ানো হচ্ছে ৩১শে মার্চ ২০২২ অবধি। এবং অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে তাদের সাবস্ক্রিপশন পেমেন্ট অপশনে ইউপিআই সুবিধা বাস্তবায়ন করার জন্য পর্যাপ্ত সময় দেওয়া হচ্ছে।