সমস্ত স্ক্যানিং অ্যাপকে টেক্কা দিতে Google আনলো Stack

google-stack-documents-scanner-launches-to-take-on-adobe-scan-camscanner

বর্তমান সময়ে মোবাইল থেকে যেকোনো ছবি, ফাইল বা ডকুমেন্ট স্ক্যান করার প্রবণতা ব্যাপক বেড়েছে। স্মার্টফোন ইউজাররা এখন Adobe Scan, CamScanner জাতীয় অ্যাপ ব্যবহার করে সহজেই চটজলদি যেকোনো ধরণের ডকুমেন্ট স্ক্যান করে ফেলতে পারেন। সেক্ষেত্রে এবার, বাজারে উপলব্ধ অন্যান্য সমস্ত স্ক্যানিং অ্যাপকে টেক্কা দিতে Google লঞ্চ করেছে নতুন একটি অ্যাপ্লিকেশন Stack, যা ইউজারদের ভার্চুয়াল নথি বহনের বিষয়টি আরো সহজ করে দেবে বলে মনে হচ্ছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, Stack, টেক জায়ান্ট সংস্থাটির আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা AI ভিত্তিক অ্যাপ বা পরিষেবাদির অন্তর্গত একটি নতুন উদ্ভাবন যা সংস্থার Area 120 নামক বিশেষ টিম কর্তৃক নির্মিত হয়েছে। এক্ষেত্রে, Google দাবি করেছে যে, Adobe Scan, CamScanner-এর মতো অ্যাপগুলির থেকে অনেকাংশেই স্মার্ট ও উন্নত সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন হবে এই নতুন অ্যাপটি।

জানিয়ে রাখি, এই Stack অ্যাপটি Google-এর DocAI আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স টেকনোলজিস ওপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে। কার্যকারিতার কথা বললে, এই অ্যাপ্লিকেশনটির সাহায্যে মোবাইল ক্যামেরা থেকে তোলা ছবিগুলিকে সহজেই PDF ফাইলে রূপান্তরিত করা যাবে; ডিজিটাল PDF করা যাবে কাগজের বিল জাতীয় ডকুমেন্ট বা টেক্সট কন্টেন্টগুলিকেও।

এক্ষেত্রে, স্ট্যাক স্ক্যানিং অ্যাপটির নির্মাতা দলের প্রধান ক্রিস্টোফার পেদ্রেগাল একটি ব্লগ পোস্টে অ্যাপটির কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে জানিয়েছেন যে, ইউজাররা যখনই কোনো নথির ছবি তুলে Stack-এর মাধ্যমে সেটিকে স্ক্যান করবেন, তখন অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে স্ক্যান করা ডকুমেন্টটির সামঞ্জস্যপূর্ণ নাম প্রস্তাব করবে এবং সেটি সেভ করার সময় কোন বিভাগে রাখা উচিত হবে সেটাও জানিয়ে দেবে। এছাড়াও ইউজাররা যাতে সহজেই স্ক্যান করা পিডিএফটি খুঁজে পায় এবং বিল জাতীয় ডকুমেন্টগুলি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য একনজরে দেখতে পায় তার জন্য এই অ্যাপটি নির্দিষ্ট তারিখ, টাকার পরিমাণ জাতীয় বিভিন্ন তথ্য শনাক্ত করবে। তদুপরি, গুগল স্ট্যাকের (Google Stack) দ্বারা স্ক্যান করা সমস্ত দস্তাবেজগুলি আপনার গুগল ড্রাইভের মধ্যে সেভ হবে, ফলে ইউজাররা যেকোনো মুহুর্তে ডকুমেন্টগুলি হাতের কাছে পেয়ে যাবেন।

তবে এই অ্যাপের ইউজাররা যেহেতু অনেক গুরুত্বপূর্ণ দস্তাবেজের ছবি এখানে জমা করে রাখবেন, তাই তাদের এইসমস্ত ব্যক্তিগত তথ্যগুলি যাতে কোনো ভাবেই ফাঁস না হয়ে যায় তার জন্য গুগল স্ট্যাকে ‘ফেস রেকগনাইজেশন’ বা ‘ফিঙ্গারপ্রিন্ট অথেন্টিকেশন’-এর মতো নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে বলেও জানিয়েছেন পেদ্রেগাল। অর্থাৎ ইউজারের অনুমতি ছাড়া কেউ তার স্ট্যাক ফোল্ডার অ্যাক্সেস করতে পারবেনা।

এই বিষয়ে জানিয়ে রাখা ভালো যে গুগল স্ট্যাক স্ক্যানিং অ্যাপটিকে এখন পরীক্ষামূলক ভাবে আনা হয়েছে। ফলত শুধু মাত্র আমেরিকাবাসীদের জন্যই এটি এখন উপলব্ধ হবে। এক্ষেত্রে, গুগল নিজেই স্বীকার করে নিয়েছে যে, স্ট্যাক এখনো বেশির ভাগ সময়ে ডকুমেন্টে থাকা তথ্যগুলিকে চিনতে ভুল করছে। তাই এখনো সঠিক ভাবে বলা যাচ্ছে না যে, এই অ্যাপটিকে গুগল সর্বসাধারণের জন্য বাজারে নিয়ে আসবে কিনা। তবে স্ট্যাক অ্যাপটি সঠিক ভাবে কাজ করা শুরু করলে এটি সহজেই ‘ক্যামস্ক্যানার’-এর মতো অন্যান্য স্ক্যানিং অ্যাপকে পেছনে ফেলে দেবে বলে আশা করা যায়।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন