PUBG Mobile কে ফেরানোর জন্য তাড়াহুড়ো নেই সরকারের, স্পষ্ট করলো মন্ত্রক

government-has-no-hurry-to-return-pubg-mobile-in-india

একের পর এক বিপর্যয়ের জেরে সারা বিশ্বের মানুষ ব্যথিত! মনখারাপের কারণ হিসেবে সবাই চলতি বছরটিকেই দুষছেন। কিন্তু, ভারতের তরুণ প্রজন্মের একাংশের মন ভেঙেছে গত ২৯শে জুন এবং ২রা সেপ্টেম্বর দিনদুটিতে! হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন, TikTok এবং PUBG Mobile ব্যান হওয়ার কথাই বলছি। আপনারা সবাই জানেন, এখনো পর্যন্ত ২০০টিরও বেশি অ্যাপ ব্যান করেছে ভারত সরকার, যার মধ্যে ওই জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশনদুটিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এদিকে বিকল্প থাকায় TikTok ব্যান হওয়ার কষ্ট সামলে নিলেও, ইউজাররা অনেক বেশি মুষড়ে পড়েছে PUBG Mobile গেম ব্যান হওয়ায়। ভারতে এই গেমটির প্রায় ৩৫ মিলিয়ন ইউজারবেস ছিল। এখন দেশের প্রতিটি পাবজি প্রেমীর মনে এখন একটাই প্রশ্ন, গেমটি আবার নিজস্ব ছন্দে ফিরে আসবে নাকি এদেশে চিরতরে নিষিদ্ধ হয়ে যাবে?

ইতিমধ্যেই PUBG Mobile গেমের মূল নির্মাতা দক্ষিণ কোরিয়ান সংস্থা পাবজি কর্পোরেশন তথা ব্লু হোল স্টুডিও, গেমটির ভারতীয় ডিস্ট্রিবিউটর টেনসেন্টের সাথে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করেছে, এবং ওই চীনা সংস্থাটিকে ভারতে পাবজি মোবাইল পরিচালনার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে – এমন খবর সামনে এসেছে। শোনা যাচ্ছিল, পাবজি কর্পোরেশন ভারতে ফিরতে রিলায়েন্স জিওর সাথে জোট বাঁধতে পারে। ফলে, অনেকেই আশা করছিলেন সরকারের বিধি-নিষেধ ছাড়িয়ে আবার ফিরবে তাদের পছন্দের গেমটি। কিন্তু, দুঃখের বিষয়, ভারত সরকার এখনই পাবজি মোবাইল-র ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেওয়ার কথা ভাবছেনা।

দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং নাগরিকদের তথ্য সুরক্ষিত রাখার উদ্দেশ্যে ভারত সরকার ওই অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে নিষিদ্ধ করেছে। যদিও ভারত-চীন উত্তেজনার ফলশ্রুতি হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে – অনেকে এমনটাই মনে করছেন। InsideSport-রিপোর্ট অনুযায়ী, পাবজি মোবাইল হোক বা টিকটক – কোনো নিষিদ্ধ চীনা অ্যাপের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার বিষয়ে তাড়াহুড়ো করছে না দেশের ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রক তথা MEITY। মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিষয়ে পাবজি-কে কোনো বিশেষ সুবিধা দেওয়া হবেনা। পাবজি মোবাইল-র, চীনা সংস্থা টেনসেন্টের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করা ভারতে ফেরার জন্য যথেষ্ট কারণ নয়।

আসলে, ভারত সরকার কোনো নিষিদ্ধ অ্যাপকেই ছাড় দিতে প্রস্তুত নয়। এই বিষয়ে সরকার নিজের অবস্থান বেশ স্পষ্ট ভাবে বুঝিয়ে দিয়েছে। জানা গিয়েছে, এখনো পর্যন্ত নিষিদ্ধ অ্যাপ্লিকেশনগুলির নির্মাতা সংস্থাগুলির সাথে কোনোরকম আলোচনাও করেনি সরকার। সুতরাং, PUBG Mobile আবার উপলব্ধ হবে কিনা তা জানতে আমাদের আরো বেশ খানিকটা সময় অপেক্ষা করতে হবে, একথা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।